শিরোনাম :
বিভিন্নস্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় ঝরলো ২০ প্রাণ মৃত্যু নিশ্চিত করতে পর পর দুটি গুলি করেন ওসি প্রদীপ দীর্ঘদিন পর অনুশীলনটাকে চ্যালেঞ্জিং মনে হচ্ছে মুমিনুলের বৈরুতে নেতাদের ওপর ক্ষোভ বাড়লেও উদ্ধার কাজে এসেছে গতি দক্ষ ও প্রশিক্ষিত কৃষি-গ্রাজুয়েট তৈরি করতে হবে: কৃষিমন্ত্রী লাইসেন্সবিহীন হাসপাতাল-ক্লিনিকের তথ্য চেয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর অবশেষে করোনামুক্ত অভিষেক, এক মাস পর হাসপাতাল ছাড়লেন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের অনুসন্ধানে প্রবাসীদের সহযোগীতা চাইলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিনহা হত্যা মামলার ৪ আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদ, ৩ আসামীকে এখনো রিমান্ডে নেয়নি কেরালার বিমান দুর্ঘটনায় অলৌকিক ভাবে বেঁচে গেল এক পরিবার
রবিবার, ০৯ অগাস্ট ২০২০, ০৫:৩৩ পূর্বাহ্ন

পেকুয়ায় বাড়ির দেয়াল চাপা পড়ে আহত স্কুল ছাত্রী হাসপাতালে লড়ছে মৃত্যুর সাথে

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: June 19, 2020 6:03 am | সম্পাদনা: June 19, 2020 6:03 am

নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া::

কক্সবাজারের পেকুয়ার মগনামায় বাড়ির দেয়াল চাপা পড়ে আহত স্কুল ছাত্রী হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে লড়ছে।

বৃহষ্পতিবার (১৮জুন) দুপুরে বাড়ির ধ্বসে পড়ে। এ সময় মাটি চাপা পড়ে ভাই-বোন। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে পেকুয়া হাসপাতালে ভর্তি করে। গুরুতর স্কুল ছাত্রী ইয়াসমিন আক্তারকে (১৫) চকরিয়া মেমোরিয়াল খৃষ্টান হাসপাতালে ভর্তি করে।

অবস্থার অবনতি হওয়ায় ওইদিন তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (চমেকে) রেফার করা হয়েছে। মগনামা মরিচ্যাদিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন ওই এলাকার আজিজুর রহমানের ছেলে গিয়াস উদ্দিন (২৭) ও মেয়ে মগনামা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর ছাত্রী ইয়াসমিন আক্তার (১৫)।

খবর পেয়ে মগনামা ইউপির চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি তাৎক্ষনিক স্কুল ছাত্রীর জন্য নগদ ১০ হাজার টাকা চিকিৎসা সহায়তা দিয়েছেন।

জানাগেছে, গত দু’দিন টানা বর্ষনে মগনামার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। প্রবল বর্ষনে বৃষ্টির পানি একাকার হয়েছে। ওইদিন আজিজুর রহমানের মাটি দেয়ালের বাড়ি পানিতে নিমজ্জিত হয়। দুপুরে আকষ্কিকভাবে মাটির দেয়াল ধ্বসে পড়ে।

স্থানীয়রা জানায়, ওইদিন ইয়াসমিন ও তার ভাই গিয়াস উদ্দিন বাড়িতে অবস্থান করছিল। পরিবারের অন্য সদস্যরা বাড়ির বাহিরে অবস্থান করে। বাড়ির দেয়ার ধ্বসে পড়ে পুরোবাড়ি লন্ডভন্ড হয়ে যায়। মাটি চাপা পড়ে গুরুতর আহত হন দুই ভাই বোন।

ইউপি চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম জানায়, খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক ছুটে গিয়েছি। স্কুল ছাত্রীর অবস্থা খুবই গুরুতর। তার কোমর ও মেরুদন্ড ভেঙ্গে গেছে। চিকিৎসার জন্য আমি কিছু অর্থ সহায়তা দিয়েছি। মেয়েটি বর্তমানে চমেক হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে লড়ছে। তার বড় ধরনের অপারেশন করাতে হবে। অনেক ব্যয়বহুল চিকিৎসা।

আজিজুর রহমান বৃদ্ধ লোক। নিতান্ত অসহায় ও দরিদ্র লোক। কামলার কাজ করে কোন রকম সংসার চালায়। তার পক্ষে এত ব্যয়বহুল চিকিৎসা করা কঠিন হয়ে পড়বে। এলাকার বিত্তবানরা এগিয়ে আসলে ছাত্রীটি আবার সুস্থ হয়ে আমাদের মাঝে ফিরে আসবে।

আমি এ ব্যাপারে অহসায় পরিবারটির চিকিৎসা সহায়তার জন্য এলাকার বিত্তবানদের এগিয়ে আসার জন্য আহবান করছি। মানুষ মানুষের জন্য। জীবন জীবনের জন্য। সবাই একটু আন্তরিক হলে মেয়েটির চিকিৎসাসেবা বঞ্চিত হবেনা। ফিরিয়ে পাবে সুস্থ জীবন। হাসি মুখে করতে পারবে পড়া লেখা।

স্থানীয়রা জানায়, আজিজুর রহমান নিতান্ত গরীব। ছোট্ট কুড়ে ঘরে পরিবার পরিজন নিয়ে কোন রকম বসবাস করে আসছিলেন। বৃষ্টির পানিতে দেয়াল ধ্বসে পড়ে ঘরটিও ভেঙ্গে গেছে। বর্তমানে পরিবারটি খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::