তারিখ: বুধবার, ১৬ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ১লা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম

Share:

নিজস্ব প্রতিবেদক,চকরিয়া::

চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে গতকাল বুধবার বিকালে পৌরসভার পুকপুকুরিয়াস্থ এনটিএন পার্ক মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে বিশেষ বর্ধিত সভা। এ উপলক্ষে আগেরদিন উপজেলা আওয়ামীলীগের অধীন প্রতিটি ইউনিয়ন কমিটির নেতৃবৃন্দকে বর্ধিত সভায় উপস্থিত থাকার আহবান জানানো হয়।
চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম এমপির সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন চৌধুরীর স ালনায় বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তাফা। প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান। সভায় উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামীলীগ, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ ও বিভিন্ন ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি সম্পাদক।
শুরুতে চকরিয়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি সম্পাদকের নেতৃত্বে তৃনমুল জনপদ থেকে বিপুল নেতাকর্মী সভায় আসতে থাকেন। বিকালে সভা চলাচলে সুরাজপুর-মানিকপুর আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে সেখানে উপস্থিত হন সুরাজপুর মানিকপুর ইউনিয়ন যুব লীগের সাবেক সহসভাপতি আবু বক্কর হত্যা মামলার এজাহারনামীয় ২নম্বর আসামী বিএনপির ক্যাডার সামসুল আলম। ওইসময় তাকে দেখে সুরাজপুর-মানিকপুর আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। মুর্হুতে সভায় উপস্থিতি নিয়ে একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়ে।
সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি বাদল শর্মা ও সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম অভিযোগ তুলেছেন, দলের নিবেদিত প্রাণ ও ত্যাগী নেতাকর্মীদেরকে কমিটি থেকে বাদ দিয়ে চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বছর আগে রোস্তম শাহরিয়ারকে আহবায়ক করে একটি অবৈধ আহবায়ক কমিটি ঘোষনা দেন। অথচ রোস্তম শাহরিয়ার আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে গিয়ে ইউপি নির্বাচনে অংশনেন।
মুলত ওই আহবায়ক কমিটির সংশ্লিষ্টরা যুবলীগ নেতা আবু বক্কর হত্যা মামলার আসামি ওই বিএনপির ক্যাডার সামসুল আলমকে নতুন আওয়ামী নেতা বানিয়েছে। তাকে সুরাজপুর-মানিকপুর ১নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি করেছেন।
বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সুরাজপুর-মানিকপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আজিমুল হক আজিম। তিনি বলেন, কি ভাবে সুরাজপুর মানিকপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ পরিচয় দিয়ে যুবলীগ নেতা হত্যা মামলার আসামি বিএনপির ওই ক্যাডার উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় উপস্থিত হয়। অথচ বক্কর হত্যাকা-ের পর এলাকার একটি প্রতিবাদ সভায় চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম এমপি ঘোষনা দিয়েছিলেন হত্যাকা-ে জড়িত সবাইকে আইনের হাতে সৌর্পদ্দ করা হবে। বিচারের মুখোমুখি করা হবে। এতে নেতাকর্মীরা একটু হলেও অনুপ্রেরণা পেয়েছিলেন।
তিনি বলেন, দলের সহযোগি সংগঠনের নেতা হত্যা মামলার আসামি অন্যদলের লোক কীভাবে আওয়ামীলীগের সভায় উপস্থিত হয়েছেন, আমি এই বিষয়টি কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগ, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মানিত নেতৃবৃন্দের কাছে জানতে চাই। পাশাপাশি দলের ভেতরে অনুপ্রবেশকারী এসব লোককে বিতাড়িত করতে হবে। একই সঙ্গে তাকে আওয়ামীলীগের নেতা বানিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিতে হবে। সেইজন্য কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগ, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মানিত নেতৃবৃন্দের কাছে অনুরোধ করছি।

Share:
error: কপি করা নিষেধ !!