বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০১:২০ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

ভারতের জাতীয় সংগীত গাইতে বলায় ধরা খেলেন বাংলাদেশি

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি, ২০২৩
ভারতের জাতীয় সংগীত গাইতে বলায় ধরা খেলেন বাংলাদেশি

ভারতীয় জাতীয় সংগীত গাইতে না পেরে ভারতে গ্রেফতার হয়েছেন এক বাংলাদেশি যুবক। গ্রেফতারকৃত যুবকের নাম জি. আনোয়ার হোসেন (২৮)। দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় তামিলনাড়ু রাজ্যের কোয়েম্বাটুরে বিমানবন্দরে গত সোমবার (২৩ জানুয়ারি) তাকে গ্রেফতার করা হয়। গত বুধবার (২৫ জানুয়ারি) পৃথক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস এবংইন্ডিয়া টুডে।

ভারতীয় একাধিক গনমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার তামিলনাড়ু রাজ্যের কোয়েম্বাটোর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন কর্মকর্তারা এক বাংলাদেশি নাগরিককে আটক পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে। অভিযুত্তের বিরুদ্ধে জাল পরিচয় ব্যবহার করে ভুয়া নথি তৈরির অভিযোগ আনা হয়েছে।পুলিশের তথ্য অনুযায়ী, গ্রেপ্তারকৃত জি. আনোয়ার হোসেন বাংলাদেশের ময়মনসিংহ জেলার পেয়ারি গ্রামের বাসিন্দা। গত সোমবার তিনি এয়ার আরাবিয়ার একটি ফ্লাইটে সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) শারজাহ থেকে কোয়েম্বাটোর বিমানবন্দরে অবতরণ করেন। ইমিগ্রেশনের সময় বিমানবন্দরের কর্মকর্তারা তাকে তার ভ্রমণের কাগজপত্র দেখাতে বলেন। এসময় আনোয়ার হোসেন তার ভারতীয় পাসপোর্ট এবং জন্ম সনদ কর্মকর্তাদের কাছে উপস্থাপন করেন।

পরবর্তীতে অভিযুক্ত আনোয়ারের নথিপত্র নিয়ে সন্দেহ দেখা দিলে কর্মকর্তারা তাকে ভারতীয় জাতীয় সংগীত গাইতে বলেন। এই সময় অভিযুক্ত স্বীকার করেন, তিনি বাংলাদেশের বাসিন্দা এবং জাল নথি ব্যবহার করে ভারতীয় পাসপোর্ট পেয়েছেন। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত এই যুবক আসলে ভারতীয় নন। তিনি বাংলাদেশ থেকে ভারতে গিয়ে ভুয়া নথি ব্যবহার করে পাসপোর্ট বানিয়েছেন। এমনকি তামিলনাড়ুর তিরুপুরে গত ২ বছর ধরে তিনি কাজও করেছেন।তার পাসপোর্টে পশ্চিমবঙ্গের ঠিকানা রয়েছে এবং এই পাসপোর্ট দিয়েই আনোয়ার সংযুক্ত আরব আমিরাতে চলে যায়। গ্রেপ্তারের পর পুলিশ আনোয়ারের বিরুদ্ধে ফরেনার্স অ্যাক্টের ধারায় মামলা করেছে। পরে তাকে বিচার বিভাগীয় হেফাজতে পাঠানো হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, আনোয়ার বলেছেন- তিনি ২০২০ সাল পর্যন্ত তিরুপুরের একটি সংস্থায় কাজ করেছিলেন এবং পরে চাকরির জন্য সংযুক্ত আরব আমিরাতে চলে যান। এখন আবার তিরুপুরে চাকরিতে যোগ দেওয়ার জন্য ভারতে ফেরেন। বিচারবিভাগীয় হেফাজতে রিমান্ডে নেওয়ার পর আনোয়ারকে চেন্নাইয়ের পুজল কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।


আরো খবর: