শিরোনাম ::
নিউ ক্যালেডোনিয়ায় বিক্ষোভে নিহত ৪, জরুরি অবস্থা জারি জার্মানিতে বাড়িতে বিস্ফোরণ, আগুন পুড়ে মৃত্যু ৩ টেকনাফে র‍্যাবের অভিযানে কোটি টাকার আইসসহ আটক-১ সংস্কারের অভাবে মরণ ফাঁদে পরিণত উখিয়ার রুমখাঁপালং-হাতিরঘোনা স্কুল সড়ক উখিয়ায় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী চশমা মার্কার সমর্থনে প্রচারণা উখিয়ায় হ্যান্ডগ্রেনেড ও বিপুল পরিমাণ অস্ত্রসহ চার রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রেফতার মেরিন ড্রাইভে রেন্ট বাইক দুর্ঘটনায় সদ্য বিবাহিত পর্যটকসহ নিহত ২ কবর দেওয়ার চারদিন পর বৃদ্ধকে জীবিত উদ্ধার তারুণ্যের বার্তা নিয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে প্রার্থী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সাংবাদিক রাসেল আজ থেকে মাঠে নামছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী
সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৯:২০ পূর্বাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

‘হিন্দু-মুসলিম ভেদাভেদ করব না’, মেরুকরণ বিতর্কে নয়া সংকল্প মোদীর

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: বুধবার, ১৫ মে, ২০২৪
‘হিন্দু-মুসলিম ভেদাভেদ করব না’, মেরুকরণ বিতর্কে নয়া সংকল্প মোদীর


নয়াদিল্লি, ১৫ মে – ”যদি আমি হিন্দু-মুসলিম করি, তাহলে সামাজিক জীবনে থাকার যোগ্যতা হারাব।” সাম্প্রতিক সময়ে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা ‘অভিযোগে’র এভাবেই জবাব দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মঙ্গলবার বারাণসীতে জনসভা করেছেন তিনি। এর পর এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় এই প্রসঙ্গ ওঠে। আর তখনই মোদি বলেন, ”আমি ভোট ব্যাঙ্কের জন্য কাজ করি না। আমি বিশ্বাস করি সব কা সাথ, সব কা বিকাশে।”

মোদির মুখে উঠে আসে গুজরাট দাঙ্গার কথাও। তাঁকে বলতে শোনা যায়, ”আমার অনেক মুসলিম বন্ধু আছে। এবং ২০০২ সালের পর আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করার চেষ্টা করা হয়েছিল। আমাদের পাড়ায় মুসলিম পরিবার থাকত। ইদ উপলক্ষে আমরা বাড়িতে রান্না করতাম না। কারণ খাবার আসত আমাদের আশপাশের মুসলিম প্রতিবেশীদের কাছ থেকে। এমনকী আমাদের মহররমে তাজিয়া করতে শেখানো হয়েছিল।”

সেই সঙ্গেই তিনি দাবি করেন, তাঁর মন্তব্যের অপব্যাখ্যা হয়েছে। মোদিকে বলতে শোনা যায়, ”আমি স্তম্ভিত। কে বলল অনুপ্রবেশকারী আর বেশি সন্তানের প্রসঙ্গ তোলা মানেই মুসলিমদের কথা বলা হচ্ছে? এই সমস্যা দরিদ্র হিন্দু পরিবারেও রয়েছে। তারা নিজেদের সন্তানকে প্রয়োজনীয় শিক্ষা দিতে পারছে না। আমি কখনও হিন্দু বা মুসলিমের নাম নিইনি। আমার কেবল আবেদন, আপনারা ততগুলিই সন্তানের জন্ম দিন যাদের আপনারা পালন করতে পারবেন।” এর পরই তিনি বলেন, ”আমি নিশ্চিত আমার দেশের মানুষ আমাকে ভোট দেবে। যেদিন হিন্দু-মুসলিম নিয়ে কথা বলা শুরু করব, সেদিন আর সামাজিক জীবনে থাকতে পারব না। আমি কখনই হিন্দু-মুসলিমে বিভেদ সৃষ্টি করব না এবং এটা আমার প্রতিশ্রুতি।”

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন
আইএ/ ১৫ মে ২০২৪





আরো খবর: