বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৬:১৩ পূর্বাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

যতই চাপ আসুক পরীমণির সঙ্গে সমঝোতা করব না

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: রবিবার, ৩০ জুন, ২০২৪
যতই চাপ আসুক পরীমণির সঙ্গে সমঝোতা করব না


ঢাকা, ২৮ জুন – চিত্রনায়িকা পরীমণির সঙ্গে সমঝোতা করতে চাপ দেওয়া হচ্ছে বলে জানালেন ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদ। তবে যতই চাপ আসুক তিনি সমঝোতা করবেন না বলে জানিয়েছেন।

গত মঙ্গলবার ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদের দায়ের করা হত্যাচেষ্টা মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়েছেন পরীমণি। এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ছিলেন ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) গুলশানে বিভাগের সাবেক অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) গোলাম সাকলায়েন। পরীমণির সঙ্গে সম্পর্ক থাকার কারণে মঙ্গলবার তাকে চাকরিচ্যুত করার খবর সামনে এসেছে।

পরীমণির সঙ্গে কোনো সমঝোতার সম্ভাবনা আছে কি না, জানতে চাইলে সংবাদমাধ্যমকে নাসির উদ্দিন মাহমুদ বলেন, ‘এরইমধ্যে সমঝোতার প্রস্তাব এসেছে। বিভিন্নভাবে আমার ওপর কিছুটা চাপও এসেছে। কিন্তু আমি শেষ পর্যন্ত লড়ব এবং বিচার পাব বলে আশা করছি।’

চাপের মুখে পরীমণির সঙ্গে সমঝোতা করবেন কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘প্রশ্নই ওঠে না। আমার ওপর যতই চাপ আসুক আমি সমঝোতা করব না।’

চাপ কারা দিচ্ছে, এমন প্রশ্নের জবাবে নাসির উদ্দিন মাহমুদ বলেন, ‘তার (পরীমণি) সঙ্গে সমাজের অনেক বিশেষ ব্যক্তিদের সঙ্গে সম্পর্ক আছে বা ছিল। এরইমধ্যে আপনারা অনেক কিছু জেনেছেন। সেসব মহল থেকে চাপ আসতেই পারে।’

সাকলায়েন মামলার তদন্ত করতে গিয়ে পরীমণির সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান বলে তখন খবর প্রকাশিত হয়। তবে মামলার বাদী নাসির উদ্দিন মাহমুদ দাবি করলেন, আগে থেকেই সম্পর্ক ছিল পরীমণি ও সাকলায়েনের।

নাসির উদ্দিন মাহমুদ বলেন, ‘পরীমণির সঙ্গে গোলাম সাকলায়েনের সম্পর্ক অনেক আগে থেকেই ছিল। অর্থাৎ পরীমণি ও তার সঙ্গে ঘটে যাওয়া ঘটনার পূর্ব থেকেই। যেদিন তাকে (নাসির) গ্রেপ্তার করা হয় ডিবি থেকে সেদিন গোলাম সাকলায়েনের আসার অনুমতি ছিল না। তারপরও তাকে স্পটে দেখা গেছে। খুব উৎফুল্ল ছিলেন সাকলায়েন। ডিবি কার্যালয়ে নেওয়ার পর পরীমণিও সেখানে আসেন। সাকলায়েন তাকে সেখানে নিয়ে গেছেন।’

তিনি বলেন, ‘আমার ধারণা, সাকলায়েনের সঙ্গে সম্পর্কের কারণেই তাকে দিয়েই এমন কিছু ঘটিয়েছে বা এমন আরও সাকলায়েন থাকতে পারে।’

উল্লেখ্য, ২০২১ বোটক্লাবে ভাঙচুরের পর পরীমণির বিরুদ্ধে হওয়া মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ছিলেন সাকলায়েন। তখন পরীমণির সঙ্গে বেশ ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে ওঠে এ পুলিশ কর্মকর্তার। তেখন ১ মিনিট ৩৯ সেকেন্ডের একটি ভিডিও ফাঁস হয়। সেখানে দেখা যায়, নীল ও কালো বেলুনে সুসজ্জিত একটি কক্ষ, যেখানে রোম্যান্টিক অবস্থায় আছেন পরীমণি ও গোলাম সাকলায়েন। সাকলায়েনের জন্মদিনরে কেক কাটতেও দেখা যায় সেখানে।

আইএ/ ২৮ জুন ২০২৪





আরো খবর: