তারিখ: মঙ্গলবার, ২৮শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং, ১৪ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Share:

মিয়ানমারের বিদ্রোহী গোষ্ঠী ‘আরাকান আর্মি’ এবং রোহিঙ্গাদের সশস্ত্র সংগঠন ‘আরসা’ নিয়ে বাংলাদেশকে জড়িয়ে মিয়ানমারের মন্ত্রীর দেয়া বিবৃতির কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে ঢাকা।

বুধবার (৯ জানুয়ারি) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মিয়ানমার সরকারকে দেয়া প্রতিবাদ পত্রে ঢাকা বলে, বাংলাদেশে আরাকান আর্মি কিংবা আরসার কোনো ঘাঁটি নেই। মিয়ানমারের মন্ত্রী আরাকান আর্মি এবং আরসা নিয়ে বাংলাদেশকে জড়িয়ে গণমাধ্যমে যে বিবৃতি দিয়েছে তা মিথ্যা এবং মনগড়া।

উল্লেখ্য, গত ৭ জানুয়ারি এক বিবৃতিতে মিয়ামারের রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের মুখপাত্র বাংলাদেশে দুটি আরাকান আর্মি এবং তিনটি আরসা ঘাঁটি রয়েছে বলে মন্তব্য করে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উচ্চ সতর্কতা এবং সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি অনুসারে কার্যকর প্রতিরোধ ব্যবস্থার কারণে বাংলাদেশের কোথাও অপরাধমূলক কার্যক্রম করা সম্ভব নয়। এছাড়া প্রতিবেশী দেশের কোনো বিদ্রোহী সংগঠনকে দেশের মাটি ব্যবহার করে সন্ত্রাসী কার্যক্রম করার অনুমতি বাংলাদেশ দেয় না।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের সন্ত্রাস দমন সহযোগিতা অত্যন্ত কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে। একই ধরনের দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার প্রস্তাব মিয়ানমারকেও দেয়া হয়েছিল। সীমান্তে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড দমনে যৌথ অভিযানের প্রস্তাবও করা হয়। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে মিয়ানমারের পক্ষ থেকে কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।

মিয়ানমারের এ ধরনের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, মিয়ানমারের বর্তমান সংঘাত দেশটির রাজনৈতিক এবং সামাজিক সঙ্কট থেকে তৈরি। তাদের নিজেদের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে বাংলাদেশকে না জড়ানোর বিষয়ে দেশটিকে সতর্কও করেছে ঢাকা।

Share: