বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১২:৩০ পূর্বাহ্ন

পেকুয়ায় বন্দোবস্তির জমিতে বসতবাড়ি নির্মাণ, উত্তেজনা

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: মে ৩০, ২০১৮ ১০:২৭ পূর্বাহ্ণ | সম্পাদনা: মে ৩০, ২০১৮ ১০:২৭ পূর্বাহ্ণ

নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া ::
পেকুয়ায় সরকারের ১ নং খাস খতিয়ানের ৯০ শতক জমি নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। সরকার ওই জমি লবণ চাষীকে বন্দোবস্তি দেয়। দীর্ঘ ৫০ বছর ওই জমি তিনি ভোগ করছিলেন। লবণ উৎপাদনসহ জমির দখল তার। সম্প্রতি ওই জমিতে বসতবাড়ি নির্মাণ কাজ আরম্ভ করে। এতে করে স্থানীয় একটি ভূমি গ্রাসী চক্র তাকে বাধা দেয়। এ নিয়ে গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে অন্তত দু’দফা ধাওয়া ও পাল্টা ধাওয়া হয়েছে। পেকুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। উত্তেজনা প্রশমিত করতে পুলিশ ওই স্থানে যায়। ৯০ শতক জায়গার বিরোধকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে মারপিট সহ সংঘাত হয়েছে। থানা ও কোর্টে মামলা রয়েছে। গ্রাম আদালতে বিচারাধীন মামলা আছে। বিরোধ দু’পক্ষের। অভিযোগ উঠেছে, একটি মামলাবাজ চক্র ৩য় পক্ষের আবুল কালাম নামের একজনকে ওই ঘটনায় সম্পৃক্ত করার অপপ্রয়াস চালায়। কাল্পনিক ঘটনায় বাইন্যাঘোনা এলাকার মৃত ছালেহ আহমদের ছেলে আবুল কালামকে একাধিক মামলা ও অভিযোগে জড়িত করে। এ ভাবে তাকে নিদারুন হয়রানিসহ তার বিরুদ্ধে অবিচার চলছে দাবী করছে তার পরিবার। আবুল কালাম একজন ব্যবসায়ী। তিনি শান্ত স্বভাবের। মারপিট ও হানাহানিতে তার নুন্যতম সম্পর্ক নেই। সুত্র জানায়, ৯০ শতক জায়গা নিয়ে সদর ইউনিয়নের গোঁয়াখালী গ্রামের মৃত আনু মিয়ার ছেলে ছরওয়ার ও মগনামা ইউনিয়নের বাইন্নাঘোনা গ্রামের নুরুল আবছারের ছেলে নুরুল আজিম গংদের বিরোধ। জমির প্রাপ্ত অংশ নিয়ে তারা পরষ্পর মুখোমুখি হচ্ছে। অপরদিকে আবুল কালাম ওই জমির কোন অংশীদার নন। তবে নুরুল আজিম গং তাকে বার বার মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। আবুল কালাম জানায়, আমাকে নিয়ে চক্রান্ত চলছে। নুরুল আজিম একজন দুরন্ত মামলাবাজ। সে আমাকে মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। পুলিশ তদন্ত ছাড়া মামলা নেয়। আমার বেচে থাকার অধিকার আছে। মানুষের মৌলিক অধিকার রাষ্ট্র নিশ্চিত করে। শাসন বিভাগ মৌলিক অধিকার সমুহ জনগনের জন্য প্রতিষ্টিত করে। তবে আমার উপর অবিচার চলছে। একজন মানুষকে এ ভাবে কাল্পনিক ঘটনায় মামলা দিয়ে জর্জরিত করা মানে তার মৌলিক অধিকারের পরিপন্থী। নাগরিকের মানবাধিকারের চরম লংঘন। আমি সরকার ও প্রশাসনকে আহবান করছি এ ধরনের কাল্পনিক ঘটনায় নিরাপরাধ ব্যক্তিদের আইনী সহায়তা দিতে আমি এ সব কামনা করছি।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::