শিরোনাম ::
সামাজিক সংহতি ও শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত উখিয়ার রাজা পালং মাদ্রসা দাখিল পরীক্ষা কেন্দ্রে নানা অভিযোগ, তদন্ত কমিটি গঠিত মুক্তি কক্সবাজারের উদ্যোগে উখিয়ায় নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত ফ্রেন্ডশিপের প্রশিক্ষণে চ্যাম্পিয়ন ভালুকিয়া পালং উচ্চ বিদ্যালয়ের নারী ফুটবল টিমকে সংবর্ধনা উখিয়ায় মাদক প্রতিরোধ ও অপরাধ দমনে কমিউনিটি পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত একসঙ্গে ৪ সন্তান জন্ম দিলেন মহেশখালীর এক গৃহবধূ! বান্দরবানের দুর্গম অঞ্চলে ঝরে পড়া শিশুদের জন্য উদ্বোধন শিশু প্রতিভা বিকাশ কেন্দ্রের বান্দরবান দুই শতাধিক প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প উখিয়ায় পালস’র উদ্যোগে বিশ্ব শান্তি দিবস পালিত সীমান্তে গুলির শব্দ থামছে না
বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:১৬ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..

নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার আসামী আবুল কারাগারে

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: বুধবার, ২ মার্চ, ২০২২

শহরের বহুল আলোচিত আশিক বাহিনীর প্রধান আশিকের অন্যতম সহযোগী ধর্ষণসহ বহু মামলার আসামী আবুল হোসেন আইনের আওতায় এসেছে।

বুধবার (০২ মার্চ) সকালে লাইট হাউজের আলোচিত নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে বিজ্ঞ আদালত নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

মামলাসূত্রে জানা যায়, ২০২১ সালের ২৯ ডিসেম্বর থেকে চলতি বছরের ৩ জানুয়ারী পর্যন্ত লাইট হাউজ পাড়ার সামিরা (ছদ্মনামা) নামে এক ছাত্রীকে বিভিন্ন আবাসিক হোটেল ও বসতবাড়িতে বিয়ের আশ^াস দিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে একই এলাকার মোঃ সামশুল আলমের পুত্র আবুল হোসেন।

পরে ওই ছাত্রী বিয়ের জন্য বললে আবুল কালক্ষেপণ করে। বিষয়টি ওই ছাত্রীর মা আবুলের পরিবারকে জানিয়েও কোন সুরাহা না পেয়ে গত ০৫ জানুয়ারী কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একটি নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা রুজু করেন।

সেই মামলায় দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর আবুল হোসেন বুধবার আদালতে এসে জামিন আবেদন করে। বিজ্ঞ আদালত তাঁর জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

জানা যায়, আবুল হোসেন ওরফে আবুল আশিক বাহিনীর সক্রিয় সদস্য। তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, মাদক ও ধর্ষণসহ একাধিক মামলা রয়েছে। মামলাগুলো হলো— জিআর—৬১/৬১—২০১৭, জিআর—৩০৪/১৪, জিআর—৬১/১৪, জিআর—৩২/১৬, জি

আর—১৬/১৬, জিআর—৬/৬২৩—২০১৯ ও ৬/৬—২০২২। এদিকে বহু অপকর্মের হোতা আবুল হোসেন আইনের আওতায় আসায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী।


আরো খবর: