শিরোনাম :
রোহিঙ্গা মহিলারা প্রতিভা বিকাশের সুযোগ পাচ্ছে সড়ক-মহাসড়কে সকল ধরনের অবৈধ চাঁদাবাজী রুখতে হবে- শাহজাহান খাঁন এমপি টেকনাফ শাহপরীর দ্বীপ খেলার মাঠ অবৈধ দখল মুক্ত করল সহকারী কমিশনার কক্সবাজার জেলায় পাঁচ বছরে মানুষের আক্রমণে ২১টি হাতির মৃত্যূ কক্সবাজারে জলবায়ু উদ্বাস্তু ও বিমানবন্দর সম্প্রসারণে আরও একটি আশ্রয়ণ’ প্রকল্প : ভূমিহীন ৩,৮০৮ পরিবার পাবে ১১৯টি ভবন চকরিয়ায় মাতামুহুরী নদীর তীরে পলিথিন মোড়ানো শিশুর মরদেহ উদ্ধার ধরে নিয়ে যাওয়া ৯ বাংলাদেশী জেলেকে বিজিবি’র কাছে হস্তান্তর করল বিজিপি কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের ৩ সদস্য নিয়োগ সিরাজুল মোস্তফা কেন্দ্রে; জেলার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফরিদ বাঁধ মেরামতে স্বস্তি পাচ্ছে কুতুবদিয়ার মানুষ
বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১০:৪৭ পূর্বাহ্ন

মহেশখালীতে টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে গৃহবধূ নিরুদ্দেশ

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: এপ্রিল ১২, ২০১৮ ১:৪৫ পূর্বাহ্ণ | সম্পাদনা: এপ্রিল ১২, ২০১৮ ১:৪৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:

মহেশখালী উপজেলার হোয়ানকে শ্বশুরবাড়ির থেকে টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও মালামাল নিয়ে নিরুদ্দেশ হয়েছে রুফিয়া বেগম নামে এক গৃহবধূ। তিনি ইউনিয়নের ফকিরখালী পাড়ার হাজী জালাল আহামদের পুত্র মো. রুবেলের স্ত্রী। গত ৪ এপ্রিল রাতে সবার অগোচরে লাপাত্তা হয়ে যান এই গৃহবধূ। বাপের বাড়িও যায়নি বলে দাবি করেছেন গৃহবধূর বাপের বাড়ির লোকজন। এতদিন ধরে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করেও কোনো খোঁজ না পেয়ে স্বামী মো. রুবেল মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৭ জুলাই ইসলামী শরীয়ত মোতাবেক পারিবারিকভাবে মো. রুবেলের সাথে একই ইউনিয়নের ছনখোলাপাড়ার এলাকার ছবির মিয়ার মেয়ে রুফিয়া বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর চাকরি সূত্রে মো. রুবেল চট্টগ্রামে অবস্থান করতেন। মাসে কয়েকবার বাড়িতে আসা-যাওয়া করতেন। এই কারণে স্ত্রী রুফিয়া বেগম যৌথ পরিবারের শ্বশুর-শ্বাশুড়িসহ অন্যান্যদের সাথে খারাপ ব্যবহার করতে থাকে। এই নিয়ে কথা কাটাকাটি হলে হুট করে বাড়ি থেকে বের হয়ে যেতেন স্ত্রী। এর অংশ হিসেবে প্রথমে দু’বার বাপের বাড়ি চলে যায় রুফিয়া। তবে স্থানীয় সালিশের মাধ্যমে পুনরায় ফিয়ে আনা হয়। তারপরও উচ্ছৃঙ্খল আচরণ অব্যাহত রাখে। এক পর্যায়ে গত ৪এপ্রিল ভাই হুম্মাত আলীকে ডেকে এনে সবার অগোচরে শ্বশুর বাড়ির ৭৭ হাজার টাকা, চারভরি স্বর্ণালঙ্কার ও ২০ হাজার টাকার মূল্যে কাপড়চোপড় নিয়ে বাড়ি থেকে চলে যায়। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে শ্বশুরবাড়ির লোকজন রুফিয়ার বাপের বাড়িতে খবর নেন। কিন্তু তারা রুফিয়া সেখানে যায়নি বলে সরাসরি অস্বীকার করেন। পরে স্বামী মো. রুবেলসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন রুফিয়াকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও তার কোনো সন্ধান পায়নি।

মো. রুবেল অভিযোগ করে বলেন, মা-বাবা ও ভাইবোনের ইন্ধনে রুফিয়া টাকা,স্বর্ণালঙ্কার ও কাপড়চোপড় নিয়ে লুকিয়ে রয়েছে। মূলত মা-বাবা ও ভাইবোনেরা যোগসাজস করে তাকে লুকিয়ে রেখেছে টাকা,স্বর্ণালঙ্কার ও কাপড়চোপড়গুলো আত্মসাৎ করার জন্য। তাই আইগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করেছি।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::