বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০৬:৫৩ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

ভূমিকম্পে তুরস্কের ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য কম্বল দিল রোহিঙ্গা শরণার্থীরা

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: বৃহস্পতিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩
ভূমিকম্পে তুরস্কের ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য কম্বল দিল রোহিঙ্গা শরণার্থীরা




ভয়াবহ ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত তুরস্কের জনগণের জন্য কম্বল পাঠিয়েছে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীরা। ৭০০ কম্বল ও ২০০ জ্যাকেট পাঠানো হয়েছে। তুরস্কের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা আনাদোলু এজেন্সি এই তথ্য জানিয়েছে।

আনাদোলু এজেন্সি জানিয়েছে, কক্সবাজারের ক্যাম্পে বসবাসরত রোহিঙ্গা শরণার্থীরা তুরস্কে ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য অর্থ অনুদান দিয়েছে। সেই অর্থ দিয়ে কম্বল ও জ্যাকেট কেনা হয়েছে। বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় তুর্কি সহযোগিতা ও সমন্বয় সংস্থার অফিসে ওই সব পণ্যসামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।

বিপদের বন্ধুর প্রতি সংহতি জানাতেই এ উপহার দেওয়া বলে জানিয়েছেন রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের নেতা সাহাত জিয়া হিরো। তিনি বলেন, ‘সংকটের শুরুতেই তুরস্ক আমাদের সহযোগিতা করছিল। এখনও তারা সহযোগিতা অব্যাহত রেখেছে। আমাদের প্রিয় বন্ধুর এমন বিপদে আমরা কীভাবে চুপ থাকতে পারি? আমরা এখানে উদ্বাস্তু এবং আমাদের বেঁচে থাকার জন্য প্রচুর অনুদান প্রয়োজন। অন্যদের সহায়তার উপর আমরা নির্ভরশীল। তবে এই উপহার আমাদের তুর্কি ভাই ও বোনদের প্রতি সীমাহীন ভালবাসা এবং সংহতির প্রকাশ মাত্র।’

গত ৬ ফেব্রুয়ারি ভোরে ৭ দশমিক ৮ মাত্রার এই ভূমিকম্প আঘাত হানে। ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা ৪১ হাজার ছাড়িয়েছে। ভূমিকম্প আঘাত হানার নবম দিনে আরও নয়জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।

এ দিকে ভূমিকম্পে দুই দেশে সত্তর লাখের বেশি শিশু আক্রান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।  জাতিসংঘের শিশু সংস্থা ইউনিসেফ’র মুখপাত্র জেমস ইল্ডার জেনেভায় সাংবাদিকদের বলেন, ‘তুরস্কের ১০টি প্রদেশে ৪ দশমিক ৬ মিলিয়ন অর্থাৎ ৪৬ লাখের মতো এবং সিরিয়ায় এ সংখ্যা আড়াই মিলিয়ন অর্থাৎ ২৫ লাখ শিশু ভূমিকম্পে আক্রান্ত হয়েছে। এরই মধ্যে হাজার হাজার শিশু মারা গেছে। এখন থেকে মৃত্যুর সংখ্যাই যে বাড়তে থাকবে।’ সূত্র সমকাল









আরো খবর: