সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৪১ অপরাহ্ন

পেকুয়ায় তিনদিন ধরে খোলা আকাশের নিচে অসহায় পরিবার

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: এপ্রিল ১৭, ২০১৯ ৮:৫৭ পূর্বাহ্ণ | সম্পাদনা: এপ্রিল ১৭, ২০১৯ ৮:৫৭ পূর্বাহ্ণ

পেকুয়া প্রতিনিধি ::

গত তিনদিন ধরে খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে আমিনুল হকের পরিবার। বসতবাড়ি খোলা থাকায় বাড়ির রক্ষিত মালামালও লুট নিয়েছে প্রভাবশালী পক্ষ।

ভুক্তভোগি অামিনুল হক পেকুয়া সদর ইউনিয়নের উত্তর গোয়াখালী এলাকার মৃত আইস্যা মিয়া পুত্র।

অামিনুল হক অভিযোগ করে বলেন, আমি খুব অসহায় পরিবার। গত তিনদিন আগে নিজ বসতবাড়ি মেরামত করার জন্য ঘরের ছাল খুলে নিয়। গতকাল ঘরটি সংস্কার করার জন্য কামলা কাজ শুরু করলে একই এলাকার নুরুল আলমের নেতৃত্বে একদল দূর্বৃত্ত বাধা সৃষ্টি করে।

এক পর্যায়ে তার নেতৃত্বে বেলাল উদ্দিন, মাদুল করিম, এনায়েতুল করিম, আয়াতুল করিম, রেজাউল করিমসহ বেশ কয়েকজন মহিলা কামলাদের মারধর করে তাড়িয়ে দেয়। ওই সময় আমি ঘটনাস্থলে গেলে আমাকে ও আমার স্ত্রীকে মারধর করে। এখন হুমকি দিচ্ছে বসতবাড়ি ভাংচুর করে দখল করে নিবে।

আমিনুল হক আরো বলেন, এর আগেও বসতবাড়ির একমাত্র সম্বল নিয়ে দূর্বৃত্তরা দখল চক্রান্ত শুরু করায় গ্রাম আদালতে অভিযোগ দায়ের করি। গ্রাম আদালত দুই পক্ষের বৈঠক শেষে আমার পক্ষে রায় প্রদান করেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য সাজ্জাদ হোসেন, ইউপি সদস্য নুরুল হক, ইউপি সদস্য অারিফুল ইসলাম সার্ভেয়ার নিয়ে জমি পরিমাপ করে সীমানা নির্ধারণ করে দেন। কিন্তু প্রভাবশালী পক্ষ তা মানতে নারাজ। তারা চাই জোরপূর্বক আমার বসতবাড়ি জবর দখল করবে। সর্বশেষ বসতবাড়ির দাবী ছেড়ে দেওয়ার কথা বলে টাকা দাবী করে। যার কারণে তাদের বিরুদ্ধে জডিসিয়াল আদালত চকরিয়ায় মামলা দায়ের করি। বর্তমানে মামলাটি পিবিআই তদন্ত করছে।

অামি অসহায়। বাড়ির ছাল সংস্কার করতে না পারায় খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছি। সীমাহীন কষ্ট নিয়ে ঘুমাতে হয়। স্থানীয় এলাকাবাসী ও প্রশাসনের কাছে অসহায় মানুষটির পাশে দাঁড়ানোর বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি।

এবিষয়ে জানতে চাইলে পেকুয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান বলেন, লিখিত অভিযোগ ফেলে তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::