নিজস্ব প্রতিবেদক,চকরিয়া::

কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সঙ্গে ভুল বুঝাবুঝির অবশান শেষে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ কর্তৃক চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাফর আলম এমপি এবং পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটুকে স্বপদে বহাল রাখায় দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ জনতার পক্ষ থেকে তাদেরকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। বুধবার (১৬ জুন) বিকেল চারটার দিকে চকরিয়ার হারবাং ইনানী রিসোর্টে এই সংবর্ধনা দেওয়া হয়।
এ উপলক্ষে গতকাল দুপুরের পর থেকে চকরিয়া উপজেলা, পৌরসভা, পেকুয়া উপজেলা ও মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ, শ্রমিকলীগসহ দলের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের হাজারো নেতাকর্মী সংবর্ধনাস্থলে যোগ দেয়। এতে সংবর্ধনাস্থল জনসভায় রূপ নেয়।
গণসংবর্ধনা শেষে এমপি জাফর আলম ও জাহেদুল ইসলাম লিটু চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের মোটর শোভাযাত্রাসহকারে হারবাং থেকে চকরিয়া পৌরশহরে আসেন। শোভাযাত্রার বহরটি ছিল মোটর সাইকেলসহ অন্তত পাঁচ শতাধিক গাড়ির। এ সময় হুট খোলা গাড়িতে দাঁড়িয়ে এমপি জাফর আলম মহাসড়কের দুইপাশে দাঁড়ানো শত শত নারী-পুরুষকে হাত নেড়ে অভিবাদন জানান।
হারবাং ইনানী রিসোর্টের গণসংবর্ধনায় সভাপতিত্ব করেন মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পশ্চিম বড় ভেওলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বাবলা। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতির পদ ফিরে পাওয়া কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ জাফর আলম। প্রধান বক্তা ছিলেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য লায়ন কমরুদ্দীন আহমেদ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এস এম জাহাঙ্গীর আলম বুলবুল, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু, পেকুয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, চকরিয়া উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জেসমিন হক জেসি চৌধুরী, কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ জয়, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, সহ-সভাপতি সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আবু মুছা ও সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ওয়ালিদ মিল্টন, সহসভাপতি তপন কান্তি দাশ, পৌরসভার প্যানেল মেয়র বশিরুল আইয়ুব, কাকারার শওকত ওসমান, লক্ষ্যাচরের সভাপতি রেজাউল করিম সেলিম, খুটাখালীর সভাপতি জয়নাল আবেদীন, হারবাংয়ের সভাপতি চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলাম মিরান, কোনাখালীর চেয়ারম্যান দিদারুল হক সিকদার, চকরিয়া পৌরসভার কাউন্সিলর রেজাউল করিম, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কাউছার উদ্দিন কছির, চকরিয়া পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি হাসানগীর হোছাইন, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক এইচ এম শওকত, চকরিয়া পৌরসভা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা পারভেজসহ বিভিন্ন ইউনিটের দায়িত্বশীল নেতৃবৃন্দ।
সংবর্ধনার জবাবে প্রধান অতিথি চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও এমপি জাফর আলম দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাথে আমাদের ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল। তা অল্পসময়ের মধ্যে কেটে গেছে। এখন থেকে আমরা সবাই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনার কর্মী। আমরা এক এবং অভিন্ন। আমাদের মধ্যে কোন ধরণের বিরোধ নেই।
এমপি জাফর আলম আরো বলেন, আমাদের মধ্যে অনৈক্য মানেই হলো, বিএনপি-জামায়াতকে প্রশ্রয় দেওয়া। তাই ভবিষ্যতে জেলা আওয়ামী লীগ সেইদিকেই লক্ষ্য রেখে দলের রাজনীতি উপহার দেবেন বলে আমাদের বিশ্বাস।
প্রসঙ্গত সাম্প্রতিক সময়ে সৃষ্ট কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ বনাম চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সংসদ সদস্য জাফর আলমের মধ্যে সৃষ্ট বিরোধ নিষ্পত্তি করে দেয় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ। ঢাকায় দুইপক্ষকে ডেকে নিয়ে সেখানে কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতে ভুল বুঝাবুঝির অবসানও করে দেওয়া হয়। এ সময় নির্দেশনা দেওয়া হয় বৃহস্পতিবার উপজেলা আওয়ামী লীগের কর্মীসভা করার জন্য।
এর আগে জেলা আওয়ামী লীগ কর্তৃক চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাফর আলম এবং পৌরসভার সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটুকে দলের পদ থেকে সাময়িক অব্যাহতি দেয়। এর প্রতিক্রিয়ায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক অবরোধ, বিক্ষোভ মিছিল, প্রতিবাদ সভা ও সাংবাদিক সম্মেলন করা হয়। পরবর্তীতে দলীয় এই বিরোধ নিরসনে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ ঢাকায় ডেকে নিয়ে যান কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগ এবং চকরিয়া উপজেলা ও পৌরসভা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দকে। ##

এই জাতীয় আরো খবর::

সম্পাদক: সাঈদ মোহাম্মদ আনোয়ার

নির্বাহী সম্পাদক: ফারুক আহমদ
মোবাইল: ০১৮৫৭-৭৩৫৭৩৫
ইমেইল: coxsbazarpost24@gmail.com


কক্সবাজার অফিস: হোটেল তাজসেবা, ২য় তলা,সদর থানার পিছনের সড়ক, পৌরসভার রেষ্ট হাউজ সংলগ্ন, কক্সবাজার।
উখিয়া অফিস: ফরিদ ম্যানশন (১ম তলা), মসজিদ রোড়, কোটবাজার, উখিয়া।
রামু অফিস: এন আমিন প্লাজা (২য় তলা), ফুটবল চত্বর, রামু বাইপাস, রামু।