শিরোনাম ::
মিয়ানমারের নৌবাহিনীর গুলিতে ২ বাংলাদেশি গুলিবিদ্ধ পেকুয়ায় আরো দুটি অবৈধ করাতকল সিলগালা চকরিয়া বদরখালীতে গুলি করে হাত-পা কেটে যুবককে খুনের মামলার আসামি শাকিল গ্রেপ্তার রামুতে বৌদ্ধদের স্বর্গপূরী উৎসবে নারী-পুরুষের ঢল পালিয়ে বাংলাদেশে বিজিপির আরও ১১ সদস্য টেকনাফ র‍্যাবের পৃথক অভিযানে সাজাপ্রাপ্ত ওয়ারেন্টভুক্ত ৪ আসামী গ্রেফতার র‍্যাবের অভিযানে স্বামী হত্যায় পরকীয়া প্রেমিকসহ স্ত্রী গ্রেফতার পেকুয়ায় রেঞ্জ কর্মকর্তাকে টাকা দিলেই মেলে পাহাড় কাটার অনুমতি নির্বাচনী কর্মকর্তাদের কক্সবাজার ভ্রমণের লোভ দেখালেন চেয়ারম্যান প্রার্থী শখের বাইক নিয়ে আসা হলো না কক্সবাজার, পিকআপের ধাক্কায় প্রাণ গেল যুবকের
রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৫০ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

গাজায় কেউ আমাদের থামাতে পারবে না

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: সোমবার, ১৫ জানুয়ারি, ২০২৪
গাজায় কেউ আমাদের থামাতে পারবে না


জেরুজালেম, ১৪ জানুয়ারি – ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসকে নির্মূলের লক্ষ্য নিয়ে অবরুদ্ধ গাজা ভূখণ্ডে হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েল। তবে এই অভিযানে বিপুল সংখ্যক বেসামরিক মানুষের প্রাণহানির ঘটনায় বিশ্বজুড়ে সমালোচনার মুখে পড়েছে দেশটি।

অবিলম্বে যুদ্ধবিরতির দাবিও হয়ে উঠেছে বেশ জোরালো। এমনকি গণহত্যার অভিযোগে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিজে) ইসরায়েলের বিরুদ্ধে চলছে মামলাও। তবে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু বলেছেন, কেউই তাদের থামাতে পারবে না।

রোববার (১৪ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএফপি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গাজা উপত্যকায় হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে বিজয় অর্জন থেকে ইসরায়েলকে কেউ থামাতে পারবে না বলে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু শনিবার জানিয়েছেন।

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের চলমান আগ্রাসন রোববার ১০০তম দিনে পা দিচ্ছে। এই অবস্থায় শনিবার টেলিভিশনে সংবাদ সম্মেলনে নেতানিয়াহু বলেন, ‘কেউ আমাদের থামাতে পারবে না — দ্য হেগ (আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত) নয়, অ্যাক্সিস অব ইভিল (অশুভ শক্তি) নয় এবং অন্য কেউই নয়। বিজয় না হওয়া পর্যন্ত চালিয়ে যুদ্ধ যাওয়া সম্ভব ও এটা প্রয়োজনীয় এবং আমরা সেটাই করব।’

এএফপি বলছে, জাতিসংঘের শীর্ষ আদালত বলে পরিচিত দ্য হেগের আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে দায়ের করা একটি মামলার কথা উল্লেখ করে নেতানিয়াহু এসব কথা বলেন। ওই মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, ইসরায়েলের আক্রমণ জাতিসংঘের গণহত্যা কনভেনশন লঙ্ঘন করেছে।

এছাড়া মধ্যপ্রাচ্যের চারপাশে ইরান-সমর্থিত সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর জোটকে ‘প্রতিরোধের অক্ষ শক্তি’ বলে ডাকা হয়। নেতানিয়াহু দাবি করেন, গাজায় তার বাহিনীর সামরিক হামলা ইতোমধ্যেই অবরুদ্ধ ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে থাকা ‘হামাস ব্যাটালিয়নের বেশিরভাগকেই নির্মূল করেছে’।

তবে তিনি বলেন, উত্তর গাজা থেকে যারা বাস্তুচ্যুত হয়েছেন তারা শিগগিরই তাদের বাড়িতে ফিরতে পারবেন না।

তার ভাষায়, ‘আন্তর্জাতিক আইনে একটি সাধারণ কথা বলা আছে। আর তা হচ্ছে- আপনি কোনও এলাকা থেকে যদি জনসংখ্যাকে সরিয়ে দেন, তাহলে যতক্ষণ পর্যন্ত বিপদ থাকবে ততক্ষণ আপনি তাদেরকে ফিরে আসতে দেবেন না।’

নেতানিয়াহুর দাবি, ‘এবং সেখানে এখনও বিপদ বিদ্যমান। সেখানে (উত্তর গাজায়) যুদ্ধ চলছে।’

অবশ্য এর আগে গত ডিসেম্বরেও কোনও কিছুই ইসরায়েলকে থামাতে পারবে না বলে দাবি করেছিলেন নেতানিয়াহু।

সেসময় এক ভিডিওবার্তায় ইসরায়েলি এই প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা শেষ অবধি লড়াই চালিয়ে যাব। এ নিয়ে কোনও প্রশ্নই নেই। আন্তর্জাতিক চাপের মধ্যে আমি অত্যন্ত বেদনা নিয়ে এসব কথা বলছি। কিছুই আমাদের থামাতে পারবে না। আমরা শেষ পর্যন্ত লড়ব, জয় না হওয়া পর্যন্ত, এর চেয়ে কম কিছু হবে না।’

সূত্র: ঢাকা পোস্ট
আইএ/ ১৪ জানুয়ারি ২০২৪





আরো খবর: