তারিখ: বুধবার, ১৬ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ১লা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম

Share:

বিনোদন প্রতিবেদক: বরেণ্য অভিনেতা এ টি এম শামসুজ্জামান প্রায় একমাস যাবৎ রাজধানীর আজগর আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। দীর্ঘ ২৩ দিন ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) রাখার পর আজ রোববার তাকে কেবিনে স্থানান্তর করা হচ্ছে বলে রাইজিংবিডিকে জানিয়েছেন তার মেজ মেয়ে কোয়েল আহমেদ।

কোয়েল আহমেদ বলেন, ‘বাবার শরীর এখন অনেকটাই ভালো। তিনি স্বাভাবিকভাবে সবার সঙ্গে কথা বলছেন। ডাক্তার আজ (রোববার) তাকে কেবিনে দিবেন। সবার কাছে দোয়া চাচ্ছি তিনি যেন দ্রুত সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেন।’

গত ২৬ এপ্রিল, রাত ১২টার দিকে অসুস্থ বোধ করায় এ টি এম শামসুজ্জামানকে আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর হঠাৎ করেই তার রেচন প্রক্রিয়ায় জটিলতা দেখা দেয়। গত ২৭ এপ্রিল তার অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়। কিন্তু ৩০ এপ্রিল শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। এর পর সুস্থ অনুভব করলে লাইফ সাপোর্ট খুলে দেয়া হয়। কিন্তু পুনরায় শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় আবারো তাকে লাইফ সাপোর্ট দেয়া হয়।

এ টি এম শামসুজ্জামান পাঁচবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন। শিল্পকলায় অবদানের জন্য ২০১৫ সালে পেয়েছেন রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ সম্মাননা একুশে পদক। ১৯৬১ সালে পরিচালক উদয়ন চৌধুরীর ‘বিষকন্যা’ চলচ্চিত্রে সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ শুরু করেন তিনি। প্রথম কাহিনি ও চিত্রনাট্য লিখেন ‘জলছবি’ চলচ্চিত্রের জন্য। এ পর্যন্ত শতাধিক চিত্রনাট্য ও কাহিনি লিখেছেন। প্রথম দিকে কৌতুক অভিনেতা হিসেবে চলচ্চিত্র জীবন শুরু করেন। অভিনেতা হিসেবে চলচ্চিত্রের পর্দায় তার আগমন ১৯৬৫ সালে। ১৯৭৬ সালে চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেনের ‘নয়নমণি’ চলচ্চিত্রে খলনায়কের চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে আলোচনায় আসেন তিনি।

Share:
error: কপি করা নিষেধ !!