শিরোনাম ::
রাইসির মরদেহ তেহরানে, বৃহস্পতিবার মাশহাদে দাফন ঈদগাঁও উপজেলায় সহিংসতার মধ্য দিয়ে নির্বাচন সম্পন্ন : তালেব চেয়ারম্যান নির্বাচিত মাদক ও স্বর্ণ চোরাচালানের গডফাদার সাইফুল ধরাছোঁয়ার বাইরে! শাহরুখের চরম আপত্তি, ইচ্ছে থাকলেও এই কাজ করতে পারেন না গৌরী আইসিসিতে নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন চকরিয়ায় সাবেক এমপি জাফরকে হারিয়ে সাঈদি পুনরায় উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত মোদি হয়ে পর্দায় আসছেন ‘কাটাপ্পা’ কক্সবাজার বেড়ানোর নামে যাত্রী বেশে বাসে ইয়াবা বহন মহেশখালীতে টমটম কেড়ে নিলো শিশু আইজা মণির প্রাণ উপজেলা নির্বাচনেও হারলেন চকরিয়ার সাবেক এমপি জাফর
বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ১০:২৮ পূর্বাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

সাধারণ জ্বর নাকি ডেঙ্গু, কীভাবে বুঝবেন?

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট, ২০২৩
সাধারণ জ্বর নাকি ডেঙ্গু, কীভাবে বুঝবেন?


দেশে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা দিনদিন বেড়েই চলেছে। আর এই ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে মানুষের শরীরে দুর্বল প্রভাব ফেলছে। ডেঙ্গুর প্রধান উপসর্গগুলোর মধ্যে রয়েছে ক্লান্তি, জয়েন্টে ব্যথার মতো অন্যান্য উপসর্গ। একইভাবে, ভাইরাল জ্বর হলেও ঠান্ডা লাগা, গায়ে ব্যথার মতো উপসর্গ দেখা যায়। তবে এই জ্বর তিন থেকে পাঁচ দিন স্থায়ী হয়। যদিও ডেঙ্গু এবং ভাইরাল জ্বরের কয়েকটি উপসর্গ একই। তবে ভাইরাল জ্বরের চেয়ে ডেঙ্গু অনেক বেশি উদ্বেগের। তাই এই দুই রোগের পার্থক্য জানা গুরুত্বপূর্ণ।

সাধারণ জ্বর না কি ডেঙ্গু, বুঝবেন যেভাবে:
সাধারণ জ্বর কী:
একটি সাধারণ জ্বর, যা সাধারণ জ্বর বা ভাইরাল জ্বর নামেও পরিচিত, এটি একটি ভাইরাল বা ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের কারণে শরীরের তাপমাত্রায় অস্থায়ী বৃদ্ধি। আক্রমণকারী প্যাথোজেনগুলির বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য এটি প্রায়শই শরীরের প্রতিরোধ ব্যবস্থার একটি স্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া। সর্দি, ফ্লু, শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণ বা মূত্রনালীর সংক্রমণ সহ বিভিন্ন কারণের কারণে সাধারণ জ্বর হতে পারে। শরীরের তাপমাত্রা সাধারণত 100.4°F (38°C) এবং 104°F (40°C) এর মধ্যে থাকে।

সাধারণ জ্বরের লক্ষণ:

শরীরের তাপমাত্রায় হালকা থেকে মাঝারি বৃদ্ধি
মাথা ব্যথা এবং শরীর ব্যথা
ক্লান্তি এবং দুর্বলতা
ঠান্ডা এবং ঘাম
গলা ব্যথা এবং কাশি
সর্দি বা নাক বন্ধ
হালকা বমি বমি ভাব বা বমি
ক্ষুধামান্দ্য
ডেঙ্গু জ্বর :
ডেঙ্গু হলো একটি ভাইরাল সংক্রমণ যা সংক্রামিত এডিস মশা, প্রাথমিকভাবে এডিস ইজিপ্টি প্রজাতির কামড়ে হয়। এটি গ্রীষ্মমন্ডলীয় এবং উপক্রান্তীয় অঞ্চলে, বিশেষ করে শহুরে এলাকায় প্রচলিত। ডেঙ্গু জ্বর আকস্মিক সূচনা দ্বারা চিহ্নিত করা হয় এবং চিকিত্সা না করা হলে এটি ডেঙ্গু হেমোরেজিক ফিভার বা ডেঙ্গু শক সিন্ড্রোম নামে পরিচিত একটি গুরুতর আকারে অগ্রসর হতে পারে। জটিলতা প্রতিরোধ করার জন্য লক্ষণগুলি প্রাথমিকভাবে সনাক্ত করা গুরুত্বপূর্ণ।

ডেঙ্গুর লক্ষণ :

উচ্চ জ্বর (সাধারণত ২-৭ দিন স্থায়ী)
গুরুতর মাথাব্যথা, বিশেষ করে চোখের পিছনে
জয়েন্ট এবং পেশী ব্যথা
ত্বকের ফুসকুড়ি (সাধারণত চতুর্থ বা পঞ্চম দিনে দেখা যায়)
নাক বা মাড়ি থেকে হালকা রক্তপাত
সহজ কালশিরা
পেটে ব্যথা এবং বমি
ক্লান্তি ও অস্থিরতা
ডেঙ্গু থেকে সাধারণ জ্বরকে আলাদা করা- যদিও সাধারণ জ্বর এবং ডেঙ্গু একই রকম উপসর্গ প্রদর্শন করতে পারে, কিছু নির্দিষ্ট কারণ ডেঙ্গু শনাক্ত করতে সাহায্য করতে পারে।

জ্বরের সময়কাল: সাধারণ জ্বর সাধারণত কয়েক দিন স্থায়ী হয়, যেখানে ডেঙ্গু জ্বর এক সপ্তাহ বা তার বেশি সময় ধরে চলতে পারে।
গুরুতর মাথাব্যথা: ডেঙ্গুতে প্রায়ই তীব্র মাথাব্যথা দেখা দেয়, বিশেষ করে চোখের পিছনে।
জয়েন্ট এবং পেশী ব্যথা: ডেঙ্গু গুরুতর জয়েন্ট এবং পেশী ব্যথা সঙ্গে যুক্ত, প্রায়ই “ব্রেকবোন জ্বর” হিসাবে বর্ণনা করা হয়.
ত্বকে ফুসকুড়ি: সাধারণ জ্বরের চেয়ে ডেঙ্গুর ক্ষেত্রে ফুসকুড়ি বেশি দেখা যায়।
রক্তপাতের প্রবণতা: কম প্লাটিলেট সংখ্যার কারণে ডেঙ্গু রোগীদের নাক বা মাড়ি থেকে হালকা রক্তপাত পরিলক্ষিত হয়।

মেডিকেল এটেনশন-

আপনি যদি দীর্ঘায়িত বা গুরুতর লক্ষণগুলো অনুভব করেন তবে অবিলম্বে চিকিত্সার পরামর্শ নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ। একজন স্বাস্থ্যসেবা পেশাদার আপনার অবস্থার মূল্যায়ন করতে পারেন, প্রয়োজনীয় পরীক্ষা পরিচালনা করতে পারেন এবং উপযুক্ত চিকিৎসা দিতে পারেন। স্ব-নির্ণয় বা বিলম্বিত চিকিৎসা হস্তক্ষেপ জটিলতা সৃষ্টি করতে পারে, বিশেষ করে ডেঙ্গু জ্বরের ক্ষেত্রে।

প্রতিরোধ এবং সতর্কতামূলক ব্যবস্থা-

ডেঙ্গু জ্বরের ঝুঁকি কমাতে মশার কামড় প্রতিরোধ করা অপরিহার্য। এখানে কিছু প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা রয়েছে।

যেখানে মশার বংশবৃদ্ধি হয় সেখানে স্থির পানির উৎসগুলোকে দূর করুন।
মশা নিরোধক ব্যবহার করুন, বিশেষ করে মশার কার্যকলাপের সময়কালে।
অনাবৃত ত্বক কমাতে লম্বা-হাতা শার্ট এবং লম্বা প্যান্ট পরুন।
দরজা-জানালায় মশার পর্দা লাগান।
ঘুমানোর সময় মশারি ব্যবহার নিশ্চিত করবেন অবশ্যই, বিশেষ করে উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা বা জলাবদ্ধ এলাকার আশপাশ।

আইএ





আরো খবর: