শিরোনাম :
নাইট কোচে ডাকাতি: গ্রেপ্তারকৃত বাস চালক সহ তিনজনকে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন মহেশখালী থেকে ছিনতাই হওয়া মটরসাইকেল উদ্ধার : গ্রেফতার-১ টেকনাফে ১০হাজার ইয়াবা বড়িসহ আটক-১ কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে পরিবেশ, পর্যটন ও উন্নয়ন বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত সেন্টমার্টিনে কোস্টগার্ডের অভিযানে ইয়াবা ও গাজাসহ আটক ২ উৎসবমুখর পরিবেশে উখিয়া প্রেসক্লাবের নির্বাচনের মনোনয়ন পত্র জমা স্বাস্থ্যবিধি না মানলে প্রয়োজনে কারাদন্ড দেয়া হবে-জেলা প্রশাসক চকরিয়ায় অবৈধ বসতি গুঁড়িয়ে দিয়ে এক একর সংরক্ষিত বনভূমি উদ্ধার কক্সবাজার সদরের ইসলামাবাদে কারের ধাক্কায় টমটম চালক নিহত পেকুয়ায় রাতে নির্মিত ৩টি অবৈধ স্থাপনা দিনে উচ্ছেদ
রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৫:০৩ পূর্বাহ্ন

জাকাত ব্যবস্থাপনাকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে সিজেডএম : মির্জ্জা আজিজ

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: মে ৬, ২০১৮ ১১:৩৭ পূর্বাহ্ণ | সম্পাদনা: মে ৬, ২০১৮ ১১:৪২ পূর্বাহ্ণ

সেন্টার ফর জাকাত ম্যানেজমেন্ট (সিজেডএম) দেশে জাকাত ব্যবস্থাপনাকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে মন্তব্য করে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. এ বি মির্জ্জা মো: আজিজুল ইসলাম বলেছেন, বাংলাদেশের মানুষ ব্যক্তিগত পর্যায়ে জাকাত দিতে অভ্যস্ত, যার মাধ্যমে দারিদ্র্য বিমোচন হয় না। কিন্তু সিজেডএম যে প্রক্রিয়ায় জাকাত আদায় করছে এবং এর যথাযথ ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে দাবিদ্র্য বিমোচনে ভূমিকা রাখছে তাতে জাকাত ব্যবস্থাপনার একটি প্রতিষ্ঠানিক স্বীকৃতি মিলেছে। গতকাল রাজধানীর একটি হোটেলে ‘দারিদ্র্য বিমোচনে জাকাতের ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।
সিজেডএম আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা আবদুল মুয়ীদ চৌধুরী। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. হোসেন জিল্লুর রহমান। আলোচনায় অংশ নেন সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার মোহাম্মদ আবদুর রউফ, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দীন আহমেদ, গণস্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ডা: জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও সিজেডএমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ আইয়ুব মিয়া। সাবেক মন্ত্রী লে. জে. (অব:) এম নূরউদ্দিন খান, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সাবেক চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ আবদুল মজিদ, সিজেডএম চেয়ারম্যান ও রহিমআফরোজ গ্রুপের পরিচালক নিয়াজ রহিম, এ কে খান ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সালাহউদ্দীন কাসেম খানসহ বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের উদ্যোক্তা ও নির্বাহীরা উপস্থিত ছিলেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. এ বি মির্জ্জা মো: আজিজুল ইসলাম বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থাপনার অভাবে জাকাত থেকে এ দেশের মানুষ আশানুরূপ উপকৃত হচ্ছেন না। দারিদ্র্য বিমোচনের লক্ষ্যে গৃহীত সরকারের বিভিন্ন কর্মসূচিও আশানুরূপ সাফল্য এনে দিতে পারছে না। ফলে দারিদ্র্য হ্রাসকরণ কর্মসূচিতে প্রবৃদ্ধি কমে যাচ্ছে। তিনি বলেন, দারিদ্র্য বিমোচন করতে চাইলে একাধারে স্বাস্থ্যগত দিককেও অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করতে হবে।
তিনি বলেন, দেশে জাকাত আদায়ের যে সম্ভাবনা রয়েছে তার কিছুটা কাজে লাগানো সম্ভব হলে দারিদ্র্যপরিস্থিতি পাল্টে যাবে। সিজেডএম এ ক্ষেত্রে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার মোহাম্মদ আবদুর রউফ বলেন, জাকাত শব্দের অর্থ বিশুদ্ধ। জাকাত প্রদানের মাধ্যমে সম্পদ বিশুদ্ধ হয়। উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন, কোনো ব্যক্তির কাছে তার পরিবারের দৈনন্দিন খরচ বাদ দিয়ে ১০০ টাকা রয়েছে। তবে মনে রাখতে হবে তিনি ৯৭.৫০ টাকার মালিক। বাকি টাকা গরিবের। গরিব-মিসকিনদের তাদের আড়াই টাকা দেয়ার পরই কেবল ওই ব্যক্তির ৯৭.৫০ টাকা খরচ করার অধিকার প্রতিষ্ঠিত হবে। তিনি বলেন, জাকাত আদায় করা যেমন কর্তব্য তেমনি ওই টাকা যথাযথভাবে খরচ হচ্ছে কি না তা দেখাও জাকাতদাতার কর্তব্য। জাকাতদাতা ও গ্রহীতার মাঝে সেতুবন্ধনের কাজটিও সিজেডএম করছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
আমাদের দেশে যারা জাকাত দেন তাদের অধিকাংশেরই উদ্দেশ্য প্রচারণা মন্তব্য করে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দীন আহমেদ বলেন, তাদের কেউ ভবিষ্যতে নির্বাচনে দাঁড়াবেন। কেউ এমন উদ্দেশ্যে জাকাত দেন যাতে জাকাতগ্রহীতাকে ভবিষ্যতে কোনো কাজে ডাক দিলে পাওয়া যায়। করপোরেট সোস্যাল রেসপনসিবিলিটির (সিএসআর) নামে ১০ লাখ টাকার ডোনেশন দিতে প্রচারণায় ৩০ লাখ টাকা খরচ করা হচ্ছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, জাকাতের ওপর কর অবকাশ সুবিধা দেয়া হলে সরকারের রাজস্ব আয় অনেক বেশি বেড়ে যাবে। তিনি বলেন, অনেকে অনেক বাজে কাজে ঢোল বাজায় অথচ সিজেডএম যে দারিদ্র্য বিমোচনে দেশের ৩৫ জেলায় এমন চমৎকার কাজ করে চলেছে তার কোনো প্রচার নেই। প্রচার বাড়িয়ে ভালো কাজে লোকদের উদ্বুদ্ধ করার পরামর্শ দেন তিনি।
সিজেডএম একটি দারিদ্র্যবান্ধব অলাভজনক সংস্থা জানিয়ে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ আইয়ুব মিয়া বলেন, এ সংস্থার কাজ হচ্ছে জাকাত সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সচেতন করা এবং তাদের সুষ্ঠুভাবে জাকাত বণ্টন ব্যবস্থাপনায় সহায়তা করা। এর মাধ্যমে সিজেডএমকে একটি প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেয়া, যাতে জাকাত ব্যবস্থাপনায় সংস্থাটি পথিকৃতের ভূমিকা পালন করতে পারে। দারিদ্র্য বিমোচনের অংশ হিসেবে শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের ওপর বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, সিজেডএম বর্তমানে ৫০টি হেলথ সেন্টার চালাচ্ছে। এর মাধ্যমে এক লাখ মানুষকে স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছে। দুই হাজার বেকার তরুণ-তরুণীকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, প্রাইভেট সেক্টরে জাকাত আদায় ও ম্যানেজমেন্ট যে সম্ভব সিজেডএম তা প্রমাণ করেছে।
এ কে খান ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহযোগিতায় সিজেডএম পরিচালিত চট্টগ্রামে কর্ণফুলী নদীর তীরে মোহরা গ্রামে ৪৫০টি হতদরিদ্র পরিবারকে নিয়ে ২০১১ সালে শুরু হওয়া জীবিকা প্রকল্পের ওপর তৈরি গবেষণামূলক প্রতিবেদন উপস্থাপন করে সাবেক তত্ত্ব¡াবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন, প্রকল্পের উপকারভোগীদের মধ্যে মূলধন হস্তান্তর করে একটি টেকসই ঘূর্ণমান তহবিল তৈরি করা হচ্ছে। তাদের নানাবিধ আয়বর্ধক কর্মকাণ্ড এবং একক বা যৌথ ব্যবসায় বিনিয়োগ করতে প্রলুব্ধ করা হচ্ছে। জীবিকা প্রকল্পে উপকারভোগীদের সঞ্চয় করতে আগ্রহী করা হয়, যাতে তাদের সম্পদ বৃদ্ধি পায়। প্রযুক্তি হস্তান্তর, উদ্যোক্তা উন্নয়নে নানাবিধ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাসহ পণ্যের বাজারজাতকরণে সংযোগ স্থাপন করার মাধ্যমে তাদের অবস্থা উন্নত করতে সহায়তা করা এবং ঝুঁকি ব্যবস্থাপনায় সহযোগিতা করা হচ্ছে।
তিনি জানান, প্রকল্পের সুবিধাভোগীদের সক্ষমতা বেড়েছে ৭ হাজার থেকে ১৮ হাজার টাকায় ও মূলধন বেড়েছে ২০ হাজার থেকে ৩৫ হাজার টাকা। সুবিধাভোগীদের ৯৯ শতাংশ বর্তমানে ঋণমুক্ত বলেও জানান তিনি।
সভাপতির বক্তব্যে সাবেক তত্ত্ব¡াবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা আবদুল মুয়ীদ চৌধুরী বলেন, মোহরা প্রকল্পটি একটি নতুন কোঅপারেটিভ। এর উপকারভোগীরা সামগ্রিকভাবে স্বাবলম্বী হচ্ছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, দারিদ্র্য বিমোচন, কর্মসংস্থানসহ একটি পরিবারকে সার্বিকভাবে স্বাবলম্বী করে তোলা হচ্ছে।
তিনি বলেন, একটা সময় ছিল যখন মানুষের অনেক সম্পদ ছিল। সম্পদের একটা অংশ তারা ওয়াকফ করতেন। এখন সম্পদ ভাগ হয়ে গেছে আবার দামও বেড়ে গেছে। ফলে আগের মতো ওয়াকফ করার লোক পাওয়া যাচ্ছে না। তবে নগদ টাকা ওয়াকফ করার কিছু প্রকল্প কয়েকটি প্রতিষ্ঠান চালু করেছে বলে জানান তিনি।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::