তারিখ: মঙ্গলবার, ২১শে মে, ২০১৯ ইং, ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম

Share:

নিজস্ব প্রতিবেদক,চকরিয়া ::
‘প্রাথমিক শিক্ষার দীপ্তি, উন্নত জীবনের ভিত্তি’ স্লোগানে কক্সবাজারের চকরিয়ায় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পালিত হয়েছে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ। উপজেলা শিক্ষা বিভাগের আয়োজনে দিবসটি উপলক্ষে গতকাল বুধবার (১৩ মার্চ) সকালে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়।
র‌্যালীটি উপজেলার প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা পরিষদ চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। পরে উপজেলা পরিষদ চত্বর মাঠে প্রাথমিক শিক্ষা উপকরণ মেলার উদ্ভোধন করেন চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম। উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌর সভার ১৯টি স্টল শিক্ষা উপকরণ মেলায় অংশ নেয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে উপজেলা পরিষদের হলরুম মোহনা মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুদ্দীন মোহাম্মদ শিবলী নোমানের সভাপতিত্বে ও সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আনোয়ারুল কাদেরের স ালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি বক্তব্য দেন সাংসদ আলহাজ্ব জাফর আলম।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন চকরিয়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা গুলশান আকতার। বিশেষ অতিথি ছিলেন সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা যথাক্রমে বিকাশ ধর, মো. আবু জাফর, ও শাহরিয়ার সুলতানা এবং সাংসদ এর সহধর্মিনী শাহেদা বেগম।
অনুষ্টানে শিক্ষকদের মাঝে বক্তব্য রাখেন জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে নির্বাচিত শ্রেষ্ঠ শিক্ষক চকরিয়া মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তছলিম উদ্দিন এবং বড় ভেওলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিক দিলশাদ আঞ্জুমান রুমা।
আলোচনা সভা শেষে উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষাখাতে বিভিন্ন পর্যায়ে অবদান রাখায় বিজয়ী শিক্ষক শিক্ষার্থীদেরকে পুরস্কার তুলে দেন অনুষ্টানের প্রধান অতিথি সাংসদ জাফর আলম ও ইউএনও নুরুদ্দীন মোহাম্মদ শিবলী নোমান। অনুষ্ঠানে উপজেলার ১৪৫টি বিদ্যালয়ের শিক্ষক,শিক্ষার্থীসহ সকল শ্রেনি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে আলহাজ জাফর আলম এমপি বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের নতুন প্রজন্মের জন্য মেধানির্ভর শিক্ষার সম্ভাবনার দ্বার উম্মোচন করেছে। তাঁর সদিচ্ছার কারনে আজ শিক্ষার্থীরা বিনা বেতনে লেখাপড়া সুযোগ পাচ্ছে। শিক্ষার সুষ্ট পরিবেশ নিশ্চিতে সরকার হাজার কোটি টাকা বরাদ্দে অবকাঠামোগত উন্নয়নে সব ধরণের কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করছেন। সরকারের লক্ষ্য হচ্ছে বাংলাদেশকে নিরক্ষতার অভিশাপ থেকে মুক্ত করা। সেইলক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছেন। স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশে শিক্ষার মান্নোয়নে জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার অসাধারণ সাফল্য দেখিয়েছেন।
তিনি বলেন, বর্তমানে বছরের প্রথমদিন শিক্ষার্থীরা নতুন পাঠ্যবই পাচ্ছে। লেখাপড়া করতে সব ধরণের উপবৃত্তি সুবিধা পাচ্ছে। মেধাবীদের সরকারি চাকুরী নিশ্চিত করা হচ্ছে। দেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চালু করা হয়েছে মিড ডে মিল প্রকল্পসহ নানা ধরণের প্রনোদনা প্রকল্প। যাতে শিক্ষার্থীরা এসব সুবিধা নিয়ে সুন্দর পরিবেশে লেখাপড়া করতে পারে। নিজেকে আগামীর জন্য দক্ষ মানবসম্পদ হিসেবে তৈরী করতে পারে।
জাফর আলম এমপি আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার মান্নোয়ন নিশ্চিতকল্পে আগামী পাঁচবছরে চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলার সবশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সাজানো হবে। লেখাপড়ার মাধ্যমে নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদেরকে সুনাগরিক হিসেবে তৈরী করতে হবে। সেইজন্য চকরিয়া-পেকুয়ার শিক্ষক সমাজের সহযোগিতা চাই। কারণ আজকের নতুন প্রজন্ম হবে আগামী দিনের দেশ গড়ার কারিগর। তাই সেইভাবে নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের তৈরী করতে সবাইকে সচেতনভাবে কাজ করতে হবে। আশাকরি শিক্ষার্থীরা যাতে কোন ভাবে বিপদগামী না হয় সেদিকে অভিভাবক ও শিক্ষক মন্ডলীকে সজাগ ভুমিকা পালন করতে হবে। #

Share:

আপনার মতামত প্রদান করুন ::