শিরোনাম :
ঘুমধুম পুলিশে ত্রিশ লাখ টাকার তিনটি স্বর্ণের বার উদ্ধার,এক রোহিঙ্গা গ্রেফতার উখিয়ায় বিএনপির বৃক্ষ রোপন উদ্বোধন করলেন সাবেক এমপি শাহজাহান চৌধুরী ২৪ জুন খুলছে হোটেল মোটেল ও গেস্ট হাউস, বন্ধ থাকবে পর্যটন কেন্দ্র কলাতলীতে কউকের অভিযানে ভেঙ্গে দেয়া হলো ৩টি অবৈধ স্থাপনা চকরিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ প্রভাষকের মৃত্যু পার্বত্য বান্দরবানকে সম্প্রীতির মডেল জেলা হিসেবে রূপান্তরিত করতে হবে: পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর বিচারের আশায় ৬ মাস ধরে গ্রাম আদালতে আসে আর যায় পেকুয়ার বাদশা উখিয়ায় বিশ্ব শরনার্থী দিবস উদযাপন ; রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন যেন দ্রুত নিশ্চিত করা হয় চকরিয়ায় বাগানের ফলনকৃত ৪৫০ পেঁপে গাছ নির্বিচারে কেটে সাবাড়, আটক ১ চকরিয়ায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার জমিসহ নতুন বাড়ি পেলেন তিনশত দরিদ্র ভুমিহীন পরিবার
মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৫:২১ অপরাহ্ন
ঘোষণা:
কক্সবাজার পোস্টে আপনাকে স্বাগতম, আমাদের সাথে থাকুন,কক্সবাজারকে জানুন......

চকরিয়া-পেকুয়ার ৪০ হাজার গ্রাহক পল্লী বিদ্যুতের ভেল্কীবাজিতে অতিষ্ট

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: এপ্রিল ২০, ২০১৮ ৯:৩২ অপরাহ্ণ | সম্পাদনা: এপ্রিল ২০, ২০১৮ ৯:৩২ অপরাহ্ণ

কক্সবাজার পোস্ট ডটকম ::
কালবৈশাখীর ঝাপটায় বিছিন্ন হওয়া বিদ্যুৎ দুদিন পর আসলেও ভোগান্তি থেকে মুক্তি পাচ্ছেনা কক্সবাজারের চকরিয়া-পেকুয়ার গ্রাহকরা।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টার পর টানা দুই ঘন্টা বিদ্যুৎ পেলেও শুক্রবার বেলা ২টা পর্যন্ত কয়েকশ বার বিদ্যুৎ আসা যাওয়া করেছে। এসময় টানা দশ মিনিটও বিদ্যুৎ স্থায়ীত্ব পায়নি।

জানা গেছে, হাইভোল্টেজে কিছুক্ষণ পর পর বিদ্যুতের ভিল্কীবাজিতে বাল্ব, টিভি-ফ্রিজসহ ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি নষ্ট হয়েছে বেশ ক’টি ঘরে। এতে পল্লী বিদ্যুৎ সেবার মান নিয়ে দু’উপজেলার চল্লিশ হাজার গ্রাহকের ভোগান্তি চরমে পৌছেছে।

গত ১৭ এপ্রিল বেলা ২টায় কাল বৈশাখীর হাল্কা বাতাসে বিদ্যুৎ লাইন বিছিন্ন হয়ে পড়ে। ১৮ এপ্রিল রাত ৮টায় চকরিয়ায় বিছিন্ন লাইন ঠিক হলেও কক্সবাজারে নষ্ট হওয়ায় টানা দুইদিন বিদ্যুৎ বিহীন থাকে চকরিয়া-পেকুয়ার গ্রাহকরা।

১৯ এপ্রিল রাতে বিদ্যুৎ আসলেও শেষ রাত থেকে ২০ এপ্রিল বেলা ২টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ এই আসে এই যায় অবস্থায় রয়েছে।

পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহক কাকারা ইউনিয়নের বাসিন্দা তৌহিদুল ইসলাম বলেন, শুনেছি সরকার পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ দিলেও পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ সঞ্চালন লাইন দুর্বল রেখে দেয়ায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছি। আমরা পল্লী বিদ্যুৎ থেকে মুক্তি চাই। ফের পিডিবির লাইনে অন্তর্ভুক্ত হতে চাই।

এব্যাপারে জানতে চাইলে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি চকরিয়া জোনাল অফিসের এজিএম হানিফুল হাসান বলেন, সঞ্চালন লাইন ঠেকসই না হওয়ায় বিদ্যুৎ সরবরাহে ত্রুটি-বিচ্যুতি দেখা দিচ্ছে। লোড ক্যাপাসিটি সম্পন্ন লাইন নির্মাণ শেষ হলে এদুর্ভোগ পোহাতে হবেনা গ্রাহকদের।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::

সর্বশেষ