সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ১২:৩৫ অপরাহ্ন
ঘোষণা:
কক্সবাজার পোস্টে আপনাকে স্বাগতম, আমাদের সাথে থাকুন,কক্সবাজারকে জানুন......

গাছ কাটার অভিযোগে নাইক্ষ্যংছড়ির সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান জেলে!

নিজস্ব প্রতিবেদক::

প্রকাশ: জানুয়ারি ২৭, ২০২১ ৯:৩০ পূর্বাহ্ণ | সম্পাদনা: জানুয়ারি ২৭, ২০২১ ৯:৩০ পূর্বাহ্ণ

গাছ কাটার অভিযোগে নাইক্ষ্যংছড়ির সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল আবছার জেলে। নাইক্ষ্যংছড়ির থানায় ১০/২০২১ জিআর মামলায় জামিন নিতে গেলে ২৬ জানুয়ারী মঙ্গলবার বান্দরবান জডিশিয়াল আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেলে প্রেরণ করেন।

যদিওবা ২৭ জানুয়ারী বুধবার তিনি আদালত তাকে জামিন প্রদান করে বলে জানা যায়। বাদী আল মামুন ছিদ্দিকীর আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশে গত ২৫ জানুয়ারী নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় সাং ২৬৭ নং ঘুমধুম মৌজার হাজ্বী নুর আহমদ সওদাগরের পুত্র নুরুল আবছার(সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান), ঘুমধুম আজুখাইয়া এলাকার মৃত গুরা চাঁনের পুত্র আবদুল গফুর ও মোঃ বাদশা, ঘুমধুমের কচুবনিয়া এলাকার নবী হোসেনের পুত্র মোঃ ইউনুস এবং একই এলাকার মোহাম্মদ মামুনসহ অজ্ঞাত আরো ২০-২৫জনকে আসামী করে নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় জিআর ১০/২০২১ মামলা লিপিবদ্ধ হয়।উক্ত মামলায় জামিন নিতে গেলে আদালত নুরুল আবছারের জামিন নামঞ্জুর করে জেলে প্রেরণ করেন।

বাদী ও এজাহার সুত্রে জানা যায়,নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ২৭১ নং তুমব্রু মৌজার আওতাধীন হোল্ডিং নং-রাবার-৩০ দাগ নং-৩৭,যার সিট নং৩ এর আন্দর ২৫ একর তৃতীয় শ্রেণি জমির রেকর্ডীয় মালিক ছিলেন বাদী আল মামুন সিদ্দিকীর পিতার নামীয় প্রতিষ্ঠান মের্সাস নুরুল ইসলাম প্রযত্মে এইচ.এম.সিদ্দিকী। ‍উক্ত রাবার প্লট তাহার নামীয় প্রতিষ্ঠানের নামে ১৯৮০-৮১ইং সনে ১০৪১(ডি)রাবার বন্দোবস্তীমুলে প্রাপ্ত হয়ে তথায় প্রথমে রাবার সৃজন করে ভোগদখলে থাকাকালীন রাবারে লাভবান হতে না পারায় পরবর্তীতে আকাশমনি সৃজন করে আসতেছিলেন। এছাড়া উক্ত জায়গার বিপরীতে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক থেকে বিগত ২৯/১২/১৯৮৮ ইং সনে ৪,০০৫০০(চার লক্ষ পাঁচশত)টাকা ঋণ গ্রহন করেন। যা অদ্যবদি অপরিশোধিত অবস্থায় রয়েছে।

এদিকে লোভের বশীভূত হয়ে নুরুল আবছারের নেতৃত্বে উল্লেখিত আসামীগণ গত ৪ জানুয়ারী সকাল ৭টায় দা,কুড়াল,করাত ও দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বেআইনীভাবে সৃজিত আকাশমনি বাগানে প্রবেশ করে ১০/১২ বছর বয়সের ৫০০টির অধিক গাছ কর্তর করে গাড়ি যোগে অনত্র পাচার করেছে।যার আনুমানিক মুল্য ৫ লক্ষ টাকার অধিক।পরবর্তীতে বাদী ও বাগানের মালিক আল মামুন সিদ্দিকী ঘুমধুম তদন্তকেন্দ্রে বিষয়টি অবহিত করলে এস.আই রবিউলের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গেলে আসামীগণ সটকে পড়ে।পরবর্তীতে উক্ত ঘটনায় নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় আসামীগণের বিরুদ্ধে নিয়মিত মালমলা লিপিবদ্ধ হয়। এদিকে গাছ কাটার মুলহোতা প্রধান আসামী নুরুল আবছারের জামিন নামঞ্জুর হওয়ায় ক্ষুব্ধ ও আক্রোশের বশীভূত হয়ে তার ছেলে শাহনেওয়াজের নেতৃত্বে ২৬ জানুয়ারী সোমবার দুপুর থেকে নতুন করে গাছ কাটা অব্যাহত রেখেছে। ইতিমধ্যে প্রায় ৩০ গাড়ির অধিক গাছ কেটে তা ৪নং আসামী মোঃ ইউনুচের বাড়িতে মজুদ করেছে।পাশাপাশি মামলার বাদী আল মামুন সিদ্দিকীকে নানা মাধ্যমে প্রাননাশের হুমকি, অপহরণ ও মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানী করার হুমকি দিচ্ছে আসামীগণ ও অপরাপর সন্ত্রাসীরা। নতুনকরে গাছ কাটার বিষয়ে ঘুমধুম পাড়ির ইনচার্জ দেলওয়ার হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি গত ২দিন ধরে বান্দরবান অবস্থান করছেন এবং বান্দরবান থেকে আসলে বিষয়টা দেখবেন বলে জানান। এব্যাপারে ভুক্তভোগী বাগান মালিক আল মামুন সিদ্দিকী প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::