শিরোনাম :
স্বাস্থ্যবিধি না মানলে প্রয়োজনে কারাদন্ড দেয়া হবে-জেলা প্রশাসক চকরিয়ায় অবৈধ বসতি গুঁড়িয়ে দিয়ে এক একর সংরক্ষিত বনভূমি উদ্ধার কক্সবাজার সদরের ইসলামাবাদে কারের ধাক্কায় টমটম চালক নিহত পেকুয়ায় রাতে নির্মিত ৩টি অবৈধ স্থাপনা দিনে উচ্ছেদ লকডাউন আর না, সচেতন হোন-সিনিয়র সচিব মো. হেলালুদ্দিন পেকুয়ায় মাস্ক ব্যবহার না করায় ৯ জনকে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা কভিড-১৯ প্রণোদনা নিয়ে কক্সবাজারে ব্যাংক কর্মকর্তাদের সাথে সংলাপ শিশু ধর্ষণের দায়ে কুতুবদিয়ার এক ব্যক্তি যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও এক লাখ টাকা অর্থদন্ড দাবি আদায়ে কর্মবিরতিতে কক্সবাজারের স্বাস্থ্য সহকারীরা করোনা প্রতিরোধে কক্সবাজারে ফ্রেন্ডশিপয়ের ‘সারি’ আইসোলেশন ও চিকিৎসা কেন্দ্র চালু
শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২:৩২ অপরাহ্ন

রাজধানীর মহাখালীতে হচ্ছে নগর হাসপাতাল

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: নভেম্বর ১১, ২০২০ ১:২১ অপরাহ্ণ | সম্পাদনা: নভেম্বর ১১, ২০২০ ১:২১ অপরাহ্ণ

[ad_1]

ঢাকা, ১১ নভেম্বর- মহাখালীতে নির্মিত মার্কেট ভবনে ৫০০ শয্যার হাসপাতাল তৈরির পরিকল্পনা করছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। এ জন্য অতিরিক্ত ৩৬০টি দোকান তৈরি করা হবে আমিনবাজারে। কারওয়ান বাজারের কাঁচাবাজার স্থানান্তরের পরিকল্পনা নিয়ে তিনটি মার্কেট তৈরি হয়েছিল। তবে মার্কেট নির্মাণের ছয় বছর পার হলেও স্থানান্তর হয়নি কারওয়ান বাজারের কাঁচাবাজার।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, মহাখালী মার্কেটকে আমরা অত্যাধুনিক ৫০০ শয্যার আরবান হাসপাতালে রূপান্তর করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। এই জায়গা ব্যবসার জন্য খুব একটা সুবিধাজনকও না। আমরা কারওয়ান বাজার স্থানান্তর করে যাত্রাবাড়ী এবং আমিন বাজারে নিয়ে যাব। আমিসহ সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় কাজ খুব একটা এগোতে পারিনি।

পুরো সুস্থ হয়ে ফিরে আমরা এই প্রকল্প নিয়ে কাজ শুরু করব।’ তিনি আরও বলেন, যাত্রাবাড়ীতে নির্মিত মার্কেট ভবনে দোকান আছে ৯৩০টি, আমিন বাজারে ৮২০টি। মহাখালী মার্কেটকে নগর হাসপাতাল করায় আমিন বাজারে আরও ৩৬০টি দোকান তৈরি করা হবে। এতে ব্যবসায়ীদেরও সুবিধা হবে। কারণ তারা বারবার আমাদের বলেছেন, তারা বেশি ভাগে ভাগ না হয়ে একত্রে থেকে ব্যবসা করতে চান। তবে খুব দ্রুতই কারওয়ান বাজারের কাঁচাবাজার সরাতে পারছি না। আর কিছুটা সময় প্রয়োজন ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলোচনায়।

ডিএনসিসি সূত্রে জানা যায়, জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) সভায় ২০০৬ সালের ৪ অক্টোবর ‘ঢাকা শহরের তিনটি পাইকারি কাঁচাবাজার নির্মাণ প্রকল্প’ অনুমোদন পায়। অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশন ২০০৭ সালে এ তিন মার্কেট নির্মাণ কাজ শুরু করে। আমিন বাজারে ৩৩ বিঘা, মহাখালীতে ৭ বিঘা এবং যাত্রাবাড়ীতে ৫ বিঘা জমির ওপর এ পরিকল্পিত কাঁচাবাজার নির্মাণ করে সিটি করপোরেশন। শুরুতে প্রকল্পের আকার ছিল ২০৬ কোটি টাকা। পরে আকার বেড়ে দাঁড়ায় ৩৩১ কোটি টাকা।

প্রকল্প বাস্তবায়নের পুরো টাকা সরকারের দেওয়ার কথা থাকলেও ২৬৪ কোটি টাকা পরিশোধ করার পর সরকার আর কোনো টাকা দেয়নি। পরে সিটি করপোরেশনের নিজস্ব ফান্ডের টাকা থেকে প্রকল্পের কাজ শেষ হয়। ২০১৩ সালের তিন পাইকারি কাঁচাবাজার নির্মাণ প্রকল্পের কাজ শেষ হয়। এরপর থেকে কারওয়ান বাজারের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলোচনা করে তাদের সরানোর চেষ্টা করেছে সিটি করপোরেশন, কিন্তু রাজি করাতে পারেনি।

প্রয়াত মেয়র মো. আনিসুল হক দায়িত্ব গ্রহণের পর বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করলেও তার মৃত্যুর পর আর অগ্রগতি হয়নি। কারওয়ান বাজার ডিএনসিসির ২৪ বিঘা জায়গার ওপর আড়তসহ বিভিন্ন সাইজের ২ হাজার ৩০১টি দোকান রয়েছে। ব্যবসার ধরন অনুযায়ী আটটি সমিতিও গড়ে উঠেছে সেখানে। এসব সমিতির মাধ্যমে শ্রেণিভিত্তিক ব্যবসা ও দোকান পরিচালিত হচ্ছে।

ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘মহাখালী ডিএনসিসি মার্কেট মূলত পাইকারি কাঁচাবাজারের জন্য তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু বিভিন্ন কারণে এটি বাজারে বাস্তবায়ন করা যায়নি। দোকান বিক্রয়ের পরিকল্পনা নিয়ে গত বছর আমরা সিটি করপোরেশনের বাজেট প্রণয়ন করেছিলাম। কিন্তু এর মাঝে কভিড-১৯ এলো। কভিড আমাদের অনেক বড় শিক্ষা দিয়ে গেছে। ডিএনসিসির নিজস্ব কোনো হাসপাতাল নেই। ঢাকা সিটি করপোরেশন যখন দুই ভাগ হয় তিনটি হাসপাতালই দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে পড়েছে।

সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন

আর/০৮:১৪/১১ নভেম্বর

[ad_2]

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::