তারিখ: রবিবার, ২৫শে আগস্ট, ২০১৯ ইং, ১০ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম

Share:

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া::

চকরিয়ায় ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ের হাজিয়ান এলাকায় দীর্ঘদিনের ভোগদখলীয় ক্রয়কৃত জায়গা জবরদখলের চেষ্টা চালিয়ে ভাংচুর ও হামলা চালানো হয়েছে। এ সময় জায়গার মালিককে সন্ত্রাসী বাহিনী ও প্রতিপক্ষের লোকজন বেদড়ক মারধর করে মহিলাসহ দুই ব্যক্তিকে গুরুতর আহত করা হয়। আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনায় আহত ব্যক্তিরা হলেন, উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ের হাজিয়ান এলাকার নুরুল হোসেনের ছেলে কামাল উদ্দিন (৫৬) তার স্ত্রী নুরুন্নাহার বেগম (৫০), ছেলে হেফাজ উদ্দিন (২২)। তৎমধ্যে আহত কামাল উদ্দিনের অবস্থা গুরুতর জখম হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী মালিক কামাল বাদী মঙ্গলবার রাতে চকরিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।
অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের হাজিয়ান এলাকার নুরুল হোসেনের ছেলে কামাল উদ্দিন তার খরিদাকৃত জায়গায় দীর্ঘকাল ধরে ভোগদখল করে বসতঘর নির্মাণ করে আসছিল। গত ১৩মে দুপুরের দিকে তার দখলীয় জায়গায় বসতঘরের বাউন্ডারী ওয়াল নির্মাণ করেছিল। ওই সময় তার বসতঘর জায়গা জবর-দখলে চেষ্টা চালায় একদল সন্ত্রাসী বাহিনী। একই এলাকার মৃত কবির আহমদের ছেলে নাছির উদ্দিন,শাহাব মিয়ার ছেলে বাহাদুর আলম, তার ছেলে সালমান ওরফে পুতিয়্যা, নয়ন, দানুমিয়া ছেলে নুরুল আলম ও আকতার আহমদের নেতৃত্বে পূর্বপরিকল্পিত ভাবে ৭/৮ জন ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী লোকজন নিয়ে তার ভোগদখলীয় জায়গায় নির্মিত বাউন্ডারী ওয়াল ও বসতঘর হামলা ও ভাংচুর চালিয়ে জবর-দখলে নিতে চেষ্টা চালায়। এ সময় বাঁধা দিতে গেলে ভুক্তভোগী জায়গার মালিক কামাল উদ্দিন, তার স্ত্রী নুরুন্নাহার ও ছেলে হেফাজকে দেশীয় তৈরি ধারালো অস্ত্র ও হাতুড়ি দিয়ে বেদড়ক পিঠিয়ে গুরুতর জখম করা হয়। এমনকি সন্ত্রাসীরা কোর্টের আদেশ অমান্য করে অভিযুক্ত ব্যক্তি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা চালিয়ে অশ্লীল গালি-গালাজ করে প্রাণনাশের হুমকি প্রদর্শন করেছে বলে সুত্রে জানায়।
ভুক্তভোগী জায়গার মালিক আহত কামাল উদ্দিন বলেন,আমার দীর্ঘদিনের খরিদাকৃত জায়গায় বসতঘর নির্মাণ করে দীর্ঘকাল ধরে ভোগদখল করে আসছি। বর্তমানে ওই জায়গায় বাউন্ডারী ওয়াল নির্মাণ করলে হঠাৎ করে সোমবার দুপুরে ৭/৮জন সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে নাছির উদ্দিনের নেতৃত্বে জবর-দখলে চেষ্টা চালানো হয়। এতে বাঁধা দিলে তার সন্ত্রাসী বাহিনীরা আমাকে ও আমার স্ত্রী, ছেলেকে মারধর করে ভাংচুর ও হামলা চালানো হয়। ওই সময় তারা আমার পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকিও প্রদান করে। এনিয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে জানান ভুক্তভোগী কামাল উদ্দিন।
চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এস এম আতিক উল্লাহ বলেন, ঘটনার বিষয়ে থানায় এখনো কেউ অভিযোগ দেয়নি । অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে এখনো সেই ধরণের কোন অভিযোগ পাইনি।

Share:

আপনার মতামত প্রদান করুন ::