শিরোনাম ::
মিয়ানমারের নৌবাহিনীর গুলিতে ২ বাংলাদেশি গুলিবিদ্ধ পেকুয়ায় আরো দুটি অবৈধ করাতকল সিলগালা চকরিয়া বদরখালীতে গুলি করে হাত-পা কেটে যুবককে খুনের মামলার আসামি শাকিল গ্রেপ্তার রামুতে বৌদ্ধদের স্বর্গপূরী উৎসবে নারী-পুরুষের ঢল পালিয়ে বাংলাদেশে বিজিপির আরও ১১ সদস্য টেকনাফ র‍্যাবের পৃথক অভিযানে সাজাপ্রাপ্ত ওয়ারেন্টভুক্ত ৪ আসামী গ্রেফতার র‍্যাবের অভিযানে স্বামী হত্যায় পরকীয়া প্রেমিকসহ স্ত্রী গ্রেফতার পেকুয়ায় রেঞ্জ কর্মকর্তাকে টাকা দিলেই মেলে পাহাড় কাটার অনুমতি নির্বাচনী কর্মকর্তাদের কক্সবাজার ভ্রমণের লোভ দেখালেন চেয়ারম্যান প্রার্থী শখের বাইক নিয়ে আসা হলো না কক্সবাজার, পিকআপের ধাক্কায় প্রাণ গেল যুবকের
রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:২১ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

টেকনাফে ক্ষেত পাহারার সময় ৫ কৃষককে অপহরণ

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: শুক্রবার, ২২ মার্চ, ২০২৪

আব্দুস সালাম,টেকনাফ(কক্সবাজার)::

কক্সবাজারের টেকনাফের হ্নীলা এলাকায় দুই কিশোরসহ পাঁচজনকে অস্ত্রের মুখে অপহরণের অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের পশ্চিম পানখালী পাহাড়ি এলাকায় নিজেদের ক্ষেত পাহারা দেওয়ার সময় তাঁদের অপহরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলী এ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মুক্তিপণের জন্য দীর্ঘদিন ধরে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা স্থানীয় বাসিন্দাদের অপহরণ করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় ভোরে ৫ জন কৃষককে অপহরণ করে গহিন পাহাড়ের দিকে নিয়ে গেছে সন্ত্রাসীরা।

অপহৃতদের মধ্যে মোহাম্মদ শামীম (১৮),মোহাম্মদ রাফিক (১৮) ও মোহাম্মদ নুর (২২) নামের তিনজন রয়েছেন, অপর দুজন কিশোর। তাঁরা সবাই হ্নীলা ইউনিয়নের পশ্চিম পানখালী গ্রামের বাসিন্দা।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা বলেন, টেকনাফের পাহাড়ি এলাকা থেকে প্রায়ই কৃষকসহ স্থানীয় বাসিন্দাদের অপহরণ করা হচ্ছে। অপহরণের পর তাঁদের মারধরসহ নির্যাতন করে মুক্তিপণের জন্য পরিবারের কাছে ভিডিও বার্তা পাঠানো হয়। মুক্তিপণ না দিলে অপহৃতদের হত্যার হুমকি দেয় অপহরণকারীরা। এসব ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দারা আতঙ্কে রয়েছেন।

এ ব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ ওসমান গনি বলেন, ‘অপহরণের বিষয়টি লোকমুখে শুনেছি, কেউ অভিযোগ করেননি। তবুও পুলিশ গুরুত্ব দিয়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।’

উল্লেখ্য,গত ১২ মাসে টেকনাফের বিভিন্ন এলাকা থেকে ১০৭ জনকে অপহরণের ঘটনা ঘটেছে। এরই মধ্যে ৫৭ জন স্থানীয় বাসিন্দা, বাকিরা রোহিঙ্গা নাগরিক। অপহরণের শিকার ব্যক্তিদের মধ্যে অন্তত ৪৭ জন মুক্তিপণ আদায় করে ছাড়া পেয়েছেন বলে ভুক্তভোগীদের পরিবার সূত্রে জানা গেছে।


আরো খবর: