তারিখ: রবিবার, ১৭ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং, ২রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Share:

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে সৃষ্ট বৈরী আবহাওয়ার কারণে শুক্রবার সকাল থেকে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখতে নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এ ঘোষণা বলবৎ থাকবে।

বৃহস্পতিবার বিকালে কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আশরাফুল আফসার স্বাক্ষরিত নোটিশে এ নির্দেশ দেয়া হয়।

এদিকে জাহাজ চলা বন্ধ হওয়ার আগে যে সব পর্যটক সেন্টমার্টিন চলে গেছেন তারা এখনই ফিরতে পারবেন না বলে জানিয়েছে পুলিশ। তাদেরকে সেখানকার হোটেলে অবস্থান করতে হবে। সেন্টমার্টিন পুলিশ জানায়, আটকে পড়া পর্যটকরা দ্বীপের ১০৬টি হোটেল-মোটেল ও কটেজে অবস্থান করবেন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পর্যটকরা ফিরতে পারবেন।

নিষেধাজ্ঞা পেয়ে জাহাজ চলাচল ইতিমধ্যে বন্ধ করা হয়েছে বলে জানান সেন্টমার্টিন রুটের দ্যা আটলান্টিক ক্রুজের ইনচার্জ নাসির উদ্দিন। তিনি বলেন, সমুদ্রে ৩ নং সতর্ক সংকেত থাকায় বৃহস্পতিবার বিকালে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে চিঠি হাতে পাওয়ার পর জাহাজ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এরপর থেকে আমরা জাহাজের কোনো বুকিং নিচ্ছি না। আবহাওয়া স্বাভাবিক হলে যথারীতি জাহাজ চলাচল শুরু হবে।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আশরাফুল আফসার জানান, পূর্ব মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর কারণে কক্সবাজার সমুদ্র উপকূলে ৩নং স্থানীয় সতর্ক সংকেত থাকায় শুক্রবার সকাল থেকে জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকবে। পরবর্তীতে সেন্টমার্টিনে আটকে পড়া পর্যটকদের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে বিশেষ ব্যবস্থায় ফিরিয়ে আনা হবে।

জেলা আবহাওয়া অফিস জানায়, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও টলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি এসে সাবধানে চলাচল করতে এবং গভীর সাগরে বিচরণ না করার জন্য বলা হয়েছে।

Share:
error: কপি করা নিষেধ !!