বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৫৬ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..

মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত : পররাষ্ট্র সচিব

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: শুক্রবার, ৮ অক্টোবর, ২০২১

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যাকান্ড অনাকাঙ্ক্ষিত উল্লেখ করে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেছেন, মাঠ পর্যায়ের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে সরাসরি এখানে আসা হয়েছে। এ ঘটনায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি টিম কাজ করছে।

শুক্রবার (৮ অক্টোবর) দুপুরে কক্সবাজার বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। পররাষ্ট্র সচিবের নেতৃত্বে চার সদস্যদের প্রতিনিধিদলের উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্পে যাওয়ার কথা রয়েছে।

এদিকে রোহিঙ্গাদের শীর্ষ নেতা ও আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসর চেয়ারম্যান মুহিবুল্লাহ হত্যার পর প্রথম রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে এসেছেন পররাষ্ট্রসচিব। রোহিঙ্গাদের নেতা খুন হওয়ার পর থেকে ক্যাম্পগুলোতে অস্থির ও থমথম পরিবেশ বিরাজ করছে। চলমান এই পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে ক্যাম্প পরিদর্শন করবেন পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেনের নেতৃত্বে চার সদস্যের প্রতিনিধিদল।

তারা শুক্রবার (৮ অক্টোবর) দুপুরে বিমানযোগে কক্সবাজারে পৌঁছান। প্রতিনিধি দলে রয়েছেন, পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন, পশ্চিম ইউরোপ এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের মহাপরিচালক ফায়াজ মুর্শিদ কাজি, পররাষ্ট্র সচিবের দফতরের মহাপরিচালক মো. আলীমুজ্জামান ও সহকারী সচিব শোয়াইব-উল ইসলাম তরফদার ।

এর আগে ১৪ আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এসপি নাইমুল হক জানান, চার সদস্যের প্রতিনিধি দল ক্যাম্প পরিদর্শনে আসছেন। এ জন্য কঠোর নজরদারি ও নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রতিনিধি দল ক্যাম্প পরিদর্শন ও চলমান অবস্থা পর্যবেক্ষণ করবেন।

উল্লেখ্য, গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ৮টার দিকে নিজ সংগঠনের কার্যালয়ে অবস্থানকালে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ। এ ঘটনায় ৩০ সেপ্টেম্বর রাতে উখিয়া থানায় ৩০২/৩৪ ধারায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। যার বাদী নিহত মুহিবুল্লাহর ছোট ভাই হাবিব উল্লাহ।

১ অক্টোবর উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্প-৬ থেকে মুহিবুল্লাহ হত্যায় জড়িত সন্দহে মোহম্মদ সেলিম (৩৩) (প্রকাশ লম্বা সেলিম) নামে একজনকে ১৪ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ানের (এপিবিএন) সদস্যরা গ্রেপ্তার করে উখিয়া থানায় হস্তান্তর করে। ২ অক্টোবর ভোররাতে কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে মুহিবুল্লাহ হত্যাকাÐে জড়িত সন্দহে জিয়াউর রহমান ও আব্দুস সালাম নামের আরও দুইজনকে গ্রেপ্তার করে ১৪ এপিবিএন। ওইদিন বিকেলে উখিয়া থানা পুলিশ শওকত উল্লাহ (২৩) নামে একজনকে কুতুপালং ক্যাম্প থেকে গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনায় এ পর্যন্ত মোট ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদেরকে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।


আরো খবর: