শিরোনাম :
আলীকদমে শর্টবড়ি (চাঁদেরগাড়ী) মাইক্রো বাস মালিক সমবায় সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন ঝিলংজা ইউনিয়ন যুবলীগের ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠিত উখিয়ার আবদুর রহিম ইয়াবা নিয়ে র‍্যাবের হাতে আটক নাইট কোচে ডাকাতি: গ্রেপ্তারকৃত বাস চালক সহ তিনজনকে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন মহেশখালী থেকে ছিনতাই হওয়া মটরসাইকেল উদ্ধার : গ্রেফতার-১ টেকনাফে ১০হাজার ইয়াবা বড়িসহ আটক-১ কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে পরিবেশ, পর্যটন ও উন্নয়ন বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত সেন্টমার্টিনে কোস্টগার্ডের অভিযানে ইয়াবা ও গাজাসহ আটক ২ উৎসবমুখর পরিবেশে উখিয়া প্রেসক্লাবের নির্বাচনের মনোনয়ন পত্র জমা স্বাস্থ্যবিধি না মানলে প্রয়োজনে কারাদন্ড দেয়া হবে-জেলা প্রশাসক
সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০৭:১০ পূর্বাহ্ন

রেজা-শমীর প্রেমকাহিনী

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: অক্টোবর ১২, ২০২০ ১০:৪৮ অপরাহ্ণ | সম্পাদনা: অক্টোবর ১২, ২০২০ ১০:৪৮ অপরাহ্ণ

রেজা-শমীর প্রেমকাহিনী

[ad_1]

ঢাকা, ১৩ অক্টোবর- টক অব দ্য শোবিজ-বিয়ে করেছেন অভিনেত্রী শমী কায়সার। নব্বই দশকে যে ক’জন অভিনেত্রী অসামান্য উপভোগ্য অভিনয় দিয়ে মুগ্ধ করে রেখেছিলেন দর্শক, তাদের অন্যতম একজন শমী। টিভিতে তার উপস্থিতি মানেই বাড়তি আগ্রহ ছিল সবার। হোক তা নাটক-টেলিছবি কিংবা বিজ্ঞাপনে।

গত ২৭ সেপ্টেম্বর পারিবারিকভাবে ব্যবসায়ী রেজা আমিন সুমনের সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হন শমী কায়সার। যদিও বেশ কিছুদিন ধরে বিষয়টি প্রকাশ পায়নি। শেষ পর্যন্ত প্রকাশ হওয়ার মানুষের কৌতুহল যেন আরও বাড়লো। কিভাবে রেজার সঙ্গে পরিচয়, প্রেম নাকি পারিবারিক বিয়ে, এমন আরও কত কী?

তবে খোঁজ নিয়ে যতদূর জানা গেলো। অনেক দিন ধরে জানাশোনা এরপর, ভালোলাগা, ভালোবাসা থেকেই ঘর বাঁধলেন এই দুজন।

শমী কায়সারের মুখ থেকেই শুনুন তেমন কিছু কথা, “আমরা দীর্ঘদিন ধরেই পরস্পরের খুব ভালো বন্ধু। বন্ধুত্ব থেকেই পরিণয়। ভালো লাগা এবং বিয়ে।

একজন মানুষকে জীবনসঙ্গী করার জন্য সবচেয়ে যেটা জরুরি তা হলো পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ ও নির্ভরতার জায়গা। আমাদের মধ্যে সেটি প্রবল বলেই বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

বিয়ের পর থেকে তার ফোন এক মুহূর্তের জন্যও নিশ্চুপ থাকছে না। একের পর এক সবাই ফোন করে শুভেচ্ছাবার্তা দিচ্ছে, দোয়া করছে। তিনি বলেন, এত ব্যস্ততার মধ্যে আমি কাউকেই আরাম করে মনের কথাগুলো বলতে পারছি না। ঘরভর্তি মানুষ, বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়-স্বজন।

সবাইকে পেয়ে সত্যিই খুব ভালো লাগছে। আমাদের বিয়েতে সবাই যেভাবে তাদের আনন্দ প্রকাশ করছে তাতে নিজের আনন্দ দ্বিগুণ হয়ে গেছে। সবার কাছে একটাই প্রত্যাশা, সেটি হলো দোয়া। যেন আমরা ভালো থাকি।”

এ দিকে জানা গেলো পেশায় ব্যবসায়ী রেজা আমিন সুমনের গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জ জেলার অষ্টগ্রামে। সেখানে এক অভিজাত পরিবারে জন্ম তার। তার বর্তমানে নিজের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান থাকলেও কর্মজীবনে র‌্যাংগস গ্রুপে চাকরি করেছেন। পরে নিজে ব্যবসায়ী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন। ব্যবসায়িক সূত্রে শমীর সঙ্গে পরিচয় ও পরে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে।

ফটোগ্রাফিতে শখ রয়েছে তার। ভ্রমণ পিপাসু রেজা আমিন ভালোবাসেন সবুজ অরণ্য, জল-বন-পাখি-প্রাণীদের সঙ্গ। সুযোগ হলেই বেরিয়ে পড়েন দেশে-বিদেশের নানা ঠিকানায়। তিনি খেলাধুলা প্রিয়। ফুটবলে তার প্রিয় ক্লাব বার্সেলোনা। ক্লাবটির নিজস্ব স্টেডিয়াম ক্যাম্প ন্যুতে গিয়ে খেলা দেখার অভিজ্ঞতাও রয়েছে তার।

রেজা আমিন সুমনের দ্বিতীয় বিয়ে এটি। প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদ ঘটেছে সম্প্রতি। সেই সংসার ভেঙ্গে গেলে শমীকে বেছে নেন জীবনের নতুন সঙ্গী হিসেবে।

আরও পড়ুন- আবার বিয়ে করলেন শমী কায়সার

শমীর পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, গত ২৭ সেপ্টেম্বর বিয়ে সম্পন্ন হয় সুমন-শমীর। গত ৭ অক্টোবর ছিল শমীর গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান। ৯ অক্টোবর ছিল বিয়ের রিসিপশন। করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এই আয়োজন সম্পন্ন হয়। যে কারণে রিসিপশনে শুধু উপস্থিত ছিলেন বর-কনের দুই পরিবারের সদস্য ও কাছের মানুষ।

রেজা আমিনের দ্বিতীয় বিয়ে হলেও এটি শমী কায়সারের তৃতীয় বিয়ে। এর আগে ১৯৯৯ সালে পশ্চিমবঙ্গের চিত্রনির্মাতা রিঙ্গোকে বিয়ে করেন শমী। নানা কারণে দুই বছর পর তাদের মধ্যে দূরত্ব বেড়ে গেলে সেই বিয়ে ভেঙ্গে যায়।

এরপর ২০০৮ সালের ২৪ জুলাই শমী বিয়ে করেন একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মোহাম্মদ আরাফাতকে। সেই সংসারেও বিচ্ছেদ ঘটে।

নব্বই এর দশকের জনপ্রিয় টিভি অভিনেত্রী শমী কায়সার। শহীদ বুদ্ধিজীবী শহীদুল্লাহ কায়সার ও সাবেক সংসদ সদস্য পান্না কায়সারের কন্যা তিনি। শমী কায়সার ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব)-এর সভাপতি।

আডি/ ১৩ অক্টোবর



[ad_2]

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::