শিরোনাম ::
উখিয়ার রোহিঙ্গা হিন্দু ক্যাম্পের দুর্গোৎসবে অর্থ সহায়তা প্রদান করেছে কোস্ট ফাউন্ডেশন। উখিয়ায় জাতীয় কন্যা শিশু দিবস পালিত কোটবাজার সিএনজি মালিক-চালক সমিতির কর্মকর্তাদের দুর্নীতি ও উপজেলা সমবায় অফিসারের স্বেচ্ছাচারিতা বন্ধের দাবীতে মানববন্ধন উখিয়ায় মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধকল্পে কর্মশালা অনুষ্ঠিত সামাজিক সংহতি ও শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত উখিয়ার রাজা পালং মাদ্রসা দাখিল পরীক্ষা কেন্দ্রে নানা অভিযোগ, তদন্ত কমিটি গঠিত মুক্তি কক্সবাজারের উদ্যোগে উখিয়ায় নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত ফ্রেন্ডশিপের প্রশিক্ষণে চ্যাম্পিয়ন ভালুকিয়া পালং উচ্চ বিদ্যালয়ের নারী ফুটবল টিমকে সংবর্ধনা উখিয়ায় মাদক প্রতিরোধ ও অপরাধ দমনে কমিউনিটি পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত একসঙ্গে ৪ সন্তান জন্ম দিলেন মহেশখালীর এক গৃহবধূ!
শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ০৫:২৭ পূর্বাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..

চকরিয়ায় চালক সুপারভাইজার ও হেলপার মিলে রোহিঙ্গা কিশোরীকে ধর্ষণের চেষ্টা, হেলপার গ্রেফতার

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: রবিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক ::

চকরিয়ায় ১২ বছর বয়সী এক রোহিঙ্গা কিশোরীকে বাড়ি পৌছে দেওয়ার কথা বলে বাসের ভিতরে ধর্ষণ চেষ্টা চালিয়েছে চালক, সুপারভাইজার ও হেলপার। এ ঘটনায় বাসের চালক-সুপারভাইজার কৌশলে পালিয়ে গেলেও হেলপার মো. ফারুককে (৩০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এসময় জব্দ করা হয়েছে বাসটিও।

শুক্রবার সন্ধ্যা সোয়া ৫টার দিকে চকরিয়া পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ড বাটাখালী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে ওই কিশোরী বাদী হয়ে তিনজনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

চকরিয়া থানায় দেয়া এজাহার সূত্রে জানা যায়, কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার কুতুপালং ১ নম্বর বøকের রোহিঙ্গা ওই কিশোরী। গত ৫-৬ দিন আগে কাজের সন্ধানে চট্টগ্রামে যায় সে। কাজ না পেয়ে ক্যাম্পে ফিরতে শুক্রবার দুপুর ১টার দিকে লোকাল হানিফ পরিবহনের একটি বাসে করে চকরিয়া পৌরশহরের বাস টার্মিনালে পৌছালে ভাড়া দিতে না পারায় তাকে নামিয়ে দেয় ওই বাসের সুপারভাইজার।

পরে টার্মিনালে থাকা শ্যামলী পরিবহনের একটি লোকাল বাস এর হেলপারকে উখিয়া যাবে কিনা জিজ্ঞেস করেন। এক পর্যায়ে উখিয়া যাওয়ার কথা বলে ওই কিশোরীকে খালি বাসে তুলে চকরিয়া পৌরসভার বাটাখালী এলাকায় নির্জনস্থানে নিয়ে বাসের ভিতরে ধর্ষণ চেষ্টা চালায় ওই বাসের চালক-সুপারভাইজার ও হেলপার।

এসময় তার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসার পর চালক-সুপারভাইজার কৌশলে পালিয়ে গেলেও হেলপার ফারুককে পাকড়াও করা হয়। পরে ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে তাকে গ্রেফতার করে।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ ওসমান গনি বলেন, ওই কিশোরীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের ওসিসি সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। তিনজনের মধ্যে এজাহারনামীয় বাসের হেলপার ফারুককে গ্রেফতার করা হয়েছে। চালক-সুপারভাইজারকে গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযানে রয়েছে।


আরো খবর: