শিরোনাম :
মৃত্যু নিশ্চিত করতে পর পর দুটি গুলি করেন ওসি প্রদীপ দীর্ঘদিন পর অনুশীলনটাকে চ্যালেঞ্জিং মনে হচ্ছে মুমিনুলের বৈরুতে নেতাদের ওপর ক্ষোভ বাড়লেও উদ্ধার কাজে এসেছে গতি দক্ষ ও প্রশিক্ষিত কৃষি-গ্রাজুয়েট তৈরি করতে হবে: কৃষিমন্ত্রী লাইসেন্সবিহীন হাসপাতাল-ক্লিনিকের তথ্য চেয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর অবশেষে করোনামুক্ত অভিষেক, এক মাস পর হাসপাতাল ছাড়লেন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের অনুসন্ধানে প্রবাসীদের সহযোগীতা চাইলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিনহা হত্যা মামলার ৪ আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদ, ৩ আসামীকে এখনো রিমান্ডে নেয়নি কেরালার বিমান দুর্ঘটনায় অলৌকিক ভাবে বেঁচে গেল এক পরিবার মাশরাফীর বাবা-মাসহ পরিবারের চারজন করোনায় আক্রান্ত
রবিবার, ০৯ অগাস্ট ২০২০, ০৫:১৩ পূর্বাহ্ন

মিশরে শতাধিক ছাত্রী এক তরুণের ধর্ষণ-যৌন হয়রানির শিকার!

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: July 4, 2020 9:03 pm | সম্পাদনা: July 4, 2020 9:03 pm


কায়রো, ৫ জুলাই- কয়েক বছর ধরে শতাধিক বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া যুবতীকে যৌন হয়রানি ও অবমাননার দায়ে মিশরে ২২ বছর বয়সী এক যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ করেছেন নির্যাতিত ছাত্রীরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ওই যুবকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগে সয়লাব। ফলে বাধ্য হয়ে মিশর কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন আরব নিউজ।

কায়রোতে অবস্থিত আমেরিকান ইউনিভার্সিটিতে (এইউসি) শতাধিক নারীকে ওই তরুণ যৌন হয়রানি করার অভিযোগ রয়েছে।

জানা গেছে, ওই তরুণ বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক শিক্ষার্থী। নানাভাবে তিনি নারীদের সঙ্গে প্রতারণা করতেন।

এইউসি কর্তৃপক্ষ বলছে, ওই তরুণ ২০১৮ সালে বিশ্ববিদ্যালয় ছেড়ে চলে গেছেন। তারপর নানা সময়ে নারী শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানি করতে থাকেন তিনি।

এক নারী শিক্ষার্থীর অভিযোগ, আমাদের ১৩ থেকে ১৪ বছর বয়সে ওই তরুণ আমাকে এবং আমার বোনকে যৌন নিপীড়ন করেছে। এ ব্যাপারে মুখ খুললে আপত্তিকর ছবি প্রকাশ করার হুমকি দিয়েছিলেন ওই তরুণ।

আরেক নারীর অভিযোগ, ওই তরুণ আমাকে বলেছিল, আমি যদি তার ব্যাপারে মুখ খুলি, তাহলে সে আমার পরিবারের কাছে বলবে যে, আমি তার সঙ্গে রাত কাটিয়েছি। এমনকি আমার কাছ থেকে দফায় দফায় সে টাকা হাতিয়েছে সব ফাঁস করে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে।

আরেক নারী শিক্ষার্থীর অভিযোগ, আমি তখন বিদ্যালয়ের ছাত্রী। ওই সময় আমার সঙ্গে ঘুরতে গিয়ে যৌন হয়রানি করেছে সে। এ ব্যাপারে তরুণের বাবার সহযোগিতা রয়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, আমি যখন এইউসি’তে ভর্তি হই, তখন আবারো তার খপ্পরে পড়ে যাই। এমনকি সে আমার সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের মতো জোর-জবরদস্তি করতো। আর নানা ঘটনার ছবি তুলে রাখতো। পরে সেগুলো ব্যবহার করে নিজের ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করতো।

সূত্র: বিডি২৪লাইভ

আর/০৮:১৪/৫ জুলাই




কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::