শিরোনাম :
পেকুয়ায় গরুর খামার ও মুরগীর ফার্মে বিদ্যুৎ ষ্পৃষ্ঠে দুই যুবকের মৃত্যু মহেশখালীতে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উপবৃত্তির টাকা আত্মসাৎ, শিক্ষকসহ আটক-২ রামুতে পর্নোগ্রাফি ও ধর্ষণ মামলার আসামী পুলিশের হাতে আটক সিনহা হত্যায় জড়িত নয় ওসি প্রদীপ, দাবি আইনজীবীর চকরিয়ায় মহাসড়কে ইজিবাইক উল্টে গৃহবধুর মৃত্যু নাফ নদের চর হতে আরও এক শিশুর লাশ উদ্ধার উখিয়ায় ইয়াবাসহ রোহিঙ্গা নারী আটক উখিয়ায় ইয়াবা ও নগদ টাকাসহ চার মাদক কারবারি আটক: সিএনজি ও মোটরসাইকেল জব্দ চকরিয়ায় সব পর্যটন স্পট কমিনিউটি সেন্টার ও বিনোদন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে দুইদফায় স্থগিত হলো চকরিয়া পৌরসভা নির্বাচন হতাশায় ভোটার, খরচের খাতা দীর্ঘ হচ্ছে প্রার্থীদের!
সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ১২:০৯ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা:
কক্সবাজার পোস্টে আপনাকে স্বাগতম, আমাদের সাথে থাকুন,কক্সবাজারকে জানুন......

রামুর জনগুরুত্বপূর্ণ বৌদ্ধ মন্দির সড়কের বেহাল দশা

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: মে ৭, ২০১৮ ৬:০৫ পূর্বাহ্ণ | সম্পাদনা: মে ৭, ২০১৮ ৬:১৩ পূর্বাহ্ণ

সোয়েব সাঈদ, রামু:
কক্সবাজারের রামু উপজেলার বৌদ্ধ মন্দির সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ফলে দুর-দুরান্ত থেকে বৌদ্ধ বিহার দেখতে আসা পর্যটকসহ চলাচলে স্থানীয়দের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ২০১৭ সালের বন্যায় সড়কটির এমন দুরাবস্থা হয়। স্থানীয়রা বলছেন,বর্সার আগে সড়কটির সংস্কার কাজ না হলে দুর্ভোগ আরো বাড়বে।সরেজমিনে পরিদর্শনে দেখা যায়, চৌমুহনী থেকে চেরাংঘাটা পর্যন্ত সড়কটির দৈর্ঘ্য মাত্র এক কিলোমিটার। এরমধ্যে তেলীপাড়া সেতু থেকে চেরাংঘাটা পর্যন্ত আধা কিলেঅমিটারের মধ্যে ছোট বড় অসংখ্য গর্তের সৃষ্ঠি হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, বৌদ্ধ পূরার্কীতি ও প্রত্মতাত্মিক নির্দশনের জন্য সারাদেশে রামু উপজেলা বিখ্যাত। এসব পুরার্কীতির মধ্যে পাঁচটি প্রধান বৌদ্ধ বিহার এ সড়কে অবস্থিত। তাই সারা বছর পূরার্কীতি গুলো দেখার জন্য দেশী বিদেশী পর্যটকেরা এ সড়কে চলাচল করেন। কিন্তু সড়কটির দূরাবস্থার কারণে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে পর্যটকদের। সড়ক ভেঙে বড় গর্তে পানি জমে থাকায় আবার ছোট ছোট দূর্ঘটনাও ঘটছে। তারা অভিযোগ করেন, দীর্ঘ প্রায় এক বছর ধরে বেহাল অবস্থা হলেও সড়কটি সংস্কারের উদ্যোগ নেই।
টানা নয়দিনের ছুটিতে ঢাকার নারায়নগঞ্জ থেকে স্বপরিবারে কক্সবাজার বেড়াতে আসেন ব্যবসায়ি আব্দুর রহমান। কক্সবাজার আসার পরের দিন আসেন রামুতে বৌদ্ধমন্দির দেখতে। তারা জানান,চেরাংঘাটা রাখাইনদের ক্যাংটি দেখে মন ভরে গেছে। বিশালাকার কাঠ দিয়ে অর্র্পূব স্থাপত্য শৈলীতে তৈরী এখানকার বৌদ্ধ মন্দির গুলো যুগ যুগ ধরে মানুষকে কাছে টানবে। কিন্তু সড়কটির যে হাল হয়েছে, এরকম দূরাবস্থা দেখলে পর্যটকরা আসার উৎসাহ হারাবে।
রামু ডিগ্রী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ শিক্ষাবিদ প্রফেসর মোশতাক আহমদ জানান, বৌদ্ধ মন্দির সড়কটি শুধুমাত্র পূরার্কীতির জন্যই গুরুত্বপূর্ণ নয়, জেলার সবচেয়ে বড় ফকিরা বাজার, বাঁশ বাজার এবং পাবর্ত্য উপজেলা নাইক্ষ্যংছড়ি ও রামুর পূর্বাঞ্চল গর্জনিয়া কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের সাথে যোগাযোগের প্রধান সড়ক এটি। গুরুত্ব বিবেচনা করে সড়কটির দ্রুত সংস্কার জরুরী।
রামু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াজ উল আলম জানান,এটি উপজেলার সবচে জনগুরুত্বপূর্ণ সড়ক। গত বছর বন্যার কারণে সড়কের বিভিন্ন অংশ ক্ষতিগ্রস্থ হয়। কিছু অংশ কার্পেটিং থেকে আরসিসি করা হয়েছে। বাকি ক্ষতিগ্রস্থ আধা কিলোমিটারও আরসিসি সড়ক করার পরিকল্পনা চলছে।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::