বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৬:৫৩ পূর্বাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

উখিয়ায় সরকারি-বেসরকারী সেবা প্রদানকারীদের সাথে অভিজ্ঞতা ও শিখণ বিনিময় সভা

নিজস্ব প্রতিবেদক :
আপডেট: সোমবার, ১০ জুন, ২০২৪

জার্মান ফেডারেল ফরেন অফিস (জি এফ এফ ও) ও প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ এর সহায়তায় বিটা (বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব থিয়েটোর আর্টস) বাস্তবায়িত উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলায় জয়েনিং ফোর্সেস ফর চাইল্ড প্রোটেকশন ইন ইমার্জেন্সিস প্রকল্পের অধীনে সোমবার ( ১০ই জুন ২০২৪) উপজেলা সম্মেলন কক্ষে সমমনা সরকারি—বেসরকারী সেবা প্রদানকারীদের সাথে অভিজ্ঞতা ও শিখণ বিনিময় সভায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উখিয়া সমাজ সেবা কর্মকর্তা আল মাহমুদ হোসেন এর সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন উখিয়া উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা মোঃ নিজাম উদ্দিন, প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ সৈয়দ হোসাইন, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ মোক্তার আহমেদ, মহিলা ও শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা হাবিবা জাহান, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ নূরে আলম মজুমদার, জালিয়া পালং ইউনিয়ন এর প্যানেল চেয়ারম্যান ফরিদা ইয়াসমিন এবং রত্নাপালং ও জালিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদ এর সদস্যবৃন্দ।

সভায় প্রকল্পের বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত করেন সমন্বয়কারী মোর্শেদ আলম ও প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ এর প্রতিনিধি তারিকুল ইসলাম। বিটা’র কার্যক্রম এবং প্রকল্পের সম্পৃক্তা নিয়ে নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করতে গিয়ে রত্নাপালং ইউনিয়ন এর ০৭ নং ওয়ার্ডের সদস্য আবুল হাসনাত চৌধুরি বলেন, সিবিসিপি কমিটির জোরালো কার্যক্রমের কারনে আমাদের এলাকায় এরই মধ্যে ৮০% বাল্যবিবাহ বন্ধ করতে পেরেছি। পাশাপাশি বিভিন্ন আত্বকর্মসংস্থান মূলক প্রশিক্ষনের এবং নগদ আর্থিক সহায়তা প্রাপ্ত অনেকেই নিজেরা এখন স্বাবলম্বী। তিনি আরো বলেন, এই মূহুর্তে উখিয়ায় অনেক শিশু টমটম চালানোর মতো শ্রমের সাথে জড়িত হওয়ার রেকর্ড বাড়ছে। এ বিষয়ে আমাদের কার্যক্রম পরিচালনা জোরদার করতে হবে।

উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা মোঃ নিজাম উদ্দিন বিটা এবং প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ এর কার্যক্রমের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং কার্যক্রম অন্যান্য ইউনিয়নে জোরদার করার জন্য অনুরোধ করেন। তিনি আরো বলেন বিগত সময়ে আমি নিজেই বিটার কয়েকটি কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলাম। আজকে উপকারভোগীদের আলোচনা ও আমার দেখা থেকে এটা প্রতীয়মান হয় যে, বিটার প্রকল্পটি মাঠ পর্যায়ে ভালভাবেই সম্পন্ন হয়েছে। শিশুর সুরক্ষার জন্য তিনি সকলকে একযোগে কাজ করার জন্য আহবান জানান।

সভার সভাপতি এবং সমাজ সেবা কর্মকর্তা আল মাহমুদ হোসেন বলেন—“বিগত সময়ে বিটার সহায়তায় উখিয়ায় অনেক শিশুর জন্য জরুরী আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। কমিউনিটি পর্যায়ে শিশু সুরক্ষা বিষয়ে সচেতনতা আগের তুলনায় বেড়েছে। প্রকল্পটির বাস্তবায়িত কাজের জন্য তিনি বিটা ও প্ল্যানকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন ইউএনডিপি প্রতিনিধি মোহাম্মদ সেলিম উদ্দীন, প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ এর প্রতিনিধি তারিকুল ইসলাম, বিটার সিবিসিপি কো—অর্ডিনেটর মো: দিদারুল আলম, সিবিসিপি অফিসার বাবলা দাশ, শর্মিষ্ঠা চৌধুরী, দেব দুলাল রায়, লাইভ লীহুডঅফিসার মো : আব্দুল আওয়াল সরকারসহ বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ।


আরো খবর: