সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:২৩ অপরাহ্ন

পেকুয়ায় শিশু ছাত্রকে জখম করল পাষন্ড নারী

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: জুলাই ১৬, ২০১৮ ১০:৪৮ পূর্বাহ্ণ | সম্পাদনা: জুলাই ১৬, ২০১৮ ১০:৪৮ পূর্বাহ্ণ

নাজিম উদ্দিন, পেকুয়া ::
পেকুয়ায় শিশু ছাত্রকে জখম করল পাষন্ড নারী। তাকে গলা চেপে ধরে শ্বাসরুদ্ধ করার চেষ্টা করা হয়। এ সময় মাদ্রাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা দ্রুত এগিয়ে এসে এ শিশুকে উদ্ধার করে। এ সময় তাকে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। ১৫ জুলাই রবিবার সকাল ৭ টার দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের শেখেরকিল্লাঘোনা গ্রামে আশরাফুল উলুম মাদ্রাসা সংলগ্ন স্থানে এ ঘটনা ঘটে। আহত শিশুর নাম হাবিবুর রহমান(৮)। সে আশরাফুল উলুম মাদ্রাসার ২য় শ্রেনীর ছাত্র। তার পিতার নাম মৌলানা মাহমুদুল হক। স্থানীয় সুত্র জানায়, হাবিবুর রহমান ওই মাদ্রাসার কেজি নুরানী তালীমুল কোরআন সেন্টারে ২য় শ্রেনীতে পড়ছিলেন। ওই দিন সকালে বাসা থেকে মক্তবে পৌছছিলেন। পথিমধ্যে মৌলভী জালাল উদ্দিনের বাড়ির সামনে পৌছলে তাকে পিছুন থেকে ধরে ফেলে। এ সময় গলা চেপে ধরে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হয়। ওই শিশু চিৎকারসহ কান্নাকাটি করছিল। এক পর্যায়ে তাকে সজোরে গলা চেপে ধরে। এ সময় হাতের প্রচন্ড আঘাতে তার মুখমন্ডল ও গলায় মারাত্মক জখম হয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা দ্রুত এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে। ওই শিক্ষার্থীর মা কমরুন্নিছা জানায়, আমার স্বামী একজন আলেম। চট্রগ্রাম শহরের একটি মসজিদের খতিব। মগনামা থেকে এসে পেকুয়া সদরে বাসা ভাড়া নিই। ছেলেমেয়েদের পড়ালেখার জন্য এখানে অবস্থান করছি। জালাল উদ্দিনের স্ত্রী ফাতেমা বেগম আমার ছেলেকে গলা চেপে ধরে। তাকে পাচার করতে এ কান্ড। নিশ্চিত অপহৃত হচ্ছিল আমার ছেলে। সহপাঠী ও মাদ্রাসার শিক্ষকরা এগিয়ে এসে প্রান রক্ষাসহ তাকে অপহরন থেকে বাঁচায়। মুমূর্ষ অবস্থায় হাসপাতালে পৌছায় ছেলেকে। সে পাষন্ড নারী।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::