তারিখ: মঙ্গলবার, ১৯শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং, ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Share:

পেকুয়া প্রতিনিধি::

পেকুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমের জামিনের বিরুদ্ধে রাস্ট্র পক্ষের করা আবেদন খারিজ করে দিয়েছে মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

রবিবার (১৩ অক্টোবর) সকালে মামলার শুনানী শেষে তার জামিন বহাল রাখেন মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিজ্ঞ দুই বিচারক।

জানা গেছে, বিগত দুই বছর আগে জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় একটি মামলা হয়।

সেই সময় থেকে অদ্যবধি তিনি পেকুয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে চলছেন। অস্ত্র উদ্ধার পরবর্তি ঘটনাটি জাহাঙ্গীর আলম সাঁজানো বলে দাবী করেন। হাজার হাজার জনতা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধনও করেন। ওই মামলা চলমান থাকা অবস্থায় তিনি পেকুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। উপজেলা পরিষদের শপথ নিয়ে দুইদিন কর্মদিন পালন করেন। ৩য় দিনে ওই মামলার রায় শুনানী হয় কক্সবাজার যুগ্ন-জেলা জজ আদালতে। বিজ্ঞ আদালতে মামলার রায় শুনানীর সময় তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবীও করেন। আদালত অস্ত্র ও গুলি উদ্ধারের দুইটি পৃথক অভিযোগপত্রে জাহাঙ্গীর আলমকে ১৪ বছর ও ৭বছর সাজা প্রদান করে অপর তিন ভাইকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেন। এই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্ট বিভাগে আপিল করেন জাহাঙ্গীর আলম। হাইকোর্ট বিভাগ তাকে ৬মাসের জন্য জামিন মঞ্জুর করেন। জামিনের বিরুদ্ধে রাস্ট্র পক্ষ আবেদন করলে চেম্বার জজ তার জামিন আটকে যায়। সর্বশেষ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ রাস্ট্র পক্ষের আবেদনের উপর দীর্ঘ শুনানী শেষে রবিবার ওই আবেদন খারিজ করে জামিন বহাল রাখেন।

জাহাঙ্গীর আলমের স্ত্রী রোমানা আক্তার বলেন, সকলের দোয়ায় জনগণের জাহাঙ্গীর আলম জনগণের মাঝে ফিরে আসবে। মামলা পরিচালনা করতে গিয়ে আমরা অনেকের সহযোগিতা পেয়েছি। তাদের কাছে আমরা কৃতজ্ঞ। আগামী দুই তিন দিনের ভিতর তিনি জেল মুক্ত হবেন বলে তিনি জানান।

Share: