শিরোনাম ::
উখিয়ায় মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধকল্পে কর্মশালা অনুষ্ঠিত সামাজিক সংহতি ও শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত উখিয়ার রাজা পালং মাদ্রসা দাখিল পরীক্ষা কেন্দ্রে নানা অভিযোগ, তদন্ত কমিটি গঠিত মুক্তি কক্সবাজারের উদ্যোগে উখিয়ায় নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত ফ্রেন্ডশিপের প্রশিক্ষণে চ্যাম্পিয়ন ভালুকিয়া পালং উচ্চ বিদ্যালয়ের নারী ফুটবল টিমকে সংবর্ধনা উখিয়ায় মাদক প্রতিরোধ ও অপরাধ দমনে কমিউনিটি পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত একসঙ্গে ৪ সন্তান জন্ম দিলেন মহেশখালীর এক গৃহবধূ! বান্দরবানের দুর্গম অঞ্চলে ঝরে পড়া শিশুদের জন্য উদ্বোধন শিশু প্রতিভা বিকাশ কেন্দ্রের বান্দরবান দুই শতাধিক প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প উখিয়ায় পালস’র উদ্যোগে বিশ্ব শান্তি দিবস পালিত
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৯:৪০ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..

চকরিয়ায় পৌরশহরে গভীর রাতে অস্ত্রের মুখে ওষুধের দোকান দখল, ওষুধ ও টাকা লুটের অভিযোগ

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: মঙ্গলবার, ২৯ মার্চ, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক,চকরিয়া::

কক্সবাজারের চকরিয়া পৌরশহরের চিরিঙ্গা হাসপাতাল রোড এলাকায় গভীর রাতে অস্ত্রের মুখে ওষুধের দোকান জবরদখলের ঘটনা ঘটেছে। এসময় ভাঙ্চুর চালিয়ে দোকানের ১৫ লাখ টাকার ওষুধ, চার লাখ টাকার আসবাবপত্রের ক্ষতিসাধন করা হয়েছে। ঘটনার সময় দোকানের ক্যাশ থেকে নগদ দেড় লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায় তারা। এঘটনায় দোকানের মালিক বাদী হয়ে চকরিয়া থানায় হামলায় জড়িত চক্রের বিরুদ্ধে একটি এজাহার দায়ের করেছে।
দোকান মালিক জালাল আহমদ গতকাল মঙ্গলবার বিকালে চকরিয়া প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সহযোগিতা চেয়ে ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা দেন। তিনি বলেন, প্রায় চল্লিশ বছরের পূর্বে চকরিয়া সরকারি হাসপাতাল সড়কে ক্রয়কৃত জায়গার উপর নির্মিত তাঁর একটি দোকানঘর রয়েছে। হুমায়ুন কবির নামের একব্যক্তিকে তিনি দোকানঘরটি ভাড়া দেওয়া হয়। ওইব্যক্তি সেখানে পপুলার ল্যাব নামের একটি প্যাথলজি সেন্টান করতেন। পরবর্তী তার চুক্তির মেয়াদ শেষ হলে রেজাউল করিম নামের অপর একজনকে তিনি ওষুধের দোকান করার জন্য চুক্তিমুলে দেন।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, চকরিয়া পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা সাহাব উদ্দিন গং তার দোকান ঘরটি দখলে নিতে কিছুদিন ধরে নানাভাবে তালবাহানা করে আসছেন। এমনকি দোকানের ঘরের নামে ভূয়া কাগজপত্র সৃজন করে দখলবাজ সাহাব উদ্দিন। ভূয়া কাগজপত্র দেখিয়ে দোকানের ভাড়াটিয়ার উচ্ছেদের হুমকি ধমকিও দিয়ে আসছিলেন।
বিষয়টি আঁচ করতে পেরে এরইমধ্যে সাহাবউদ্দিন গংয়ের বিরুদ্ধে আদালতে কয়েকটি মামলাও করা হয়েছে। দোকানের মালিকানা নিয়ে শালিশ বিচারও করেন চকরিয়া পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মুজিবুল হক। ওই বিচারেও আমার (জালাল আহমদ) পক্ষে রায় আসে। এরপরও অভিযুক্ত সাহাবউদ্দিন দোকান ঘরটি দখলে নিতে হুমকি দেন।
দোকান মালিক জালাল আহমদ দাবি করেন, হুমকির অংশহিসেবে সর্বশেষ শনিবার (২৬ মার্চ) গভীর রাত সাড়ে ৪টার দিকে দেশীয় অস্ত্র ১০-১২ জন সন্ত্রাসী নিয়ে তার ওষুধের দোকানটি দখল করে নিয়েছে। তাঁরা লোহার রড দিয়ে দোকানের ডেকোরেশন ভাঙ্চুর করে লুটপাট চালিয়েছে। এসময় দোকানের প্রায় ১৫ লাখ টাকার ওষুধ ও ক্যাশ থেকে সাড়ে চার লাখ টাকা লুট করে নিয়ে গেছে। এ ঘটনায় আমার (জালাল আহমদ) প্রায় ত্রিশ লাখ টাকা ক্ষতিসাধন হয়েছে। অপরদিকে জালাল আহমদ এঘটনায় সাহাবউদ্দিন সহ ৫ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেছে।
চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চন্দন কুমার চক্রবর্তী বলেন, চকরিয়া পৌরশহরে দোকান দখলের ঘটনায় একটি এজাহার পাওয়া গেছে। তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেলে এব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ##


আরো খবর: