বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০১:৪৭ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

শেয়ার বিক্রি করে ঋণ পরিশোধ করবেন আদানি

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: রবিবার, ১২ মার্চ, ২০২৩


নয়াদিল্লি, ১২ মার্চ – ঋণের বোঝা কমাতে ও বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফিরিয়ে আনতে আদানি গ্রুপ আম্বুজা সিমেন্ট কোম্পানির ৪৫ কোটি ডলারের শেয়ার বিক্রির চিন্তা করছে। তারা এ শেয়ার বিক্রি করলে হিনডেনবার্গ রিসার্চের প্রতিবেদন প্রকাশের পর এটা হবে তাদের প্রথম সম্পদ বিক্রির ঘটনা। গতকাল শনিবার ফিন্যান্সিয়াল টাইমসের প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে ভারতের দ্য ওয়্যার এ খবর জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গৌতম আদানির ভাগ্যের পরিবর্তন হয়েছিল ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির রাজনৈতিক উত্থানের সময়কালে। আম্বুজা সিমেন্ট কোম্পানির ৪ থেকে ৫ শতাংশ শেয়ার বিক্রির জন্য আদানি আন্তর্জাতিক ঋণদাতাদের আনুষ্ঠানিকভাবে অনুরোধ জানিয়েছেন। এ থেকে আদানি গ্রুপ ৪৫ কোটি ডলার ঋণ পরিশোধ করতে পারবে। তবে এ শেয়ার কারা কিনতে পারে, সে বিষয়ে জানা যায়নি। শেয়ার বিক্রির এ সিদ্ধান্তও চূড়ান্ত নয় বলে ভারতের গণমাধ্যমটির প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

আম্বুজা সিমেন্ট কোম্পানির মোট শেয়ারের ৬৩ শতাংশের মালিক আদানি গ্রুপ। ১ হাজার ৫০ কোটি ডলারের চুক্তির ভিত্তিতে হলসিমের ভারতীয় সম্পদ আম্বুজা সিমেন্ট কোম্পানি ও এসিসির শেয়ারের মালিক হয়ে রাতারাতি ভারতের দ্বিতীয় সিমেন্ট উৎপাদনকারীতে পরিণত হয় আদানি গ্রুপ। এ চুক্তির সময় বারক্লেজ, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ও ডাচ ব্যাংকের নেতৃত্বে ১৪টি আন্তর্জাতিক ব্যাংক আদানিকে ৪৫০ কোটি ডলার ঋণ দিয়েছিল।

গত জানুয়ারিতে হিনডেনবার্গ রিসার্চের প্রতিবেদন প্রকাশের পর নানাভাবে আদানি গ্রুপ তাদের ভাবমূর্তি পুনরুদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সে লক্ষ্যে নামি আন্তর্জাতিক জনসংযোগ সংস্থা কেক্সট সিএনসিকে নিয়োগ দিয়েছে তারা। সংস্থাটি এর আগেও কয়েকটি কোম্পানিকে খাদ থেকে টেনে তুলেছে। দায়িত্ব পেয়ে তারা হিনডেনবার্গ রিসার্চের প্রতিবেদন অস্বীকার করে। কিন্তু নানা কৌশলের কোনোটিই ঠিকমতো কাজ করছে না। শেয়ারবাজারে আদানির পতন অব্যহত রয়েছে। হিনডেনবার্গ রিসার্চের প্রতিবেদন প্রকাশের পর এ পর্যন্ত ১৪ হাজার ৫০০ কোটি ডলার হারিয়েছে আদানি গ্রুপ।

সূত্র: সমকাল
আইএ/ ১২ মার্চ ২০২৩


আরো খবর: