শিরোনাম :
উখিয়া প্রেসক্লাবের উদ্যোগে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত কক্সবাজারে সোয়া ১ লাখ ইয়াবাসহ মা-ছেলে আটক সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়ে জন্মদিন উদযাপন ‘স্কাস’ চেয়ারম্যানের ছেলে ইসফারের নারী কেলেঙ্কারির বিরুদ্ধে নিউজ করায় এবার মহেশখালীর ৬ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা সাংবাদিক সংসদ কক্সবাজার’র আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল সম্পন্ন টেকনাফে ১০ হাজার ইয়াবাসহ মোটরসাইকেল জব্দ টেকনাফে প্রধানমন্ত্রী’র উপহার পেল পৌরসভার ৩৪৮১ পরিবার পেকুয়ায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেল ১৮০ পরিবার ৩ শতাধিক পরিবারের তীব্র পানি সংকট দূর করলেন টেকনাফের ইউপি সদস্য এনাম ১২নং ওয়ার্ডের দলীয় নেতাকর্মী ও কর্মহীন মানুষের মাঝে শাহেদ আলীর উপহার সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত
সোমবার, ১০ মে ২০২১, ১০:২৭ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা:
কক্সবাজার পোস্টে আপনাকে স্বাগতম, আমাদের সাথে থাকুন,কক্সবাজারকে জানুন......

স্বাস্থ্যবিধি মানাতে আবারও ভ্রাম্যমাণ আদালত

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: March 15, 2021 10:51 pm | সম্পাদনা: March 15, 2021 11:39 pm

স্বাস্থ্যবিধি মানাতে আবারও ভ্রাম্যমাণ আদালত

[ad_1]

নিজস্ব প্রতিবেদক : চলতি মাসে দেশে করোনা সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে। একদিকে দেশে করোনার যুক্তরাজ্যের নতুন ট্রেইন শনাক্ত হয়েছে অন্যদিকে সরকার ঘোষিত স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না কোথায়ও। সারা দেশে ট্রেন, বাস, মার্কেট রাস্তা ও সামাজিক উৎসবসহ যে কোনও পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনও প্রবণতা দেখা যাচ্ছে না।


সোমবার ( ১৫ মার্চ) ঘরে-বাইরে সব স্তরে মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে ১১ দফা নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব মানতে এবং জনসমাগম নিয়ন্ত্রণে আইন প্রয়োগ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এখন থেকে এসব বিধিনিষেধ নিশ্চিত করতে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসবে এবং অমান্যকারীদের জরিমানা করা হবে। প্রত্যেক জেলায় এ ব্যাপারে নির্দেশনা দিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে চিঠি পাঠানো হয়েছে।


অস্বাভাবিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মানুষকে শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি মানাতে সরকার কঠোর অবস্থান ঘোষণা করেছে। এ ব্যাপারে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সচিবালয়ে এক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের বলেন, জনগণ কিছুতেই স্বাস্থ্যবিধি মানছে না। মাস্ক পরছে না। ভীষণ শৈথিল্য দেখাচ্ছে। অথচ সংক্রমণ বাড়ছে। তাই জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে স্বাস্থ্য অধিদফতরসহ সংশ্লিষ্ট সব সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানকে আগের মতো কঠোর হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।


স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেন, মানুষজন কিছুই মানছে না। সব আগের মতো হয়ে গেছে। রাস্তাঘাটে, গ্রামে, সব জায়গায় স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে উদসীনতা দেখাচ্ছে। এসবের কারণে সংক্রমণ আবার বেড়ে গেছে। মানুষ যদি কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি না মানে তাহলে সামনে অনেক বড় বিপদ অপেক্ষা করছে।


মাস্ক পরতে সরকারের ১১ নির্দেশনা : করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সবস্তরে মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে সরকার ১১টি নির্দেশনা দিয়েছে। এক সরকারি তথ্য বিবরণীতে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়।


নির্দেশনাগুলো হলো ১. সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিসে কর্মরত কর্মকর্তা, কর্মচারী ও সংশ্লিষ্ট অফিসে আসা সেবাগ্রহীতারা বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক ব্যবহার করবেন। ২. সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালসহ সব স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে আসা সেবাগ্রহীতারা আবশ্যিকভাবে মাস্ক ব্যবহার করবেন। ৩. শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মন্দির ও গির্জাসহ সব ধর্মীয় উপাসনালয়ে মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। ৪. শপিং মল, বিপণিবিতান ও দোকানের ক্রেতা-বিক্রেতারা আবশ্যিকভাবে মাস্ক ব্যবহার করবেন। ৫. হাট-বাজারে ক্রেতা-বিক্রেতারা মাস্ক ব্যবহার করবেন। মাস্ক পরা ছাড়া ক্রেতা-বিক্রেতারা কোনো পণ্য ক্রয়-বিক্রয় করবেন না। ৬. গণপরিবহনের (সড়ক, নৌ, রেল, আকাশপথ) চালক, চালকের সহকারী ও যাত্রীদের মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। গণপরিবহনে আরোহণের আগে যাত্রীদের মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। ৭. গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিসহ সব শিল্পকারখানায় কর্মরত শ্রমিকদের মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। সংশ্লিষ্ট কর্র্তৃপক্ষ ও মালিকরা বিষয়টি নিশ্চিত করবেন। ৮. হকার, রিকশা ও ভ্যানচালকসহ সব পথচারীর মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। বিষয়টি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিশ্চিত করবে। ৯. হোটেল ও রেস্টুরেন্টে কর্মরত ব্যক্তি এবং জনসমাবেশ চলাকালীন আবশ্যিকভাবে মাস্ক পরিধান করবেন। ১০. সব সামাজিক অনুষ্ঠানে আসা ব্যক্তিদের মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করতে হবে। ১১. বাড়িতে করোনা উপসর্গসহ কোনো রোগী থাকলে পরিবারের সুস্থ সদস্যরা মাস্ক ব্যবহার করবেন।


স্বাস্থ্যবিধি মানাতে ভ্রাম্যমাণ আদালত, না মানলে জরিমানা : দেশজুড়ে স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে মানুষের উদাসীনতা ও সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে করণীয় নির্ধারণ করতে সচিবালয়ে এক বৈঠক করেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরের কর্মকর্তারা। সেখানে স্বাস্থ্যবিধি মানতে বাধ্য করার জন্য সরকারের কঠোর অবস্থানের কথা তুলে ধরা হয়।


সভায় আলোচনা হয়, মাস্ক পরা নিশ্চিত করা, জনসমাগম নিয়ন্ত্রণ এবং সামাজিক অনুষ্ঠানাদি বন্ধ ও সংকুচিত করতে ইতিমধ্যেই জেলা প্রশাসক, সিভিল সার্জন ও ইউএনওসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে চিঠি পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মানতে বলা হয়েছে।


এটা স্থানীয়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হবে। পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসবে এবং অমান্যকারীদের জরিমানা করা হবে। তবে এখনও সরকার লকডাউনের ব্যাপারে কিছু ভাবছে না বলে সভায় জানানো হয়।


সান নিউজ/এসএ



Copyright © Sunnews24x7

[ad_2]

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::