বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০১:২৫ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: শনিবার, ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩


বাংলাদেশ গণ অধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুর বলেছেন, যে সংবিধানকে কাটাছেঁড়া করে বাকশালি সংবিধানে রূপান্তরিত করা হয়েছে, সেই সংবিধান দিয়ে জনগণের অধিকার রক্ষা হবে না। তাই এই সরকারকে জনগণের দাবির প্রতি সম্মান জানিয়ে অবিলম্বে পদত্যাগ করে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে।

শুক্রবার (৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিদ্যুতের অস্বাভাবিক দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে গণ অধিকার পরিষদের বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

নুরুল হক নুর বলেন, এক মাসে দুই বার বিদ্যুৎ এর দাম বাড়িয়ে এই সরকার জনগণের সঙ্গে ভণ্ডামি করছে, ধোঁকাবাজি করছে। সরকার বাণিজ্যিক পর্যায়ে গ্যাস এবং বিদ্যুতের যে মূল্য বাড়িয়েছে, যার ফলে কলকারখানা, গার্মেন্টস এবং শিল্প প্রতিষ্ঠানের সব খরচ বেড়ে যাবে। ফলে এই ব্যয়ভার জনগণের ওপরে তারা চাপিয়ে দেবে।

তিনি বলেন, গত ৩২ বছর দুটি দল দেশ চালিয়েছে, আপনারা কি বলতে পারবেন কখনো তারা জনগণের জন্য কাজ করেছে? কখনও জনগণ ভালো ছিল, সুখে ছিল? বরং এই সময়ে যে দল যখনই ক্ষমতায় ছিল তখনই সে বিরোধীদেরকে নির্মূল করে একদলীয় শাসন কায়েম করার পায়তারা করেছে। ১৯৯৬ সালে এই সরকার তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে ১৭৬ দিন জ্বালাও-পোড়াও আন্দোলন করে দেশে একটি নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি তৈরি করেছিল। আবার তারাই সংবিধান থেকে তত্ত্বাবধায়ক সরকার বাতিল করেছে।

নুর বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ থাকলে গণ অধিকার পরিষদ একক ভাবে প্রার্থী দেবে। এ নিয়ে বিভ্রান্ত হওয়ার সুযোগ নেই। আমরা গণতন্ত্র মঞ্চের সঙ্গে যেমন আছি, তেমনি বৃহৎ স্বার্থে অন্য সব বিরোধী দলগুলোকে নিয়ে বৃহৎ ঐক্য গড়ে তুলতে চাই।

বিক্ষোভ সমাবেশের সঞ্চালনা করেন গণ অধিকার পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান খান ও সাইফুল্লাহ হায়দার। এতে আরও বক্তব্য রাখেন যুগ্ম-আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খান, ফারুক হাসান, সোহরাব হোসেন, যুগ্ম সদস্য সচিব আতাউল্লাহ, তারেক রহমান, মহানগর দক্ষিণের সদস্য সচিব ইসমাইল হোসেন, ছাত্র অধিকার পরিষদের সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা ও যুব অধিকার পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নাদিম হাসান।

বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে হারিকেন মিছিল নিয়ে নয়াপল্টন মোড়, কাকরাইল, নাইটিঙ্গেল, ফকিরাপুল মোড় হয়ে পুরানা পল্টনে গণঅধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়।

সূত্র: ঢাকা পোস্ট

 


আরো খবর: