শিরোনাম :
প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব পদে নিয়োগ পেলেন দুজন এমসি কলেজে গৃহবধূকে গণধর্ষণে জড়িত আরও ২ আসামি গ্রেফতার তৌসিফের নতুন গানচিত্র আইপিএলে প্রথম সেঞ্চুরি হাঁকালেন মায়াঙ্ক মাহবুবে আলমের অবদান জাতি শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে : প্রধানমন্ত্রী সমঝোতার আড়ালে চীন সীমান্তে ভয়ঙ্কর ট্যাংক মোতায়েন করল ভারত! ষড়যন্ত্র সত্ত্বেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের অগ্রগতি থেমে নেই: তথ্যমন্ত্রী মাহবুবে আলমের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করলেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী কমিশন গঠনের প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোভিড-টিকা নিতে ইচ্ছুক নন প্রায় অর্ধেক মার্কিনি!
সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:২১ পূর্বাহ্ন

মহেশখালীতে কাতারের পর এবার এলএনজি ওমান থেকে

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: মে ৭, ২০১৮ ৩:২১ পূর্বাহ্ণ | সম্পাদনা: মে ৭, ২০১৮ ৩:২১ পূর্বাহ্ণ

কাতারের পর এবার ওমান থেকে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) আমদানি করছে সরকার। দেশটি থেকে বছরে ১০ লাখ টন এলএনজি আনা হবে; যা আগামী জুলাই থেকে শুরু হবে।
রাজধানীর কারওয়ান বাজারে পেট্রো সেন্টারে রোববার রাতে পেট্রোবাংলা ও ওমান ট্রেডিং ইন্টারন্যাশনালের (ওটিআই) মধ্যে এ বিষয়ে চুক্তি সই হয়।

চুক্তিতে সই করেন করেন পেট্রোবাংলার সচিব সৈয়দ আশফাকুজ্জামান ও ওটিআইর মাহির আল জাদঝালি।

চুক্তি অনুযায়ী, ১০ বছর মেয়াদে এলএনজি সরবরাহ করবে ওমানের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ওটিআই। মহেশখালীতে যুক্তরাষ্ট্রের এক্সিলারেট এনার্জির টার্মিনাল চালু হওয়া সাপেক্ষে বছরে ৫ লাখ টন এবং সামিটের টার্মিনাল চালু হওয়া সাপেক্ষে আরও ৫ লাখ টন এলএনজি বাংলাদেশে বিক্রি করবে ওটিআই।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, জ্বালানি সচিব নাজিমউদ্দিন চৌধুরী, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মো. ফয়জুল্লাহ।

এর আগে কাতারের এলএনজি সরবরাহকারী কোম্পানি রাস গ্যাসের সঙ্গে ১৫ বছর মেয়াদি চুক্তি করে বাংলাদেশ। চুক্তি অনুযায়ী, কাতার থেকে প্রতিবছর ২৮ লাখ মেট্রিকটন করে এলএনজি বাংলাদেশে সরবরাহ করবে। যা এরইমধ্যে চট্টগ্রাম বন্দর জেটি থেকে ৯৭ কিলোমিটার দূরে বঙ্গোপসাগরের মহেশখালী অংশে নোঙর করা শুরু করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের এক্সিলারেট এনার্জির বিশেষায়িত জাহাজ ‘এক্সিলেন্স’ এখন অপেক্ষা করছে গ্যাস সরবরাহের জন্য।

জ্বালানি সংশ্লিষ্টরা বলছেন, চলতি মাসের মাঝামাঝি জাহাজটি ভিড়বে একটি বেস স্টেশনে। এরপর গ্যাস সরবরাহের কাজ শুরু হবে। ভাসমান বেস ও পুনরায় গ্যাসে রূপান্তরকরণ ইউনিট (এফএসআরইউ) কাজ শুরু করলে এটি প্রথমে মহেশখালী থেকে পাইপলাইনে করে যাবে চট্টগ্রামের আনোয়ারায়। পরে তা জাতীয় গ্রিডের মাধ্যমে পাঠানো হবে দেশের অন্যান্য অঞ্চলে।

এর ফলে চট্টগ্রাম ও অন্যান্য জায়গায় গ্যাসের যে চাহিদা রয়েছে তা অনেকটা মিটবে। আমদানির ফলে মিলবে নতুন নতুন সংযোগও।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::