তারিখ: বুধবার, ১৬ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ১লা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম

Share:

সীমান্ত এলাকা টেকনাফে গভীর রাতে বিজিবির সাথে গোলাগুলিতে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত। সংঘটিত এই ঘটনায় বিজিবির তিন সিপাহী আহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও বিপুল পরিমাণ ইয়াবা উদ্ধার করেছে বিজিবি।

তথ্য সূত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদে জানতে পারে ইয়াবার একটি বড় চালান মিয়ানমার হতে বাংলাদেশে প্রবেশ করবে। সেই গোপন সংবাদের তথ্য অনুযায়ী ২৩ জুলাই গভীর রাত সাড়ে ১১টার দিকে বিজিবি সদস্যরা হ্নীলা ইউনিয়নের লেদা নাফনদী সংলগ্ন খাল এলাকায় অবস্থান নেয় বিজিবির একটি দল।

এরপর মাদক পাচারকারীরা বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে কোন কিছু না বুঝার আগেই এলোপাতাড়ী গুলিবর্ষণ শুরু করে। আত্মরক্ষার্থে বিজিবি সদস্যরাও পাল্টা গুলি চালালে পাচারকারীরা পিছু হটে পালিয়ে যায়। এরপর ঘটনাস্থল তল্লাশী করে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ২ ব্যাক্তিকে পড়ে থাকতে দেখে তাদেরকে উদ্ধার করে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত ডাক্তার উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানে দুইজনকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

নিহত দুই যুবক হচ্ছে, হোয়াইক্যং ইউনিয়ন মহেশখালিয়া পাড়া এলাকার আবু শামার পুত্র মোঃ হাবিবুর রহমান (২৬), উখিয়া উপজেলা বালুখালী ১১নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বি-ব্লকে বসবাসকারী রোহিঙ্গা মোঃ ইসলামের পুত্র কামাল হোসেন (২২)।

অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করে টেকনাফ ২ বিজিবি অধিনায়ক জানান, মাদক ককারবারীদের ছোড়া গুলিতে বিজিবির ৩ সিপাহী আহত হয়েছে। তারা হচ্ছে, সিপাহী ইমরান হোসেন, উজ্জল হোসেন ও মুজিবুর রহমান। ঘটনাস্থল তল্লাশী করে উদ্ধার করা হয়েছে ১ লক্ষ ইয়াবা, ২টি দেশীয় তৈরী অস্ত্র ও রাউন্ড তাজা কার্তুজ।

তিনি আরো জানান, ২৪ জুলাই সকাল ১১টায় স্থানীয় সংবাদকর্মীদের নিয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে অভিযানের বিষয়ে বিস্তারিত আরো জানানো হবে। লাশ ২টি ময়না তদন্ত রিপোর্ট তৈরী করার জন্য টেকনাফ থানা পুলিশকে হস্তান্তর করা হয়েছে।

Share:
error: কপি করা নিষেধ !!