বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ১১:০৮ পূর্বাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

চকরিয়ায় বসতঘরে ঢুকে নগদ টাকা ও ৬ ভরি স্বর্ণালঙ্কার লুট

নিজস্ব প্রতিবেদক,চকরিয়া ::
আপডেট: সোমবার, ২৯ এপ্রিল, ২০২৪

কক্সবাজারের চকরিয়ায় দিনেদুপুরে ধারালো কিরিচ হাতে ভীতি দেখিয়ে বসতবাড়িতে ঢুকে হামলা তাণ্ডব চালিয়ে আলমিরা ভেঙে নগদ ২ লাখ ৮৬ হাজার টাকা ও ৬ ভরি স্বর্নালঙ্কার লুটের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় চকরিয়া থানায় গৃহকর্তা ফরিদ আলম বাদি হয়ে হামলাকারী পাঁচজনের নামোল্লেখ করে আরও ৫-৬ জনের বিরুদ্ধে একটি এজাহার জমা দিয়েছেন।
অভিযোগ উঠেছে, থানায় অভিযোগ দেয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে হামলাকারীরা পুনরায় দ্বিতীয়বার ওই বাড়িতে ঢুকে বেদড়ক পিটিয়ে গৃহকর্ত্রী ছফুরা বেগমের (৪৫) মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের উত্তরপাড়া রেলরাস্তার পুর্বপাশের গ্রামে ঘটেছে এ হামলা ও লুটপাটের ঘটনা।

চকরিয়া থানায় জমা দেওয়া এজাহারে বাদি ফরিদ আলম (৫৫) বলেন, পুর্ব বিরোধের জের ধরে স্থানীয় বশির আহমদ এর নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী গত ২৫ এপ্রিল বেলা এগারোটার দিকে অর্তকিত ধারালো কিরিচ হাতে আমার বাড়িতে ঢুকে পড়ে। এসময় বাড়িতে পুরুষ সদস্য কেউ ছিলনা। এসুযোগে বাড়ির নারীদের ভয়ভীতি দেখিয়ে আলমিরা ভেঙে নগদ ২ লাখ ৮৬ হাজার টাকা ও ৬ ভরি স্বর্ণালঙ্কার লুট করে নিয়ে যায়।
এ ঘটনায় আমি বাদি হয়ে চকরিয়া থানায় হামলার ঘটনায় জড়িত বশির আহমদ, মনির উদ্দিন, আরিফুল ইসলাম, রমিজ উদ্দিন, শাহাব উদ্দিনকে আসামি করে একটি এজাহার জমা দিই। পরে থানার এসআই সাকিব এর নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তদন্ত করে চলে যায়।

ভুক্তভোগী গৃহকর্তা ফরিদ আলম গতকাল সোমবার চকরিয়া প্রেসক্লাবে এসে অভিযোগ করে বলেন, হামলাকারীদের বিরুদ্ধে চকরিয়া থানায় অভিযোগ দেয়ায় তাঁরা আমাদের উপর ক্ষিপ্ত হন। এর জেরধরে পুনরায় তাঁরা দলবদ্ধ হয়ে রোববার ২৮ এপ্রিল রাত আনুমানিক আটটার দিকে আমার বাড়িতে ঢুকে দ্বিতীয় দফা হামলা চালায়। এসময় তাঁরা আমার স্ত্রী ছফুরা বেগমকে বাড়িতে একা পেয়ে এলোপাতাড়ি বেদড়ক পিটিয়ে তাঁর মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে। এসময় বাড়ির একটি অংশে ভাংচুর চালিয়ে ব্যাপক ক্ষতিসাধন করেছে।

এব্যাপারে জানতে চাইলে গতকাল রাতে চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মোহাম্মদ আলী বলেন, থানায় অভিযোগ দেয়ার জেরে যদি বাদিপক্ষের উপর হামলার ঘটনা ঘটে, তাহলে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। আমি এখনই বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখার জন্য থানার এসআই সাকিবকে বলছি।


আরো খবর: