শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ০৫:৫৮ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

ঢাকার বাতাসের মানে আজও উন্নতি নেই

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০২৪
ঢাকার বাতাসের মানে আজও উন্নতি নেই


ঢাকা, ২১ মে – ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব পড়েছে দেশে। যার প্রভাবে দুদিন ধরেই আকাশ মেঘলা। বৃষ্টিও হয়েছে দেশের বিভিন্ন এলাকায়। যা আরও বাড়বে বলে জানানো হয়েছে। তবে এর মধ্যেও থেমে নেই বায়ুদূষণ। দিন দিন বেড়েই চলেছে।

মঙ্গলবার (২১ মে) সকাল ১০টা পর্যন্ত দেখা গেছে ঢাকার বাতাস রয়েছে আগের মতোই। ১৪০ স্কোর নিয়ে ঢাকার বাতাস অস্বাস্থ্যকর অবস্থায় রয়েছে।

আন্তর্জাতিক বায়ুমান প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান আইকিউএয়ারের মানদণ্ড অনুযায়ী দূষিত শহরের তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে রাজধানী ঢাকা। এ তালিকায় ২৬৫ স্কোর নিয়ে শীর্ষে রয়েছে ভারতের রাজধানী দিল্লি।

এ ছাড়াও ১৮৬ স্কোর নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে মিসরের রায়রো সিটি, ১৮০ স্কোর নিয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ঢাকা। এছাড়া ১৭১ স্কোর নিয়ে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে ভিয়েতনামের হ্যানয় এবং পঞ্চম অবস্থানে থাকা কঙ্গোর গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র কিনশাসা।

আইকিউএয়ারের মানদণ্ড অনুযায়ী, স্কোর ৫১ থেকে ১০০ হলে তাকে ‘মাঝারি’ বা ‘গ্রহণযোগ্য’ মানের বায়ু হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ১০১ থেকে ১৫০ স্কোরকে ‘সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর’ ধরা হয়। স্কোর ১৫১ থেকে ২০০ হলে তা ‘অস্বাস্থ্যকর’ বায়ু। স্কোর ২০১ থেকে ৩০০ হলে তাকে ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’ বায়ু ধরা হয়। ৩০১ থেকে তার ওপরের স্কোরকে ‘দুর্যোগপূর্ণ’ বা ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ ধরা হয়।

বিশেষজ্ঞদের মতে দিনের পর দিন ঢাকায় বায়ুদূষণ বেড়েই চলেছে। এর ৩টি প্রধান উৎস হলো- ইটভাটা, যানবাহনের ধোঁয়া ও নির্মাণ সাইটের ধুলো।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) তথ্য অনুসারে, বিশ্বে বায়ুদূষণের ফলে স্ট্রোক, হৃদরোগ, ক্রনিক অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ, ফুসফুসের ক্যানসার এবং তীব্র শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণ বাড়ছে। বিশেষজ্ঞদের মতে দিনের পর দিন ঢাকায় বায়ুদূষণ বেড়েই চলেছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) তথ্য অনুসারে, বিশ্বে বায়ুদূষণের ফলে স্ট্রোক, হৃদরোগ, ক্রনিক অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ, ফুসফুসের ক্যানসার এবং তীব্র শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণ বাড়ছে।

সূত্র: কালবেলা
আইএ/ ২১ মে ২০২৪

সম্পুর্ন খবরটি পড়ার জন্য এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ::ঢাকার বাতাসের মানে আজও উন্নতি নেই first appeared on DesheBideshe.



আরো খবর: