তারিখ: রবিবার, ২০শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ৫ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম

Share:

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম,লামা::

লামা উপজেলার ১৭টি মৌজার হেডম্যান ও ১৯৫টি পাড়ার কারবারীদের মাঝে ভাতা প্রদান করা হয়েছে। বুধবার (৩ জুলাই) সকালে লামা সহকারি কমিশনার (ভূমি) এর কার্যালয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ-জান্নাত রুমি এই ভাতার টাকা প্রদান করেন। এসময় সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইশরাত সিদ্দিকা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, ২৮৪নং ইয়াংছা মৌজার বন্ধুকঝিরি পাড়ার কারবারী উক্যচিং, হেডম্যান পাড়ার কারবারী উহ্লাচিং, পোপা মৌজার টিয়ারঝিরি পাড়ার কারবারী অংক্যজাই, হেডম্যান পাড়ার বাম ত্রিপুরা, গজালিয়া প্রংথো পাড়ার কারবারী খ্যাইমা ত্রিপুরা। তারা বলেন, বিগত দিনে ভাতা গ্রহণ করার সময় নানা ভোগান্তি পেলেও বর্তমানে সেই সমস্যা আর নেই।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেছেন, ভূমি সংক্রান্ত রিপোর্ট প্রদানের সময় হেডম্যানদের আরো সচেতন হতে হবে। ভূমি অফিসের কোন কর্মচারী বা অন্য কেউ কোন হেডম্যান ও কারবারীকে হয়রানি করলে তা বরদাস্ত করা হবে না। কেউ হয়রানি হলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) কে তাৎক্ষণিক অবহিত করার জন্য তিনি হেডম্যান কারবারীদের প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি আরো বলেন, সরেজমিন পরিদর্শন ব্যতিত ভূমি সংক্রান্ত কোন রিপোর্ট প্রদান না করার জন্য হেডম্যানদের আহ্বান জানান। পাড়ার কারবারীদেরকে স্থানীয় বিরোধ মিমাংসায় আরো মনযোগী হওয়ার পরামর্শ দেন। পাড়ার কারবারীগণ আন্তরিকতা নিয়ে কাজ করলে স্থানীয় অনেক সমস্যার সমাধান হবে। এছাড়া হেডম্যান কারবারীদের উদ্দেশ্যে বলেন, কেউ পাহাড় কাটলে অথবা অবৈধ পাথর উত্তোলন করলে প্রশাসনকে খবর দিতে হবে। পরিবেশের ক্ষতি হয় এমন কোন কাজ করে কেউ রেহাই পাবে না।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইশরাত সিদ্দিকা বলেন, হেডম্যান এবং কারবারিদের যে কোন সমস্যা সমাধানে ভূমি অফিস আন্তরিক। কোন ধরণের সমস্যায় পড়লে তাকে জানানোর জন্য সহকারী কমিশনার হেডম্যান ও কারবারিদের প্রতি আহ্বান জানান।

শেষে উপজেলার ১৭টি মৌজার হেডম্যান ও ১৯৫ জন কারবারীকে ১২ মাসের সম্মানী ভাতা প্রদান করা হয়েছে।

Share:
error: কপি করা নিষেধ !!