শিরোনাম ::
উখিয়ায় মাদক প্রতিরোধ ও অপরাধ দমনে কমিউনিটি পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত একসঙ্গে ৪ সন্তান জন্ম দিলেন মহেশখালীর এক গৃহবধূ! বান্দরবানের দুর্গম অঞ্চলে ঝরে পড়া শিশুদের জন্য উদ্বোধন শিশু প্রতিভা বিকাশ কেন্দ্রের বান্দরবান দুই শতাধিক প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প উখিয়ায় পালস’র উদ্যোগে বিশ্ব শান্তি দিবস পালিত সীমান্তে গুলির শব্দ থামছে না উখিয়ায় প্রশাসনের অভিযানে ৩টি ড্রেজার মেশিন ও ২টি বন্দুকসহ অস্ত্র উদ্ধার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আবারো খুন মুক্তি কক্সবাজার-এর উদ্যোগে ব্যবসায়ী ও উপকারভোগীদের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত পালস-এর উদ্যোগে “বর্ণবাদ-শান্তি ও সম্প্রীতির অন্তরায়” বিষয়ক বির্তক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত
সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৩৯ পূর্বাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..

‘সেনা কর্মকর্তা হত্যা দেশদ্রোহিতার শামিল’

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: শনিবার, ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

রুমায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে সেনা কর্মকর্তার নিহতের ঘটনায় বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ।
শনিবার (৫ ফেব্রুয়ারি) বিকালে সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান মো. কাজী মজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বান্দরবান প্রেস ক্লাবের সামনে এই প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন হয়। এর আগে গোরস্তান মসজিদ এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, শান্তিতে নিয়োজিত সেনা কর্মকর্তাকে হত্যা করে আবারও দেশদ্রোহিতার পরিচয় দিল সন্তু লারমার জেএসএস। তারা শুধু পাহাড়ের শত্রু নয়, পুরো বাংলাদেশের শত্রু।

এই হামলাকে রাষ্ট্রের জন্য বড় হুমকি দাবি করে অনতিবিলম্বে সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তারা।

জেলা কমিটির সহ-সভাপতি ক্যাপ্টেন (অব.) তারু মিয়ার সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. নাছির উদ্দিন, সহ-সভাপতি আবুল কালাম, এম. রুহুল আমিন, মিজানুর রহমান প্রমুখ।

পরে নিহত সেনা কর্মকর্তার আত্মার মাগফেরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন নেতাকর্মীরা।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার (২ ফেব্রুয়ারি) রুমা উপজেলার বথিপাড়া এলাকায় সেনাবাহিনীর টহলদলের ওপর জেএসএস সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন প্রধান ওয়ারেন্ট অফিসার হাবিবুর রহমান। একই ঘটনায় আহত হন আরও এক সেনা সদস্য।


আরো খবর: