শিরোনাম :
মৃত্যু নিশ্চিত করতে পর পর দুটি গুলি করেন ওসি প্রদীপ দীর্ঘদিন পর অনুশীলনটাকে চ্যালেঞ্জিং মনে হচ্ছে মুমিনুলের বৈরুতে নেতাদের ওপর ক্ষোভ বাড়লেও উদ্ধার কাজে এসেছে গতি দক্ষ ও প্রশিক্ষিত কৃষি-গ্রাজুয়েট তৈরি করতে হবে: কৃষিমন্ত্রী লাইসেন্সবিহীন হাসপাতাল-ক্লিনিকের তথ্য চেয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর অবশেষে করোনামুক্ত অভিষেক, এক মাস পর হাসপাতাল ছাড়লেন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের অনুসন্ধানে প্রবাসীদের সহযোগীতা চাইলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিনহা হত্যা মামলার ৪ আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদ, ৩ আসামীকে এখনো রিমান্ডে নেয়নি কেরালার বিমান দুর্ঘটনায় অলৌকিক ভাবে বেঁচে গেল এক পরিবার মাশরাফীর বাবা-মাসহ পরিবারের চারজন করোনায় আক্রান্ত
রবিবার, ০৯ অগাস্ট ২০২০, ০৫:০৬ পূর্বাহ্ন

পেকুয়ায় বাড়ির ভেতর আলোচিত মাদক সম্রাজ্ঞী কুলসুমার লাশ

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: June 24, 2020 12:26 am | সম্পাদনা: June 24, 2020 12:26 am

নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া::

কক্সবাজারের পেকুয়ায় আলোচিত মাদক সম্রাজ্ঞী কুলসুমা আক্তার (৪৭) এর মরদেহ উদ্ধার করেছে স্থানীয়ারা।

বুধবার (২৪জুন) সকালে উপজেলার সদর ইউনিয়নের গোয়াখালী উত্তর পাড়া এলাকায় তার বাড়ি থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

কুলসুমা আক্তার (স্বামী পরিত্যক্ত) ওই এলাকার মৃত,জাফর আলমের মেয়ে। হত্যা নাকি আত্মহত্যা এ নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে।

তবে স্থানীয়রা জানায়,অতিরিক্ত ইয়াবা সেবনে তার মৃত্যু হতে পারে বলে। কুলসুমার ছেলে সুমন জানায়, আমি রাতে বাড়িতে ছিলাম না। পাশের ফুফির বাড়িতে ছিলাম। সকালে বাড়ি এসে দেখি ঘরের দরজা বন্ধ। ভিতরে হুক লাগানো ছিল। মাকে অনেক ডাকা ডাকি করি। কিন্তু কোন সাড়া শব্দ নেই। শেষে দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে দেখতে পাই আমার মা মাটিতে পড়ে আছে। আমি চিৎকার করলে স্থানীয়রা বাড়িতে এসে মায়ের মরদেহ দেখতে পায়।

স্থানীয়রা জানায়, কুলসুমা পেকুয়ার একজন আলোচিত মাদক সম্রাজ্ঞী। প্রতিদিন রাতে তার বাড়িতে ইয়াবা ও মাদকের আসর বসে। তিনিও একজন ইয়াবা খোর। অতিরিক্ত ইয়াবা সেবনে তার মৃত্যু হয়েছে।

পেকুয়া থানা সুত্রে জানা গেছে, কুলসুমা তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী। মামা ভাগিনার দোকান সংলগ্ন তার বাড়ি। মামা ভাগিনার দোকান ইয়াবা জোন নামে খ্যাত। কুলসুমার বিরুদ্ধে ৭/৮টি মাদক মামলা রয়েছে। একাধিকবার কারাবরন করেছে।

সদর ইউপির গ্রাম পুলিশ ও উত্তর পাড়ার বাসিন্দা জসিম উদ্দিন জানান, কুলসুমা স্বামী পরিত্যক্তা মহিলা। সুমন নামে এক ছেলে রয়েছে তার। ছেলেকে নিয়ে সে তার বাড়িতে বসবাস করে। আসলে কি কারনে মারা গেছে তা নিশ্চিত করে বলতে পারছিনা।

পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ কামরুল আজম জানায়, শুনেছি কুলসুমার মরদেহ তার বাড়িতে পাওয়া গেছে।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::