তারিখ: মঙ্গলবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রসেনজিৎ দাস, ভারতের প্রতিনিধিঃ
সমকামিতা নিয়ে ঐতিহাসিক রায় দিল সুপ্রিম কোর্ট। জানাল, সমকামিতা অপরাধ নয়। সমকামীদেরও দেশে সমান অধিকার রয়েছে। এতদিন ধরে যে আইন চলে আসছিল, তাকে অযৌক্তিক বলে রায় দিল শীর্ষ আদালত।
বৃহস্পতিবার সমকামিতা নিয়ে রায় ঘোষণা করার কথা ছিল সুপ্রিম কোর্টের। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বে গঠিত পাঁচ বিচারপতির সংবিধানের এই বেঞ্চ এই রায় ঘোষণা করে। প্রধান বিচারপতি ছাড়াও এই বেঞ্চের অন্য বিচারপতিরা হলেন বিচারপতি রোহিতান নরিমান, বিচারপতি এএম খানউইলকর, বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় ও বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রা।

তার জন্য কারাদণ্ডের শাস্তি হতে পারে। এর আগে ২০০৯ সালে দিল্লি হাই কোর্ট জানিয়েছিল সমকামিতা কখনও অপরাধ হতে পারে না। সমকামিতাকে অপরাধ হিসেবে গণ্য করা অসাংবিধানিক। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টেই ২০১৩ সালে দিল্লির আদালতের সেই মতবাদ খারিজ হয়ে যায় এবং সমকামিতা বা প্রান্তিক যৌনতাকে অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হবেই বলে জানানো হয়। কিন্তু সময় পালটায় গতবছর। সুপ্রিম কোর্টেই এক রায়ে জানায়, সমকামী বা রূপান্তকামীদের যৌনতা তাদের অধিকারের পর্যায়ে পড়ে। এবং তার সাংবিধানিক বৈধতাও থাকা উচিত। এই পর্যবেক্ষণের পরই ৩৭৭ ধারা অবলুপ্তির দাবি ওঠে।

তবে জুলাই মাসে শীর্ষ আদালত জানিয়েছিল, পুরনো রায় কতটা সঠিক, তা অবশ্যই খতিয়ে দেখা হবে। আদালতে প্রশ্ন ওঠে, প্রথাবিরুদ্ধ যৌনতার বিষয়টি শুধু ব্যক্তিপছন্দের বিষয় হিসেবে বিবেচনা করলে হবে না। বরং এর সঙ্গে জিনেরও সম্পর্ক আছে। ফলে এই অধিকার সুরক্ষিত হওয়া উচিত। বলা হয়, পঞ্চাশ বছর আগে যে নিয়ম চালু ছিল, আজ আর তার কোনও বৈধতা নেই। জানানো হয়, আদালতের পূর্ববর্তী রায় কতটা সঠিক ছিল তা ফের খতিয়ে দেখা হবে। বেঞ্চ বলে, ধারা ৩৭৭ সম্পূর্ণভাবে বরখাস্ত করা হয়, তাহলে অরাজকতার পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে। তাই এনিয়ে বিস্তারিত আলোচনার প্রয়োজন।

আপনার মতামত প্রদান করুন ::