তারিখ: মঙ্গলবার, ১৯শে মার্চ, ২০১৯ ইং, ৫ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম

Share:

নিজস্ব প্রতিবেদক,চকরিয়া ::
চকরিয়া উপজেলার চিংড়িজোনের একটি চিংড়ি প্রকল্পে ডাকাতির প্রস্তুতি ভন্ডুল করে দিয়েছে পুলিশ। খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্রসহ দুই ডাকাতকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এসময় উদ্ধার করা হয়েছে দেশে তৈরি একটি (এলজি) বন্দুক ও ৩ রাউন্ড গুলি। গতকাল বুধবার ভোররাত ৪টার দিকে উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের রিংভং ছগিরশাহ কাটা দক্ষিণ পাহাড়ের পশ্চিম পাশে মোড়াকাচা বাহার ঘোনা এলাকার একটি চিংড়ি প্রকল্পে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে গোপন সংবাদের ভিত্তি অভিযান পরিচালনা করেন চকরিয়া থানা পুলিশের একটিদল।
গ্রেফতারকৃতরা হলেন, উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের ডুমখালী এলাকার ফরিদুল আলমের ছেলে সরোয়ার আলম (৩২) ও একই ইউনিয়নের কাটাখালী এলাকার মৃত আলী আহমদের ছেলে মো.রমিজ উদ্দিন (৩২)।
থানা পুলিশ জানায়, বুধবার ভোররাতে উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের রিংভং ছগিরশাহ কাটা দক্ষিণ পাহাড়ের পশ্চিম পাশে মোড়াকাচা বাহারঘোনা এলাকায় ৭-৮জনের ডাকাতদল সাহাবুদ্দিনের চিংড়িঘের ডাকাতির প্রস্তুতি নেয়। ওইসময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে চকরিয়া থানার ওসি বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীর নির্দেশে থানার এসআই মো.আতিকুর রহমান খান ও এএসআই কামাল হোসেনের নেতৃত্বে সঙ্গীয় একটি পুলিশদল ওই এলাকায় অভিযান চালায়।
এ সময় ডাকাতেরা পুলিশের উপস্থিতি টেরপেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যাওয়ার সময় ডাকাতদলের দুই সদস্যকে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। ওই সময় ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ দেশে তৈরি একটি (এলজি) বন্দুক, তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে।
চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, বুধবার ভোর রাতে ডুলাহাজারাস্থ রিংভং ছগিরশাহ কাটা এলাকায় চিংড়িঘের ডাকাতির প্রস্তুতির জন্য একদল ডাকাত জড়ো হয়। ডাকাতি প্রস্তুতি নেয়ার সংবাদ পেয়ে পুলিশ অভিযান চালায়।
পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বেশ ক’জন ডাকাত পালিয়ে গেলেও তাদের পিছু ধাওয়া করে অস্ত্র ও গুলিসহ দুই ডাকাতকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে থানায় অস্ত্র, ডাকাতি, ছিনতাইসহ বিভিন্ন অভিযোগে পাঁচটি মামলা রয়েছে। এ ব্যাপারে পুলিশ বাদী হয়ে ডাকাতি প্রস্ততি ও অস্ত্র আইনে পৃথক দুটি মামলা রুজু করা হয়েছে।##

Share:

আপনার মতামত প্রদান করুন ::