বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০১:১০ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..  

আমি দেশে হিন্দি ছবি চালানোর পক্ষে

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: রবিবার, ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩
আমি দেশে হিন্দি ছবি চালানোর পক্ষে

দেশে সিনেমা হল সচল করতে ও হলের সংখ্যা বাড়াতে ভারত থেকে হিন্দি ছবি আমাদনি করে প্রদর্শনের পক্ষে মত দিয়েছেন দেশের জনপ্রিয় নায়ক রিয়াজ। তিনি বলেন, ‘আমি নির্দিষ্ট একটা সময় পর্যন্ত হিন্দি ছবি চালানোর পক্ষে। এটা করতে পারলে হল সচল হবে। সেই সচল হলে ব্যবসা করতে অনেক প্রযোজক ফিরে আসবেন নতুন নতুন সিনেমা বানাতে।’

শনিবার এফডিসিতে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট সমিতির নেতৃবৃন্দের বেঠক শেষে এসব কথা বলেন নায়ক রিয়াজ।

বৈঠকে হিন্দি ছবি আমদানির বিষয়ে রিয়াজ বলেন, ‘মিটিংয়ে আলোচনার বিষয় ছিল হল বাড়ানো। আমাদের ১২শ’ হল কমতে কমতে এখন ৫০-৬০টিতে এসে ঠেকেছে। এভাবে চলতে থাকলে অদূর ভবিষ্যতে হয়তো একটা হলও থাকবে না। আমাদের সব সমিতির কথা হচ্ছে, এখন আপাতত হল বাঁচতে হবে। মানুষকে হলে আনার অভ্যাস করাতে হবে। এ জন্য দেশের বাইরের ভালো ভালো কন্টেন্ট এনে হলেও হল সচল করতে হবে। তাই সব সমিতি মিলে নির্দিষ্ট একটা সময় পর্যন্ত হিন্দি ছবি চালানোর পক্ষে। এটা নিয়েই শিগরিই সম্মিলিত সিদ্ধান্ত জানাবে সমিতি।’

দেশের সিনেমা হলগুলো সচল রাখতে হিন্দি ছবি প্রদর্শনের প্রস্তাব আসে বেশ কয়েক বছর আগে। গেল বছর এ ব্যাপারে ঐক্যমতে পৌঁছেন চলচ্চিত্র প্রদর্শক, প্রযোজক ও পরিচালক সমিতির নেতারা। তবে তা বেশিদূর এগোয়নি। এবার শাহরুখ খানের ‘পাঠান’ ছবি বাংলাদেশে মুক্তির ইস্যুতে আবার উঠে সেই দাবি। এই দাবির পক্ষে অনেকে থাকলেও অনেকেই বিপক্ষে মত দেন। তারা বলছেন, ‘হিন্দি ছবি দেশে আনলে দেশের চলচ্চিত্র শিল্প ধ্বংস হয়ে যাবে।’

তাদের সেই মতের বিপরীতে নায় রিয়াজ বললেন, ‘যারা ওই কথা বলছেন, তারা সবাই তাদের ব্যক্তিগত মতামত দিচ্ছেন। তাদের ব্যক্তিগত মতামত নিয়ে আমি কোনো কথা বলতে চাই না। তবে আমি মনে করি, এখন সোশ্যাল মাধ্যমের যুগ। এখন দর্শক অনেক গুরুত্বপূর্ণ। দর্শকরা জানে কাদের কারণে হল বন্ধ হয়েছে। এখন যদি তারাই হল বন্ধের কথা বলে, চলচ্চিত্র ইন্ডাষ্ট্রি ধ্বংসের কথা বলে সেটা হাস্যকর লাগে।’

রিয়াজ বলেন, ”আমি বিশেষভাবে ‘পাঠান’ ছবির কথা বলতে চাই না। আবার হিন্দি ছবির কথাও বিশেষভাবে বলতে চাই না। আমি এমন কিছু চাই যাতে করে আমাদের সিনেমা হল বাঁচে। প্রযোজক যেনো না বলেন, একটা বাংলা ছবি চালিয়েছি, কিন্তু দুপুরের শোতে মাত্র ২ জন দর্শক। কিভাবে টাকা তুলবো? আামাকে তো হলটা বন্ধ করে দিতে হবে।”

রিয়াজ আরও বলেন, ‘আমরা হয়তো ওই লেবেলে কন্টেন্ট বানাতে পারিনা। কিন্তু আমরা অদূর ভবিষ্যতে ওই ধরনের কণ্টেন্ট বানাতে পারব।’ নায়ক রিয়াজ মনে করেন, ২০২৩ সালে এসে ২০২৫ সালের কথা মাথায় রেখে ছবি বানাতে হবে। তাহলেই দর্শকরা আমাদের ওপর আস্থা রাখবেন, তারা হলে আসবেন।’


আরো খবর: