শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ০৫:০৭ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

খারকিভ অঞ্চলে রাশিয়ার হামলা জোরদার

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০২৪
খারকিভ অঞ্চলে রাশিয়ার হামলা জোরদার


কিয়েভ, ২০ মে – ইউক্রেনের উত্তর-পূর্বে খারকিভ অঞ্চলে রাশিয়ার হামলায় হতাহতের সংখ্যা বাড়ছে। ইউক্রেনও রুশ ভূখণ্ডে পাল্টা হামলা চালাচ্ছে। জেলেনস্কি আরও প্যাট্রিয়ট সিস্টেম সরবরাহের আবেদন করছেন। ইউক্রেনের সেনাবাহিনী খারকিভ অঞ্চলে রাশিয়ার সেনাবাহিনীকে আরও এগোতে দিচ্ছে না বলে দাবি করলেও মস্কো জোরালো হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। গত ১০ মে থেকে চলে আসা হামলা মোকাবিলা করতে হিমশিম খাচ্ছে ইউক্রেনের সেনাবাহিনী। রোববার শহরের উপকণ্ঠে জোড়া হামলায় কমপক্ষে ১১ জন নিহত হয়েছেন।

ইউক্রেনের সূত্র অনুযায়ী, রাশিয়ার ভূখণ্ডে বেলগোরোদ অঞ্চল থেকে প্রথমে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়। তারপর একই লক্ষ্যবস্তুর ওপর দ্বিতীয় হামলা চালায় রাশিয়া। ফলে উদ্ধারকারী প্যারামেডিক্স ও পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের মধ্যেও হতাহতের খবর পাওয়া যাচ্ছে। এই ঘটনায় ছয় জন নিহত ও আরও ২৭ জন আহত হয়েছেন। রাশিয়ার বিরুদ্ধে আগেও ইউক্রেনে এমন ‘ডাবল ট্যাপ’ হামলার অভিযোগ উঠেছে। কাছেই আরও একটি হামলায় কমপক্ষে পাঁচ জন নিহত ও নয় জন আহত হয়েছেন।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি মস্কোর বিরুদ্ধে ইউক্রেনের শহর ও সমাজের মধ্যে সন্ত্রাস ছড়িয়ে দেয়ার এবং নিরীহ মানুষের হত্যার অভিযোগ করেছেন। তিনি খারকিভ অঞ্চলের সুরক্ষার জন্য আমেরিকায় তৈরি দুটি প্যাট্রিয়ট এয়ার ডিফেন্স সিস্টেমের প্রয়োজনের উল্লেখ করেন। সেগুলো হাতে পেলে পরিস্থিতির মৌলিক পরিবর্তন ঘটবে বলে তিনি মনে করেন। তার মতে, বাকি বিশ্ব রাশিয়ার সন্ত্রাস বন্ধ করতে পারে। নেতৃস্থানীয় রাজনীতিকদের মধ্যে সেই সদিচ্ছার অভাব দূর করতে হবে।

জেলেনস্কির দাবি, গত সপ্তাহজুড়ে খারকিভ অঞ্চলে প্রতিরক্ষা কাঠামো আরও মজবুত করা হয়েছে। গত শুক্রবার সংবাদ সংস্থা এএফপি-কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি অবশ্য স্বীকার করেন, রুশ বাহিনী উত্তর-পূর্ব সীমান্ত পেরিয়ে ইউক্রেনের ভূখণ্ডের পাঁচ থেকে দশ কিলোমিটার ভেতরে প্রবেশ করেছে। ইউক্রেনও রাশিয়ার ভূখণ্ডে পাল্টা হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। রাশিয়ার দাবি অনুযায়ী, রোববার রাতে ইউক্রেনের ৬১টি ড্রোন ধ্বংস করা হয়েছে। এমন হামলায় বিশেষ করে জ্বালানি অবকাঠামোর ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যাচ্ছে।

দক্ষিণের ক্রাসনোদার অঞ্চলে একটি শোধনাগারের ওপর ছয়টি ড্রোন ভেঙে পড়ার পর কাজ বন্ধ রাখতে হয়েছে। গত তিন সপ্তাহে সেই এলাকার শোধনাগার ও সামরিক ক্ষেত্রের ওপর দ্বিতীয় বার হামলা চালানো হয়েছে বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ইউক্রেনীয় সূত্র জানিয়েছে। বেলগোরোদ অঞ্চলে ইউক্রেনের হামলায় কমপক্ষে ১১ জন আহত হয়েছেন বলে আঞ্চলিক গভর্নর দাবি করেছেন। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, খারকিভ থেকে রুশ ভূখণ্ডে হামলা বন্ধ করতে ‘বাফার জোন’ সৃষ্টি করার চেষ্টা করছে।

এদিকে ইউক্রেনের নৌবাহিনী আরও সাফল্যের দাবি করছে। কৃষ্ণসাগরে রাশিয়ার ‘ব্ল্যাক সি ফ্লিট’-এর একটি মাইনসুইপার জাহাজ ধ্বংস করেছে তারা। টেলিগ্রাম প্ল্যাটফর্মে এক ছবি প্রকাশ করে সেই জাহাজ ধ্বংসের খবর প্রকাশিত হয়েছে। সেই বার্তায় ইউক্রেনের নৌবাহিনী সেই সাফল্যের নেপথ্যে ‘শপথ নেয়া ভাইদের’ অবদানও স্বীকার করেছে। যুদ্ধের শুরু থেকে ইউক্রেন বেশ কয়েকটি রুশ রণতরীও ধ্বংস করেছে।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
আইএ/ ২০ মে ২০২৪





আরো খবর: