শিরোনাম ::
উখিয়ায় মাদক প্রতিরোধ ও অপরাধ দমনে কমিউনিটি পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত একসঙ্গে ৪ সন্তান জন্ম দিলেন মহেশখালীর এক গৃহবধূ! বান্দরবানের দুর্গম অঞ্চলে ঝরে পড়া শিশুদের জন্য উদ্বোধন শিশু প্রতিভা বিকাশ কেন্দ্রের বান্দরবান দুই শতাধিক প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প উখিয়ায় পালস’র উদ্যোগে বিশ্ব শান্তি দিবস পালিত সীমান্তে গুলির শব্দ থামছে না উখিয়ায় প্রশাসনের অভিযানে ৩টি ড্রেজার মেশিন ও ২টি বন্দুকসহ অস্ত্র উদ্ধার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আবারো খুন মুক্তি কক্সবাজার-এর উদ্যোগে ব্যবসায়ী ও উপকারভোগীদের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত পালস-এর উদ্যোগে “বর্ণবাদ-শান্তি ও সম্প্রীতির অন্তরায়” বিষয়ক বির্তক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত
সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:২০ পূর্বাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..

নারী পর্যটক ধর্ষণ: গ্রেপ্তার আসামি ইসরাফল হুদা জয় ৩ দিনের রিমান্ড

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: বুধবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কক্সবাজারে নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ মামলায় আসামি ইসরাফিল হুদা জয়কে তিন দিনের রিমান্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (২৯ ডিসেম্বর) বিকালে কক্সবাজারের
জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আবুল মনসুর সিদ্দিকী এ আদেশ দেন।

ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মহিউদ্দিন আহমেদ বুধবার সন্ধ্যায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, আসামিকে আদালতে তুলে সাত দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করা হয়েছিল। শুনানি শেষে বিচারক তিন দিন জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন।

পুলিশ বলছে, মামলার প্রধান আসামি আশিকের সহযোগী ইসরাফিল হুদা জয়। তার বাড়ি কক্সবাজার শহরে।

ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি মো. মুসলিম বলেন, এ পর্যন্ত মূল অভিযুক্ত আশিকসহ এজাহারভুক্ত তিনজন এবং ওই নারীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আরও তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এই মামলায় জয় ছড়াও চারজনকে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। এর মধ্যে হোটেল গেস্ট ইনের ম্যানেজার রিয়াজ উদ্দিন ছোটন চার দিন এবং অন্যরা দুদিন করে রিমান্ডে আছেন।

দুদিন করে রিমান্ডে থাকা আসামিরা হলেন কক্সবাজার শহরের দক্ষিণ বাহারছড়া এলাকার রেজাউল করিম শাহাবুদ্দিন, চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারার উলুবুনিয়া এলাকার মামুনুর রশীদ ও কক্সবাজার শহরের পশ্চিম বাহারছড়া এলাকার মেহেদী হাসান।

গত ২২ ডিসেম্বর রাতে স্বামী-সন্তান নিয়ে কক্সবাজার বেড়াতে আসা ধর্ষণের শিকার হন নারী পর্যটক। ধর্ষণের শিকার নারীর ভাষ্য, ‘স্বামী-সন্তান নিয়ে ওইদিন সকালে ঢাকা থেকে কক্সবাজারে পৌঁছেন। উঠেন শহরের হলিডে সী-ল্যান্ডের ২০১নং কক্ষে। ওই দিন বিকালে স্বামী-সন্তানকে নিয়ে লাবণি বিচে যান। রাতে হোটেলে ফেরার পথে এক যুবকের সঙ্গে তার স্বামীর ধাক্কা লাগে। এতে স্বামীর সঙ্গে বাগবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে ওই যুবক। বাধা দিলে তার সঙ্গেও তর্কে জড়ায় যুবক। ওই সময় আরও দুই যুবক ঘটনাস্থলে এসে হাজির হয়। তারা স্বামী-সন্তানকে ইজিবাইকে তুলে দিয়ে ওই নারীকে আলাদা করে ফেলে। পরে ওই এলাকার একটি ঝুপড়ি ঘরে নিয়ে তিন জনে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এরপর স্বামী-সন্তানকে হত্যার ভয় দেখিয়ে শহরের জিয়া গেস্ট ইন নামের একটি হোটেলে নিয়ে যায়। এই ঘটনায় ধর্ষিতা নারীর স্বামী মামুন মিয়া বাদী হয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলায় আশিকুল ইসলাম আশিক, বাবু, জয় ও রিয়াজ উদ্দিনের নাম উল্লেখ করে আরো দুই তিন জনকে অজ্ঞাত আসামি দেখানো হয়েছে। ওই মামলায় পুলিশ ও র‌্যাব পৃথক অভিযান চালিয়ে ৬জন আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়।


আরো খবর: