শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৭:৪১ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

চকরিয়ায় নির্বাচনের বছর পর মেম্বারপ্রার্থীর পরিবারকে পাথর চুরির অভিযোগে হয়রানি!

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: বুধবার, ৯ নভেম্বর, ২০২২

এম জিয়াবুল হক, চকরিয়া ::

২০২১ সালের ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়েছে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ফাসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। ওই নির্বাচনে ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড থেকে মেম্বার পদে প্রার্থী হয়েছিলেন তরুন সমাজ সেবক ইলিয়াছ হাবিব। জনগনের ভোটে বিজয়ী হন রফিক আহমদ। নিকটতম হয়েছিলেন সাবেক মেম্বার এজাহার হোছাইন ও অপর প্রার্থী ইলিয়াছ হাবিব।
এলাকাবাসি বলছেন, এগার মাস আগে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ইলিয়াছ হাবিব প্রার্থী হবার কারণে ভোটের মাঠে পরাজিত হন সাবেক মেম্বার এজাহার হোছাইন। সেই পরাজয়ের বেদনা ও জমেথাকা ক্ষোভ এখনো তাঁড়া করছে এজাহার হোছাইনকে। এইজন্য তিনি অপর প্রার্থী ইলিয়াছ হাবিব ও তার পরিবারকে নানাভাবে হয়রাণির অপচেষ্ঠা চালিয়ে আসছেন। করছেন নানাধরণের চক্রান্ত।
মেম্বার প্রার্থী ইলিয়াছ হাবিবের বাবা বাদশা মিয়া অভিযোগ তুলে বলেন, আমার ছেলে ইলিয়াছ হাবিব ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী হবার কারণে এলাকার কতিপয় মহল তখন থেকে ইর্ষাণিত হয়েছে। এরই জেরধরে রবিবার রাতে কক্সবাজার চট্টগ্রাম মহাসড়কের চকরিয়া উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ভেন্ডিবাজার এলাকার ব্রিজের পাশ থেকে পাথর চুরির নাটকের জন্ম দেন পরাজিত মেম্বার প্রার্থী এজাহার হোছাইনের লোকজন।
তিনি দাবি করেন, সড়কের পাশ থেকে কোনধরণের পাথর উত্তোলন বা চুরি না হলেও তাঁরা আমার বড়ছেলে সাইফুল ইসলাম নেতৃত্বে ওসমান গণি, মাহিম ও ইব্রাহিম মিলে সাবল দিয়ে পাথর গুলো সরিয়ে ফেলে বলে বানোয়াট গল্প সাজিয়েছেন। সড়কের পাশের পুরো জায়গা আমার সম্পত্তি। কবরস্থানকে রাস্তা দিয়েছি। সেখানে কেন আমার ছেলেরা পাথর সরিয়ে নেবে। আমি এব্যাপারে প্রশাসনের নিরপেক্ষ তদন্ত চাই।
সরেজমিনে দেখা গেছে, সড়কের ওই পয়েন্টে বসানো পাথরগুলো টিকটাক অবস্থায় আছে। তবে কয়েকটি স্থানে কিছু ঝোপজঙ্গল পরিস্কার করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, কোন একটি চক্র পাথর লুটের জন্য এসব করেছে।

মেম্বার প্রার্থীর বড়ভাই সাইফুল ইসলাম ঘটনাস্থলে বলেন, আমার ছোট ভাই ২০২১ সালের ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত ফাসিয়াখালী ইউপি নির্বাচনে ৩ নং ওয়ার্ড থেকে মেম্বার প্রার্থী হয়েছিলেন। এখানে রফিক আহমদ নির্বাচিত হলেও পরাজিত হন আমার ভাই ইলিয়াছ হাবিব ও সাবেক মেম্বার এজাহার হোছাইন। আমরা নির্বাচনের ফলাফল মেনে নিয়েছি। কিন্তু আমার ভাই প্রার্থী হবার কারণে পরাজিত হয়েছে এমন অজুহাত তুলে নির্বাচনের পর থেকে এজাহার হোছাইন ও তার লোকজন আমার পরিবারের বিরুদ্ধে নানাধরণের অপচেষ্ঠা চালিয়ে আসছে।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, ইউপি নির্বাচনী পরাজয়ের প্রতিশোধের জেরে সর্বশেষ সড়কের পাথর চুরির ঘটনা সাজিয়ে আমার পরিবারকে হয়রাণির জন্য নতুন চক্রান্ত চালাচ্ছেন এজাহার হোছাইন ও তাঁর লোকজন। যদিও মঙ্গলবার ঘটনাস্থলে স্থানীয় সাংবাদিকরা স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে পাথর চুরির কোন সত্যতা উদঘাটন করতে পারেনি। এমনকি অন্যস্থানের ডিপো থেকে পাথরের ছবি তুলে তা দিয়ে ব্লাকমেইল করারও চেষ্ঠা করছে তারা। মুলত এলাকার ক্ষমতাসীন দলের কতিপয় মহলের চত্রছায়ায় চক্রটি আমার পরিবারকে হয়রাণির জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। আমরা এব্যাপারে জড়িক চক্রের বিরুদ্ধে প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছি। #


আরো খবর: