শিরোনাম ::
সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:০২ পূর্বাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

মন্ত্রী হতে মাসিক ৩ কোটি বেতনের চাকরি ছাড়ছেন এই ব্যক্তি!

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: মঙ্গলবার, ১২ মার্চ, ২০২৪
মন্ত্রী হতে মাসিক ৩ কোটি বেতনের চাকরি ছাড়ছেন এই ব্যক্তি!


ইসলামবাদ, ১১ মার্চ – বিশ্বব্যাপী ব্যাংকিং খাতে যে কয়েকজন সর্বোচ্চ বেতন পেয়ে থাকেন তাদেরই একজন পাকিস্তানের মুহাম্মদ আওরঙ্গজেব। প্রতি মাসে তিনি বেতন পান ৩ কোটি রুপি। শুধু তাই নয় তার রয়েছে ইউরোপের দেশ নেদারল্যান্ডসের নাগরিকত্বও। তবে এখন এমন সব লোভনীয় সুযোগ সুবিধা ত্যাগ করতে প্রস্তুত তিনি। কিন্তু হঠাৎ করে কেন এমন সিদ্ধান্ত নেবেন পাকিস্তানি এ নাগরিক?

জানা যায়, তিনি না কি সদ্য গঠিত পাকিস্তান সরকারের অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। এ লক্ষ্যে এরই মধ্যে পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ তথা পিএমএল-এন প্রধান নওয়াজ শরীফের সঙ্গে সাক্ষাৎও করেছেন আওরঙ্গজেব। এমন খবর জানা যায় পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম জিও নিউজের এক প্রতিবেদনে।

পাক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে জানা যায়, নিজের দ্বৈত নাগরিকত্ব ত্যাগের আবেদন করেছেন স্বনামধন্য এ ব্যাংকার। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর শেহবাজ শরিফের সভাপতিত্বে অর্থবিষয়ক প্রথম বৈঠকেও যোগ দিয়েছিলেন এই ব্যাংকার। আর সেই বৈঠকে অনুপস্থিত ছিলেন গত পিএমএলএন-পিপিপি জোট সরকারের সাবেক অর্থমন্ত্রী ইসহাক দার। পিএমএলএন সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, ইসহাক দারের অর্থমন্ত্রী হওয়ার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ। কেন্দ্রীয় সরকারের উল্লেখযোগ্য অন্য কোনো মন্ত্রণালয় তাকে দেওয়া হতে পারে।

মুহাম্মদ আওরঙ্গজেব বর্তমানে হাবিব ব্যাংক লিমিটেডের প্রেসিডেন্ট এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন। এইচবিএলের ২০২৩ সালের বার্ষিক রিপোর্ট অনুযায়ী বেতন ও অন্যান্য সুবিধাসহ তিনি মোট বছরে ৩৫ কোটি ২০ লাখ রুপি পেয়েছেন। এর অর্থ প্রতি মাসে তার বেতন ও অন্য সুবিধা মিলে পেতেন প্রায় ৩ কোটি রুপি।

প্রভাবশালী এ ব্যাংকার যখন লোভনীয় চাকরি ও দ্বৈত নাগরিকত্ব ত্যাগ করার মতো সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন তখন তিনি পাকিস্তানের জটিল অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জ কীভাবে সমাধান করবেন তা পুরোটাই অনিশ্চিত। বৃহস্পতিবার ওয়াশিংটনে সংবাদ সম্মেলনে আইএমএফের মুখপাত্র নিশ্চিত করেছেন, পাকিস্তানে নতুন মন্ত্রিপরিষদ গঠন হওয়ার পর স্ট্যান্ডবাই অ্যারেঞ্জমেন্ট কর্মসূচির অধীনে ৩০০ কোটি ডলার ঋণ অনুমোদন করতে প্রস্তুত আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)।

২০১৮ সালের এপ্রিল থেকে এইচবিএলের প্রেসিডেন্ট এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে যুক্ত আছেন মুহাম্মদ আওরঙ্গজেব। এর আগে তিনি জেপি মর্গানের গ্লোবাল করপোরেট ব্যাংক ইন এশিয়ার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করেন। আন্তর্জাতিক ব্যাংকিংয়ে তার আছে কমপক্ষে ৩০ বছরের সমৃদ্ধ অভিজ্ঞতা। তিনি আমস্টারডাম ও সিঙ্গাপুরভিত্তিক এবিএন এএমআরও এবং আরবিএস-এ দায়িত্ব পালন করেছেন। মুহাম্মদ আওরঙ্গ ইউনিভার্সিটি অব পেনসিলভ্যানিয়ার দ্য ওয়ার্টন স্কুল থেকে বিএস এবং এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেন। এমনকি পাকিস্তানের আরেক বিখ্যাত ব্যাংকার ও এইচবিএলের চেয়ারম্যান সুলতান আলি অ্যালানার অধীনে কাজ করছেন।

সূত্র: কালবেলা
আইএ/ ১১ মার্চ ২০২৪





আরো খবর: