বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:২১ পূর্বাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

কক্সবাজার-৪ আসনের আওয়ামী লীগের প্রার্থী এমপি শাহীন আক্তারকে আদালতে তলব

সাঈদ মুহাম্মদ আনোয়ার :
আপডেট: রবিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০২৩

আসন্ন দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শাহিন আক্তারকে শোকজ পূর্বক আগামী ৭ ডিসেম্বর তলব করেছে আদালত।

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের উখিয়া-টেকনাফ আসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান ও সিনিয়র সহকারী জজ মৈত্রী ভট্টাচার্য্য ২ ডিসেম্বর এই নির্দেশ প্রদান করেন।

উখিয়া-টেকনাফ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য ও নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শাহিন আক্তার এর উদ্দেশ্যে অফিস আদেশে বলা হয়েছে, গত ২৯ নভেম্বর সকালে শতাধিক গাড়ীর বহর নিয়ে আপনি নিজ নির্বাচনী এলাকা মরিচ্যা লাল ব্রীজ হতে রওনা দিয়ে বিকালে টেকনাফ পৌঁছান। কক্সবাজার-টেকনাফ মহাসড়কের প্রায় ৬০ কিলোমিটার সড়ক জুড়ে ব্যানার, পোষ্টার,তোরণ ও গেইট নির্মাণ করেছেন এবং ঐদিন বিকালে টেকনাফ পৌঁছে একটি জনসভায় অংশ নিয়ে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা মার্কার পক্ষে ভোট চেয়ে বক্তব্য প্রদান করেছেন। আপনার পক্ষে প্যান্ডেলে গান বাজিয়ে নৃত্য প্রদর্শন করা হয়েছে। যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ ৩০ নভেম্বর দৈনিক আজকের দেশ বিদেশে পত্রিকায় এসটিএন নিউজ ২৪.কম নিউজ পোর্টালে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।

আপনার উক্তরূপ কার্য দ্বারা আপনি সংসদ নির্বাচনের রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণ বিধিমালার ২০০৮ এর ৬(খ),৬(গ), ৮(ক),১০(ক),১০(ঙ) ও ১২ বিধির বিধান এর সুস্পষ্ট লঙ্ঘন করেছেন।

এমতাবস্থায়, উপর্যুক্ত বিষয়ে আপনার কোন বক্তব্য থাকলে তা আগামী ৭ ডিসেম্বর সকাল ১১টার সময় কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ ভবনের নিম্নস্বাক্ষরকারীর কার্যালয়ে তথা উখিয়া সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে অথবা উপযুক্ত প্রতিনিধির মাধ্যমে লিখিতভাবে ব্যাখ্যা প্রদানের জন্য গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ, ১৯৭২ এর ৯১-এ(৫) (এ) অনুচ্ছেদের ক্ষমতাবলে আপনাকে নির্দেশ প্রদান করা হল।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আচরণবিধিমালায় বলা হয়েছে, কোনো নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল কিংবা দলের মনোনীত প্রার্থী বা স্বতন্ত্র প্রার্থী কিংবা তাঁদের পক্ষে অন্য কোনো ব্যক্তি ভোট গ্রহণের জন্য নির্ধারিত দিনের তিন সপ্তাহ সময়ের আগে কোনো প্রকার নির্বাচনী প্রচার শুরু করতে পারবেন না।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হবে আগামী ৭ জানুয়ারি। সে হিসাবে ১৫ ডিসেম্বরের আগে কেউই নির্বাচনী প্রচার চালাতে পারবেন না।

এছাড়া, জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আচরণবিধিমালা অনুসারে, কোনো নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল কিংবা তাদের মনোনীত প্রার্থী বা তাঁদের পক্ষে অন্য কোনো ব্যক্তি কোনো ট্রাক, বাস, মোটরসাইকেল বা অন্য কোনো যান্ত্রিক যানবাহন নিয়ে মিছিল বের করতে পারবেন না। মহড়াও করতে পারবেন না।


আরো খবর: